Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English

প্রশান্তি

প্রশান্তি
তুমি যে নাট্যদেবী, তোমার ওই মঞ্চে নাটক করার সাধ্য যে নেই আমার! তুমি যে কাব্যদেবী, তোমার কাব্যগ্রহে বিচরণ করার সাহস যে নেই আমার! তবুও কবিতাই মোর যাবতীয় সব, কবিতাতেই করি যত যন্ত্রণা লাঘব। কবিতাতেই যেন আমার শত মন্ত্রণা, কবিতাতেই খুঁজিফিরি যত সান্ত্বনা। সূত্র: যুগান্তর

অপেক্ষায় কাঁদে মন

অপেক্ষায় কাঁদে মন
তোমার একটা মেয়ের অভাব, বুঝতে পারি আমি।  তোমার একটা সহোদরার অভাব, তাও বুঝি তোমার একটা সহোদর নেই। তাও জানি পারনা মনের আকুল বিকুল প্রকাশ করতে!  বন্ধুর মতো পিতাও পাড়ি দিলো না ফেরা ভূবনে তবে তোমার একটা মা আছে, আছে একটা বৌ মাকে মায়ের জায়গায় আর বৌকে বৌ এর জায়গায় দেখে উপলব্ধি করো নারীর ভূবন কোন মোহে হাঁটে! বুজলেনা সাম্যর অজানা ব্যথা! তবু আছি আমার মতো করে যেদিন চলে গেলে মিস করছি সব জেনে এটা…

কান্দে ক্যানে মন

কান্দে ক্যানে মন
কও দেখি বুবু, অমন জোসনা আসে ক্যান আকাশের গায় শীতের পাখি সব দলে দলে দক্ষিণে ক্যান যায়।   কী এমন দুঃখ তার, এত ক্যান অস্থির অয় এক তিল তর না সয় মাঝি নাই নাও নাই খালি জোনাকির ঢেউ শত শত মুই ক্যান আসি ফির বসি থাকো                         ট্রেন ফেল করা যাত্রীর মতো, কিসে মোর টান এত? মোর কি কোনো কাম নাই কারো সাথে কথা নাই ভালো-মন্দ, উনিশ-বিশ দেখবার কাঁয়ো নাই। কিসে মোক টানি আনে যখন তখন ক্যান ঘরের…

স্ব-দেখা স্বর্গ

স্ব-দেখা স্বর্গ
ভালোবাসার অবজ্ঞা শিখিনি যে তাই-- প্রভু! তোমার সকল স্বর্গীয় উদ্যান, সত্তুরটা সুন্দরী হুর, হাউজে কাওছার নির্দ্বিধায় বলে যাই কিছুই চাই না এর। এবং বাহারী ফুল ; ম-ম ঘ্রাণ... তাও প্রত্যাখান করি। শুধু বলি শুনো মৃত্যুর ওপারে যদি জীবন থেকেই থাকে সে জীবনে যেন আমার চারপাশে আদিগন্ত সুসবুজ ফসলের মাঠ থাকে। হাত ও পা ছুঁড়ে ছুঁড়ে…

শামসুর রাহমান অনূদিত মাও সে–তুংয়ের কবিতা

শামসুর রাহমান অনূদিত মাও সে–তুংয়ের কবিতা
লিউপান পাহাড়ে আকাশ অনেক উঁচু, মেঘমালা কেমন বিবর্ণ, আমরা দেখছি বুনো রাজহংসীগুলি হচ্ছে অদৃশ্য দক্ষিণে। যদি ব্যর্থ হই ওই মহাপ্রাচীরে পৌঁছাতে তাহলে আমরা পুরুষ নামের যোগ্য নই, আমরা যারা ইতিমধ্যে শত শত মাইল করেছি অতিক্রম। লিউপান পাহাড়ের সুউচ্চ চূড়ায় লাল পতাকারা পশ্চিমা হাওয়ায় তরঙ্গিত, কী স্বাধীন। আমরা ধরেছি…

শোক পাখি

শোক পাখি
শালিক পাখিটা উড়বে বলে একটা স্মৃতির পালক ফেলে, স্নিগ্ধ আর মাতাল হাওয়ায় উড়ছিলো শুধু পাখনা মেলে। কী অপূর্ব! কী যে সুন্দর এই ভূগোলক রাতে নীড়ে বসে ঘুম পাড়াতো শুনিয়ে শত হাজারো শ্লোক; তাতে এই আসমানের কথাও থাকত উঁচু থেকে পৃথিবীটা যেন আস্ত একটা পাখির বাসা সেখানে কেউ কেউ অপেক্ষা করত। মা শালিক কি তা জানত না! 'আমরা কেউই…

দৃষ্টির সীমানায়

দৃষ্টির সীমানায়
সুখের সন্ধানে পড়িয়া রহিনু অনলে পুড়ে দগ্ধ আমি আশঙ্কা চিত্তে পিছনে তাকাই শুধুই হাহাকার, যন্ত্রণা বর্তমান নিয়েই থাকি না! মন যে মানে না, মনের ব্যাকুলতা বোঝে না? কীসের প্রেম? কীসের ভালোবাসা? কীসের এতো মায়া? জবাব কী মিলবে না? যেখানে আগমনই ভুল কীসের এতো অনুশোচনা? যদি কিছু ফেলে দাও পিছনে ফের তা খোঁজা শোভা পায় না। সূত্র:…

জ্যামিতিক অঙ্ক

জ্যামিতিক অঙ্ক
কখনো বৃষ্টিশূন্য শ্রাবণ আসে সূর্যের দহনে পুড়িয়ে মন-প্রাণ স্বপ্নের সীমানার পাসপোর্টে সিল মারে প্রবেশ নিষেধ! হায়! স্বপ্ন মানে না তোমাদের সীমান্ত প্রাচীর; আকাশ জলের মিতালিতে প্রসন্ন প্রহর মেঘের গর্ভে বেড়ে ওঠে জলের আধার প্রসব কান্নায় হেসে খুন উষ্ণ বাতাস। প্রতিদিন ভেঙে পড়ে স্বপ্ন-বসতি কড়কড়ে রোদ প্লাবনে শক্তিহীন…

অপরাজিতা মেয়ে

অপরাজিতা মেয়ে
বাপের ঘরের আদরিনী মেয়ে, হেসে খেলে বাড়ল দিনে দিনে। রুপটি যে তার ছিল পরীর মত গুনে তার মুগ্ধ জনে জনে। পাহাড় সে ডিঙায়নি কখনো, আকাশ তবু ছিল তারই মত, সাতটি পাকে পড়ল যখন বাঁধা, রঙিন জালে দেখল কাটা শত। দিগন্ত যে হারিয়ে গেল কোথা, চার দেয়ালে গন্ডি হল আঁকা, জীবন মাঝে জীবন খুঁজে দেখে চারিদিকেই ফাঁকা,শুধু ফাঁকা। বাপকে ছেড়ে…

ওপার-এপার  

ওপার-এপার

 
ময়-মুরুব্বিরা বলতেন বালাই ষাট; সেই ষাটের উলটোদিকে দাঁড়িয়ে তোমার ঝলমলে ডালপালাগুলো দেখি, পাতা আর ছায়াগুলো দেখতে-দেখতে বাইরে যাই। দেখি জারুলের বেগুনিময় ফুলের আলো। বালাই ষাট। মাঝে মাঝে আলো আর বাতাসের কাছ থেকেও দূরে সরে থাকি। এদিক-সেদিক যাই, তোমার ছায়া নিয়ে নিজের ছায়ায় ফিরতে চাই। হেনা, তুমি ষাটের ঘাটে ফুটে-ওঠা…

করি চন্দ্রস্নান এসো

করি চন্দ্রস্নান এসো
অবগুন্ঠন খোলো! অবারিত জোসনা জলে শরৎ রাতে  করি চন্দ্রস্নান, এসো। ছতিছন্ন কবি আজ তোমার কোলে মাথা রাখবে অক্ষয় প্রেম সাধনায়  না করবে? থাকতে নেই এত লাজ! দেখো, উথাল পাথাল নদীর জলে-  জহুরা চন্দ্রবতীর দুরন্তপনা! বদ নসিব! এমন রাতে কি বলবে তারা  যদি না দাও সাড়া! একটু বোঝনা! হুট করে হেসে দিলে  এ রাতে মনে এ কেমন হানা?…

সে

সে
সে মানে মোমশিখার একবিন্দু কালো  কামারশালার হাপরের তলে কনকরঙা ইস্পাত ফাল্গুনের বিরহী শাখায় মুকুলের মুখ পোড়োবাড়িতে বিষণ পাল শাসনামলের গল্প তপ্ত ফুটপাতে ঘরহারা মানুষের আর্ত পদপাত পাথরে নকশা খোদাইরত শরীর ঘেমো মজুরের  সে মানে বাঘের ঘরে দৌড়ক্লান্ত হরিণীর দৃষ্টিপাত ক্ষণিকের…

 < 1 2 3 4 >  শেষ ›
Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে