Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English

শারমিন আহমেদ রিপি

তাজউদ্দীন আহমেদ এবং জোহরা তাজউদ্দীনের বড় মেয়ে শারমিন আহমেদ রিপি।

ওয়াশিংটন ডিসির জর্জ ওয়াশিংটন ইউনিভার্সিটি খেকে ১৯৯০ সালে উইমেনস স্টাডিজ-এ তিনি এম এ করেন।
মানবাধিকার ও নারীর ক্ষমতায়ন বিষয়ক বিভিন্ন ইন্সটিটিউট এবং সংস্থা পরামর্শক হিসেবে প্রায় দুই দশক ধরে কাজ করেছেন। প্রগতিশীল ইসলামী নীতি গবেষণামূলক ইন্সটিটিউট মিনারেট অব ফ্রিডম-এর সাবেক পরিচালক এবং প্রতিষ্ঠাতাদের একজন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে তিনি তাজউদ্দীন আহমেদ মেমোরিয়াল ট্রাস্ট(২০১১ সালে) প্রতিষ্ঠা করেন।

তার নাটক ‘দি রেইনবো ইন এ হার্ট’
যুক্তরাষ্ট্রে প্রশংসা কুড়ানোর পর ‘দি রেইনবো ইন এ হার্ট’, যা বাংলা করলে দাঁড়ায় হৃদয়ে রঙধনু, ঢাকার মঞ্চে নিয়ে আসছেন বাংলাদেশের স্বাধীনতার অন্যতম রূপকার তাজউদ্দীন আহমেদের মেয়ে শারমিন আহমেদ রিপি। শিল্পকলা একাডেমিতে এই গীতিনাট্যটির মঞ্চায়ন হয়। যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী শারমিন ২০০৩ সালে একটি বই প্রকাশ করেন, অভিবাসী নৃত্যশিল্পী রোজমেরী মিতু গনসালভেসের সহযোগিতায় গত বছর তা নাট্যরূপ পায়।

যেভাবে নাটকের শুরু
“তুমি কেমন করে মা হলে, মাকে কি সন্তান গড়তে পারে- পাঁচ বছরের শিশু অমৃতার কৌতূহলী ও জিজ্ঞাসু মনের নানা কথা নৃত্য ও সংলাপের সূতায় গেঁথে মঞ্চে এনেছেন শারমিন আহমেদ। মা ও সন্তানের এমন গল্প ধরা দিয়েছে নৃত্যনাট্য ‘হৃদয়ে রঙধনু’তে।

নৃত্যনাট্যের সংলাপ ও সংগীত রচয়িতা শারমিন আহমেদ রিপি বলেন, “আমার পাঁচ বছরের কন্যা অমৃতা যখন কৌতূহলভরে জিজ্ঞেস করলো- ‘তুমি কেমন করে মা হলে’, তখন এই গল্পের শুরু।”

তিনি বলেন, প্রযুক্তিতে অগ্রগামী, দ্রুতগামী এই বিশ্বে আমাদের শিশু ও তরুণরা মানবতার বিরুদ্ধে নৃশংস হিংস্রতা প্রত্যক্ষ করছে প্রতিদিন। এর বিপরীতে প্রেম ও শান্তির প্রসারের জন্য প্রয়োজন হৃদয়ের বিপ্লব।

শারমিন আহমেদের রচনার মঞ্চায়নে যুক্তরাষ্ট্রপ্রবাসী রোজমেরি মিতু গনসালভেজ গ্রাম বাংলার নানা ধরনের প্রাত্যহিক উপকরণ ‘প্রপস’ হিসেবে ব্যবহার করেছেন।

মূলত নাট্যটিতে সৃষ্টির বৈচিত্র্য ও ভিন্নতার মধ্যে দিয়ে এক মানব পরিবারে ঐক্য উদযাপনে গল্পটিতে মূর্ত হয়ে উঠেছে এক শিশুর অন্বেষা। শিশুটি তার জম্মের আগেই খুঁজছে সেই মাকে যিনি তাকে এবং ভবিষ্যত প্রজম্মকে আলোকিত করবেন প্রেম ও জ্ঞানের দীপ্তিতে।

শিল্পকলা একাডেমী ও যুক্তরাষ্ট্রের জাগো আর্ট সেন্টার’র যৌথ আয়োজনে এই নৃত্যনাট্যটি ঢাকায় মঞ্চস্থ হয়। এতে অংশ নেন জাগো আর্ট সেন্টার, বাংলাদেশের সংগীত প্রতিষ্ঠান নৃত্যাঞ্চল ও নন্দন কলা কেন্দ্রে শিল্পীরা।

১৯৯৫ সালে সাপ্তাহিক রোববার পত্রিকায় ‘হৃদয়ে রঙধনু’ গল্পটি প্রথম প্রকাশিত হয়। যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী শারমিন ২০০৩ সালে ‘হৃদয়ে রঙধনু’ প্রকাশ করেন, গ্রন্থটি শারমিন উৎসর্গ করেছিলেন মা সৈয়দা জোহরা তাজউদ্দীনকে, বাংলাদেশে গণতান্ত্রিক আন্দোলনে যার অবদানও কম নয়।

এই বইটি যুক্তরাষ্ট্রের মন্টগোমেরি কাউন্টির সরকারি বিদ্যালয়গুলোতে পাঠ্যসূচিতে স্থান করে নিয়েছে। বইটিকে প্রাথমিক ও মধ্যম স্তরের শিক্ষার্থীদের জন্য অনন্য বলে মনে করছেন সেই দেশের শিক্ষাবিদরা।

২০০৫ সালে নৃত্যশিল্পী রোজমেরি মিতু গনসালভেজের আগ্রহে তা নৃত্যনাট্যে রূপান্তর করা হয়।

রোজমেরি বলেন, “জন্মগ্রহণের আগে একটি শিশু তার মাকে খুঁজছে পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তে। সেই অসাধারণ মা দু’হাত বাড়িয়ে আছেন ভবিষ্যতের সন্তানের দিকে, যাদের তিনি আলোকিত করবেন নানা মাত্রায়।”

এর আগে গত বছরের ১৯ সেপ্টেম্বর যুক্তরাষ্ট্রে এ নাট্যটির মঞ্চায়ন হয়।

নাট্যটির সংগীত পরিচালক হিসেবে ছিলেন এম আর ওয়াসেক ও পোশাক পরিকল্পনায় আইরিন পারভীন।

 


Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে