Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বুধবার, ২৬ জুন, ২০১৯ , ১১ আষাঢ় ১৪২৬

বিক্ষুব্ধ ঊর্মিমালা

বিক্ষুব্ধ ঊর্মিমালা
চারিদিকে সুনসান নীরবতা! সূর্যমামা দাত কেলিয়ে হাঁসছে, সাগরকন্যা কুয়াকাটার বেলাভূমির তপ্ত বালি চিকচিক করছে। যেমনি চিকমিক করছে আমার মনে স্মৃতিকণাগুলো তোমার! বার বার বিক্ষুব্ধ ঊর্মিমালা যেমন করে বেলাভূমির বুকে আছড়ে পড়ে বেলাভূমিকে বিধ্বস্ত করে; তেমনি করছে সে বারে বারে! তাঁর স্মৃতিমালাগুলোও আমার হৃদয়ের তন্ত্রীগুলো ছিঁড়ে আমাকে কুড়ে কুড়ে মারে! সানগ্লাসটা দু’চোখকে ভালোবেসে আগলে রেখেছে আমাকে এই দুঃসহ তাপদাহ থেকে। যেমনি তুমি আগলে রাখো আমার দুঃখ সাগরের বাঁকে। একটি গাছের আংশিক ছায়ায় আমি ঠায় দাঁড়িয়ে; দৃষ্টি দিগন্তরেখায় আকাশ-সাগরের মিলন প্রান্তে। এক সময় একটা গোটা আকাশ ছিল আমার হৃদয়সীমান্তে! আজ সে দূরে বহুদূরে! জানি না কেমন আছে; কোথায় আছে? হয়তো সে তাঁর কক্ষপথে ঘুরছে। আর সারাক্ষণ আমার কথাই ভাবছে। মুখ ফুলিয়ে রাগ করে বসে আছে। আমিও প্রতিকূলে অনুকূলে সারাক্ষণ তাঁর কথা ভাবছি। আমি সারাক্ষণ তাঁর অনুভবে থাকি সেটা সে খোলামেলা প্রকাশ করে। সে-ও তো সারাক্ষণ আমার অনুভবে থাকে, সেটা অনুচ্চারিত ও অপ্রকাশিত। এ কথা তাকে বোঝাই কেমন করে! এই নির্মল সহজ-সরল পাগল আমাকে ধন্য করেছে অন্তর তাঁর অতি সুনির্মল। সে আমায় রিক্ত করেছে সিক্ত করেছে, অনেক করেছে ঋণী। আমি তা কায়মনে মানি, দিবস যামিনী। সে যে বড্ড অভিমানী আমার সকল সুখ-দুঃখের কান্না-হাসির…

ভয়ানক আগুনে জ্বলছি মোরা

ভয়ানক আগুনে জ্বলছি মোরা
আগুনে যখন মানুষ পুড়ে, মন যে তখন চিৎকার করে। বাঁচতে চেয়ে হলো না বাঁচা মাতাল আগুনের দাবানলে। নিশ্বাস এবার বন্ধ হলো কালো ধোঁয়ার আঁধারে। লক্ষ চোখে তাকিয়ে দেখে, লজ্জা বিহীন চোখে। মাতাল আগুনে পুড়ছে দেহ তোমরা অমানুষের দল পাচ্ছো কি গন্ধ? ভয়ানক আগুনে জ্বলছি মোরা মোবাইল চোখে দেখ এবার, বিবেক বিহীন মানুষেরা। শান্তি নিয়ে ফিরো ঘরে, আগুন নৃত্য দেখে। মা তোমার খোকা পুড়ছে এবার মাতাল আগুনের দেশে। পরম…

ভালোবাসার ভোরগুলোর দিকে 

ভালোবাসার ভোরগুলোর দিকে 
সপ্ত আকাশ ভেদ করে আমি সেদিন ছুটে গিয়েছিলাম তোমার কাছে।  কত হাজার ফুট উচ্চতা ছিল আকাশের সেদিন; মনে করতে পারি না আর আজ।সুরমা'র সুজলা কিনারে দাঁড়িয়ে কেবলই এঁকেছিলাম তোমার মুখ- কিংবা বলতে পারো তোমাকে প্রথম স্পর্শের কল্পচিত্রগুলো। রজনীগন্ধা'র সৌরভ জড়ানো সন্ধ্যাছায়ারা কেমন ছিল সেদিন! রজনী নেমে আসার আগেই কেমন উষ্ণ ছিল সেই শীতের শিশির! ভাবতেই চমকে উঠি আজও- অথবা তোমার খাতায় জমানো লাল…

মন্ত্রণা

মন্ত্রণা
যদি, আসিতে চাও হৃদয় তটে যদি, বাসিতে চাও ভাল তবে, তোমারে নীল শাড়িতে জড়িও, একটা সুমধুর গান ধরিও, শুধু যে আমার তরে, যে গানের কথার মাঝে, নিত্য তোমার প্রেম সাজে, আমি শুনিব প্রাণ ভরে। যদি, বসিতে চাও মোর পাশে যদি, মজিতে চাও লীলা মাঝে, মনের আকুতি নিয়ে এসো, সুখের একফালি হাসি হেসো, যেন থাকে না ব্যবধান, তোমার মনে আগল খুলিব, দেহমনে…

অভিমান

অভিমান
আমি ধন্যবাদ দিতেই  ঈশ্বরের চোখে অশ্রু গড়ায় ! বুকটা যেন তাঁর দুমড়ে মুচড়ে  একাকার হয়ে যায় ! মাঝে মাঝে ভীষণ একাকিত্বে  নিজেকেও ঈশ্বর মনেহয় ! ঈশ্বরও কি আমার মতো একাকীত্বের চাবুকে ক্ষতবিক্ষত ? ঈশ্বরও কি আমার মতো  অভিমানে তীব্র খরায় কাটায় ?

নীল পাহাড়ি মেয়েটি

নীল পাহাড়ি মেয়েটি
নীল পাহাড়ের শরীর ঘেঁষে দাঁড়িয়ে ছিল নীল পাহাড়ি নন্দিতা মেয়েটি তার ভরা যৌবনে পাহাড়ি সবুজ বেহিসেবী অবুঝ শরীরে তার ফুলঝুরি স্তন ঝরনার জলে ভাসে ভাসে আর হাসে বায়ুভরে উড়ে যায় তার সুবাস তার ভেজা ঠোঁট কামে ঘামে অধির দুচোখের পাতায় লীলারঙ্গ নিতি নৃত্যে বিভোর নীল পাহাড়ে একা একা দেখি তারে লতা পাতা অলংকারে কি রূপের রোশনাই…

একদিন সমুদ্র শুকাবে

একদিন সমুদ্র শুকাবে
আজ অনেক প্রশ্ন মনে আসে মুখ ফোটে না শুধু চেয়ে থাকি  তোমার দিকে তোমার কি হৃদয় আছে তুমি কি একটু ভালোবাসতে পারো না আমার মনের কথাটি বুঝতে পারো না পারবে কি করে তুমি তো নিজের স্বার্থের বাইরে কোন কিছুই বুঝলে না দেখলে না ভালো থাকো তুমি ভালো থাকো বিচিত্র রূপ নিয়ে থাকো সুখে একদিন বৃষ্টির মাঝে সমুদ্র দাড়াবে দাড়াবেই…

লাল পেড়ে শাড়ির আচল

লাল পেড়ে শাড়ির আচল
একদিন একটি ঘাস ফড়িং এর পিঠে চড়ে পাড়ি দেবো নরোম ভোর কিংবা মনোরম সন্ধ্যা। সেদিন বকুলের মত স্নিগ্ধতা ছড়িয়ে পাড়ি দেবো তোমার সক্রিয় নিঃশ্বাস,  যেন মুগ্ধতার আকাশ ভেঙে পড়ে তোমার চিবুক ও চোখের কাজলে।  সমস্ত দিন তোমার আঁচলের বাসন্তীতে গাঁদাফুলের গুচ্ছের মতো- থোকা থোকা ভালোলাগায় ভরে থাকবে তোমার চারপাশ। ওখানে…

কুয়াশামতন

কুয়াশামতন
কতটুকু আড়াল পেলে শরীরে হৃষিকেশের ঘণ্টা বাজে- আঁধার জানে জানে বলেই নিভৃতসবুজ পতাকা ওড়ানো গাছেদের বিশ্বাস করে সে তাই দেখে দেখে পুরুষ এনেছিল মায়াবৃক্ষের বীজ- একদিন। তার টানে এসেছিল হুটিট্টি পাখি।  ওদের বর্ণান্ধ গানে নগরময় ময়লাআলোর দিন নগরে তখন শীত। পারদের অধঃপতন। ধাতব নদী সাঁতরে নারী পেয়েছিল রহস্যময় নূপুর।…

ব্যর্থতার পোস্টবক্স

ব্যর্থতার পোস্টবক্স
এতো চিঠি এ তো যে নোটিশ অথবা ই-মেইল. . . প্রতিদিন আমি এক ব্যর্থতার পোস্টবক্স,  প্রতিদিন স্বাগত জানাবো বলে  যদিও দরোজা খুলি,  দেখি সাফল্য নামের সেই আরাধ্য অতিথি  অন্য অন্য দরোজায় টোকা দিচ্ছে। সূত্র: পরিবর্তন  আয়নার সামনে দাঁড়াই। কথা হয়।  বলে, বস্তুবাদের বিজয়বার্তা নিয়ে  ভাববাদীদের কাছে গৃহাভি-মুখী…

হাসি আমাকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে

হাসি আমাকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে
এখনো কি তুমি রাত জাগো! আমার অপেক্ষায় বসে থেকে। আমার জানতে ইচ্ছে করে!  রাতের আঁধারে তুমি কি আজও, আমার অপেক্ষায় বসে থাকো। আচ্ছা আমাদের কি , কথা বলার শব্দ শেষ হয়ে গিয়েছিলো! যদি শেষ না হয়! তাহলে কেন তোমার শব্দ শুনতে পাই না। এমন ভাবে যদি চলে যাবে! কেনই বা তাহলে এত করে বলেছিলে। ভালোবাসি, ভালোবাসি তোমার চোখ, ভালোবাসি,…

ভালোবাসা অথবা বিচ্ছেদের গল্প

ভালোবাসা অথবা বিচ্ছেদের গল্প
আমার ঘরে ফেরার কোনো তাড়া নেই, সেখানে আমার অপেক্ষায় নেই কেউ। সবাই অপেক্ষা করে জীবিতদের জন্য, মৃতদের জন্য কেউ অপেক্ষা করে না। তবে এই আমি বেঁচে থেকেও কি মৃত! আকাশকে যেমন যায় না কখনও চেনা, তেমনি চিনতে পারি না তোমাকে আমি। আকাশের মতো ক্ষণে ক্ষণে আপনমনে, কত না রঙ বদলাও গরবিনী তুমি! সূত্র:  ইনকিলাব

 1 2 3 >  শেষ ›
Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে