Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ , ৬ আশ্বিন ১৪২৬

এনায়েতুল্লাহ খান

জন্মঃ ৫ মে, ১৯৩৯

এনায়েতুল্লাহ খান বাংলাদেশের বিশিষ্ট্য সাংবাদিক ও সাবেক মন্ত্রী। তিনি দৈনিক নিউ এজ-এর প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক ও সাপ্তাহিক হলিডের প্রধান সম্পাদক ছিলেন।

জন্ম ও পরিবার
সাংবাদিক এনায়েতুল্লাহ্‌ খান ২৫ মে ১৯৩৯ সালে জন্ম গ্রহণ করেন। তাঁর পিতা পাকিস্তান জাতীয় পরিষদের সাবেক স্পিকার বিচারপতি আবদুল জব্বার খান। এনায়েতুল্লাহ্‌ খান তাঁর পিতা-মাতার তৃতীয় সন্তান হিসেবে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর ভাই-বোনদের মধ্যে সাংবাদিক সাদেক খান, কবি আবু জাফর ওবায়দুল্লাহ, রাজনীতিবিদ রাশেদ খান মেনন এবং বিএনপি সরকারের সাবেক সংস্কৃতি মন্ত্রী (অষ্টম জাতীয় সংসদ) বেগম সেলিনা রহমান, ইংরেজি দৈনিক নিউ এজ এর প্রকাশক শহিদুল্লাহ খান।

রাজনীতিতে প্রবেশ
সাংবাদিক এনায়েতুল্লাহ্‌ খান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে দর্শনে স্নাতক করেন। ছাত্রজীবনে তিনি আনন্দমোহন কলেজের ছাত্র ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ঢাকা হলের (বর্তমানে শহিদুল্লাহ হল) ছাত্র ইউনিয়নের সহ-সভাপতি ছিলেন।

কর্মজীবন
এনায়েতুল্লাহ খানের সাংবাদিকতার বর্ণাঢ্য কর্মজীবন শুরু হয় ২০ বছর বয়সে পাকিস্তান অবজারভার প্রদায়ক প্রতিবেদক হিসেবে ১৯৫৯ সালে। ১৯৬৫ সালে এনায়েতুল্লাহ খান সাপ্তাহিক হলি ডে' প্রতিষ্ঠা করেন। ১৯৬৬ সালে তিনি হলি ডে' এর সম্পাদক হন। তিনি ১৯৭৫ থেকে ১৯৭৭ পর্যন্ত বাংলাদেশ টাইমস্‌ এর সম্পাদক ছিলেন। ১৯৭৭-৭৮ সালে এনায়েতুল্লাহ খান বাংলাদেশ সরকারের মন্ত্রী ছিলেন। তিনি চীন, উত্তর কোরিয়া, কম্বোডিয়া এবং মায়ানমারের রাষ্ট্রদুতের (১৯৮৪-৮৯) দায়িত্ব পালন করেন। ২০০৩-এর জুনে নির্ভীক সাংবাদিকতার প্রতীক হিসেবে এনায়েতুল্লাহ খান প্রকাশ করেন জাতীয় ইংরেজি দৈনিক নিউ এজ।

সাংগঠনিক কর্মকান্ড
গনতান্ত্রীক কর্মী হিসেবে এনায়েতুল্লাহ খান ১৮ ডিসেম্বর ১৯৭১ এর বুদ্ধিজীবি নিধন তথ্য-অনুসন্ধান কমিটির অন্যতম সংগঠক ছিলেন। এই কমিটি ১৯৭১ এর মুক্তিযুদ্ধের শেষ দিকে (ডিসেম্বর ১৪) বুদ্ধিজীবি হত্যার তদন্ত করে। তিনি সিভিল লিবার্টি ও লিগাল এইড কমিটির সমন্নয়ক হিসেবে রক্ষীবাহিনীর অত্যাচারের শিকার রাজনৈতিক কর্মিদের সাহায্য করেন। ১৯৭৪ সালের দুর্ভিক্ষ প্রতিরোধ কমিটি ও ১৯৭৬ সালের মাওলানা ভাসানীর ফারাক্কা মার্চ কমিটির সদস্য ছিলেন। তিনি জাতীয় প্রেস ক্লাবের (১৯৭৩-৭৬) ও ঢাকা ক্লাবের (১৯৮৪-৮৫) সভাপতি ছিলেন।

পুরস্কার
সাংবাদিকতায় গুরুত্বপূর্ন অবদান রাখার জন্য তাঁকে একুশে পদক দেওয়া হয়।

মৃত্যুবরণ
২০০৫ সালের ১০ নভেম্বর এনায়েতুল্লাহ খান ৬৬ বছর বয়সে অগ্নাশয়ের ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন।

 


Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে