Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শনিবার, ২৫ মে, ২০১৯ , ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

অফিসাররা যে যেদিকে পারে ছুটে পালায়

অফিসাররা যে যেদিকে পারে ছুটে পালায়
১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবার হত্যা করা হয়। ভয়াবহ সেই দিনটির কথা উঠে এসেছে বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলায় সাক্ষীদের জবানবন্দিতে। জবানবন্দি থেকে পাওয়া যায় সেদিনের ভয়াবহতার চিত্র। জানা যায় ঠিক কী ঘটেছিল সেদিন ৩২ নম্বরের বাড়িটির ভেতরে-বাইরে। সাক্ষীদের জবানবন্দির ভিত্তিতে চ্যানেল আই অনলাইনের ধারাবাহিক প্রতিবেদনের ষষ্ঠ পর্ব। প্রসিকিউশনের ৮নং সাক্ষী মেজর সাহাদৎ হোসেন খান আদালতকে জানান, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট ১ম বেঙ্গল রেজিমেন্টে অ্যাডজুটেন্ট/ক্যাপ্টেন ছিলেন তিনি। লে. কর্নেল মতিয়ার রহমান তাদের কমান্ডিং অফিসার ছিলেন। ১৫ আগস্ট সকাল ৬/৬:৩০টার দিকে মেসের বাইরে হৈচৈ শুনে ঘুম ভেঙ্গে যায় তার। বাইরে এসে ২ ফিল্ড আর্টিলারির ফোর্সসহ অফিসার ও গাড়ি সশস্ত্র অবস্থায় দেখেন। তারা বলে, সব শেষ করে দিয়ে এসেছি, আর তোমরা এখনও ঘুমিয়ে আছো! ইউনিফরম পরে তাড়াতাড়ি ইউনিটে রিপোর্ট করো। ৭.৩০ টার দিকে ইউনিটে রিপোর্ট করে পরে সেনাপ্রধান শফিউল্লাহসহ উর্ধতন অফিসাররা আস্তে আস্তে তাদের কমান্ডিং অফিসারের রুমে সমবেত হন। সেখানে ইউনিফরম পরা সশস্ত্র অবস্থায় মেজর রশিদকে দেখেন। তার কমান্ডিং অফিসার লে. কর্নেল মতিয়ুর রহমান রুম থেকে বের হয়ে ২ জন অফিসার নিয়ে বঙ্গবন্ধুর বাসভবনের অবস্থা দেখে রিপোর্ট করার জন্য তাকে নির্দেশ দেন। সকাল প্রায়…

ভাইয়া, ওরা আমাকে মারবে না তো?

ভাইয়া, ওরা আমাকে মারবে না তো?
‘ভাইয়া, ওরা আমাকে মারবে না তো?’ প্রশ্নটি ছিল বঙ্গবন্ধুর ছোট ছেলে শেখ রাসেলের।   ঘাতকের বুলেটের আঘাতে একে একে প্রাণ হারিয়েছেন বাবা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, মা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব, বড় ভাই শেখ কামাল ও জামাল, তাদের স্ত্রী সুলতানা কামাল ও রোজি জামাল।   ঘাতকরা শিশু রাসেলকে দোতলা থেকে নিচে নামিয়ে আনে। নিচে এসে মহিতুলকে (বঙ্গবন্ধুর ব্যক্তিগত সহকারী) দেখে তাকে জড়িয়ে ধরে এমন…

মহাকবি কায়কোবাদ তার গীতি কবিতা

মহাকবি কায়কোবাদ তার গীতি কবিতা
‘মহাশ্মশান কায়কোবাদের পরিণত বয়সের শিল্পকীর্তি। কবি জীবনের প্রস্তুতি পর্বে তিনি খন্ড কবিতা বা গীত-কবিতায় মানস গঠন করেছেন। এ সম্পর্কে তার নিজের বক্তব্য-‘অশ্রুমালা’ যখন লিখি, তখন আমার হৃদয়টি নন্দন কাননের মত ফুলে ফলেও ফজরী মকুলে সুশোভিত ছিল। ‘মহাশ্মশান’ স্বর্গ, ‘অশ্রুমালা’ মর্ত। এ দুই আখ্যান কাব্যে স্বর্গ মর্ত প্রভেদ। ‘অশ্রুমালাতে কেবল কবির অশ্রুজল, আর ‘মহাশ্মশানে’…

হিরোশিমা: ভয়াল সেই স্মৃতি ধরে রাখার যুদ্ধ

হিরোশিমা: ভয়াল সেই স্মৃতি ধরে রাখার যুদ্ধ
এক জীবনের মর্মান্তিকতার বার্তা অন্য প্রজন্মের মানুষের কাছে বিশ্বাসযোগ্যভাবে পৌঁছে দেওয়া আদৌ সম্ভব কি? প্রশ্নের চটজলদি উত্তর নেই বলেই হয়তো ফ্রান্সে বসবাসরত চেক ঔপন্যাসিক মিলান কুন্দেরা একসময় আক্ষেপ করে বলেছিলেন, ‘আমাদের জীবনটাই হচ্ছে সর্বগ্রাসী বিস্মৃতির বিরুদ্ধে স্মৃতিকে ধরে রাখার লড়াই। আমরা জানি,…

বেয়াদবি করছিস কেন, কোথায় নিয়ে যাবি আমাকে?

বেয়াদবি করছিস কেন, কোথায় নিয়ে যাবি আমাকে?
পঁচাত্তরের ১৫ আগষ্ট। ভোর সাড়ে ৫টা দিকে বঙ্গবন্ধুর বাড়ির রক্ষীরা বিউগল বাজিয়ে জাতীয় পতাকা উত্তোলন শুরু করেছেন। ঠিক তখনই বাড়িটি লক্ষ্য করে দক্ষিণ দিক থেকে সরাসরি আক্রমণ শুরু হয়। ধানমন্ডির বাড়িটি আক্রান্ত হওয়ার আগেই শেখ মুজিবুর রহমান আবদুর রব সেরনিয়াবাতের হত্যাকাণ্ডের খবর জেনে যান। গুলির শব্দ শুনেই বঙ্গবন্ধু…

শেখ কামাল পড়ে যাবার পর আবার গুলি করে ক্যাপ্টেন হুদা

শেখ কামাল পড়ে যাবার পর আবার গুলি করে ক্যাপ্টেন হুদা
১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবার হত্যা করা হয়। ভয়াবহ সেই দিনটির কথা উঠে এসেছে বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলায় সাক্ষীদের জবানবন্দিতে। জবানবন্দি থেকে পাওয়া যায় সেদিনের ভয়াবহতার চিত্র। জানা যায় ঠিক কী ঘটেছিল সেদিন ৩২ নম্বরের বাড়িটির ভেতরে-বাইরে। প্রসিকিউশনের ৫নং সাক্ষী সুবেদার…

মহাশ্বেতা দেবী ও আমাদের ইতিহাস পাঠ

মহাশ্বেতা দেবী ও আমাদের ইতিহাস পাঠ
সাহিত্যিক মহাশ্বেতা দেবী প্রসঙ্গে প্রায়শ বলা হয়ে থাকে, তিনি ছিলেন প্রান্তিক মানুষের কথাকার। প্রান্তিক মানুষ- এ কথাটির পেছনে অনেক কিছুই লুকিয়ে থাকে। মুখ্যত যে প্রসঙ্গটি একেবারে জড়িয়ে আছে, তা হলো প্রান্তিকের বিপরীতেও এক দল মানুষ থাকে। আর আমরা জানি প্রান্তিক হয়ে যাওয়ার পেছনে একটা ক্রমাগত চাপ প্রয়োগের বিষয়…

জনজীবনের লেখক মহাশ্বেতা দেবী

জনজীবনের লেখক মহাশ্বেতা দেবী
কত আশ্চর্য সব গল্প লিখেছেন মহাশ্বেতা দেবী। কত মানুষ, কত রকম মানুষ তাঁর গল্পের বিষয়। আমি তাঁকে দেখেছি ১৯৭৭-এর অক্টোবর কিংবা নভেম্বর থেকে। তিনি ডেকে পাঠিয়েছিলেন অমৃত পত্রিকায় আমার একটি গল্প পড়ে। হ্যাঁ, এমন কতজনের খোঁজ করেছেন তিনি গল্প পড়ে, উপন্যাস পড়ে। তখন মহাশ্বেতাদিকে পড়ে আমরা উদ্দীপ্ত হয়েছি বারবার। সেই…

আমাদের ছফা ভাই

আমাদের ছফা ভাই
বাড়ির আলমারিতে রাখা বই। উপন্যাসের ভাগে রাখা। বইয়ের নাম—‘সূর্য তুমি সাথী’ আর প্রবন্ধের বই ‘জাগ্রত বাংলাদেশ’। আহমদ ছফার লেখা বই। প্রকাশক সম্ভবত মুক্তধারা। বই দুটো দেখতে দেখতে আহমদ ছফার নামটা মুখস্থ হয়ে গিয়েছিল কলেজের শুরুতেই। কিন্তু কোনোদিন তাঁকে দেখব, এমন আশা ছিল না।  কবি শামসুর রাহমান, নির্মলেন্দু…

তাজউদ্দীন আছেন ইতিহাসের সঙ্গে

তাজউদ্দীন আছেন ইতিহাসের সঙ্গে
যুদ্ধদিনের প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দীন আহমদ (১৯২৫-১৯৭৫) বাংলাদেশের রাজনৈতিক ইতিহাসে এক ব্যতিক্রমী নাম। ব্যতিক্রমি এই কারণে যে, বিশাল ক্যারিশমার অধিকারী না হয়েও শুধু সততা, দক্ষতা, নীতিনিষ্ঠতা, চিন্তাশক্তির অনুশীলন, আধুনিক পঠন পাঠন এবং সার্বক্ষণিক রাজনীতির চর্চা দিয়ে বাংলাদেশের রাজনীতির ইতিহাসে তিনি এক…

কর্নেল তাহেরের ফাঁসি কার্যকরের ৪১ বছর

কর্নেল তাহেরের ফাঁসি কার্যকরের ৪১ বছর
মুক্তিযুদ্ধের সম্মুখসমরে পা হারানো একজন যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা এবং মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সেক্টর কমান্ডার লে. কর্নেল এম এ তাহের। ৪১ বছর আগে বিশেষ সামরিক ট্রাইব্যুনালের গোপন বিচারে ১৯৭৬ সালের ২১ জুলাই এই মুক্তিযোদ্ধাকে ফাঁসি দেওয়া হয়েছিল। কার্যকরের সাড়ে তিন দশক পর ২০১১ সালের ২২ মার্চ এক রায়ে কর্নেল তাহের…

হুমায়ূন আহমেদ নামা

হুমায়ূন আহমেদ নামা
বাংলা সাহিত্যে স্বল্প কয়েকজন মানুষ এসছেন, যাঁরা তাঁদের লেখার জন্য মানুষের কাছে এতটা সমাদ্রিত। যাঁর উপন্যাস তারুণ্যের মানসিকতা গড়েছে ,  নাটক দেখে মানুষ রাস্তায় নেমেছে ,  যাঁর সিনেমা দেখতে মানুষ ভিড় করেছে। তিনি যে জগৎ নিয়ে লিখেছেন ,  সেটি বাঙালি মধ্যবিত্তের রূপ-চেহারা। কিন্তু অনেক অর্থে তিনি একটি বিকল্প…

‹ শুরু  < 6 7 8 9 10 > 
Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে