Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শনিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ , ১০ ফাল্গুন ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.9/5 (8 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ১০-১৫-২০১২

এসিডি সম্মেলনে যোগ দিতে কুয়েত গেলেন রাষ্ট্রপতি


	এসিডি সম্মেলনে যোগ দিতে কুয়েত গেলেন রাষ্ট্রপতি

ঢাকা, ১৫ অক্টোবর: রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমান কুয়েতের আমিরের আমন্ত্রণে এশিয়া সহযোগিতা সংলাপের (এসিডি) প্রথম শীর্ষ সম্মেলনে যোগ দিতে চার দিনের এক সরকারি সফরে সোমবার কুয়েত গেছেন।
কুয়েতের আমির শেখ সাবাহ আল-আহমাদ আল-জাবের আল-সাবাহ’র পাঠানো একটি বিশেষ বিমানে রাষ্ট্রপতি সোমবার সকাল সাড়ে নয়টায় হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর ত্যাগ করেন।
পূর্ব ও পশ্চিম এশিয়ার ৩২টি দেশ নিয়ে গঠিত এসিডি’র লক্ষ্য এশিয়ার সব দেশকে অন্তর্ভুক্ত করা। কুয়েতের আমিরের আমন্ত্রণে এসিডি’র সদস্যভুক্ত দেশের সরকার ও রাষ্ট্র প্রধানরা আগামী মঙ্গল ও বুধবার অনুষ্ঠেয় দুই দিনব্যাপী এ শীর্ষ সম্মেলনে অংশ নেবেন।
কুয়েতের আমির কুয়েত আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে আমিরি টার্মিনালে রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমানকে স্বাগত জানাবেন বলে আশা করা হচ্ছে।


রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমান শীর্ষ সম্মেলনের উদ্বোধনী ও সমাপনী অধিবেশনে যোগ দেবেন এবং সম্মেলনের প্রথম দিনে বক্তৃতা করবেন।


এ সফরকালে তিনি কুয়েতের আমিরসহ বিভিন্ন রাষ্ট্রের প্রধানদের সঙ্গে বৈঠক করবেন।


রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমান মঙ্গলবার বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্র ও সরকার প্রধানদের সম্মানে কুয়েতের আমিরের দেয়া নৈশভোজে যোগ দেবেন।


রাষ্ট্রপতি বুধবার কুয়েতে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে কর্মরত বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর কন্টিনজেন্ট পরিদর্শন করবেন।


রাষ্ট্রপতি একই দিনে কুয়েতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত সৈয়দ শাহেদ রেজার দেয়া এক নৈশভোজে যোগ দেবেন।


তিনি বৃহস্পতিবার কুয়েতের আমিরের পাঠানো বিশেষ ফ্লাইটেই দেশে ফিরবেন বলে আশা করা হচ্ছে।


বঙ্গভবনের সংশ্লিষ্ট সচিব ও পদস্থ কর্মকর্তারা রাষ্ট্রপতির সফরসঙ্গী হয়েছেন।


রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমান কুয়েতের স্বাধীনতার ৫০তম বার্ষিকী এবং ইরাকের দখলদারিত্ব থেকে মুক্তির ২০তম বার্ষিকী উপলক্ষে কুয়েতের আমিরের আমন্ত্রণে গত বছর কুয়েত সফর করেন।
এশিয়া সহযোগিতা সংলাপ ২০০২ সালের জুন মাসে থাইল্যান্ডে যাত্রা শুরু করেছিল। সেখানে ১৮টি এশীয় দেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রীরা প্রথমবার সমবেত হয়েছিলেন।


প্রথমবার অনুষ্ঠিত ঐতিহাসিক ও সফল অনুষ্ঠানে এশিয়ার দেশগুলো সমবেত হয়েছিল এমন একটি স্থানে যেখানে তারা অভিন্ন স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয়গুলো নিয়ে স্বাধীনভাবে আলোচনা করতে পারে।

 
প্রথম সম্মেলনের পর এসিডি মন্ত্রীবর্গ থাইল্যান্ডে ২০০৩ সালে, চীনে ২০০৪ সালে, পাকিস্তানে ২০০৫ সালে, কাতারে ২০০৬ সালে, দক্ষিণ কোরিয়ায় ২০০৭ সালে, কাজাখস্তানে ২০০৮ সালে, শ্রীলঙ্কায় ২০০৯ সালে, ইরানে ২০১০ সালে এবং কুয়েতে ২০১১ সালে মোট নয়বার বার্ষিক বৈঠকে মিলিত হয়েছেন।

 
এসিডি দেশগুলো হচ্ছে- আফগানিস্তান, বাহরাইন, বাংলাদেশ, ব্রুনাই, ভুটান, কম্বোডিয়া, চীন, ভারত, ইন্দোনেশিয়া, ইরান, জাপান, কাজাখস্তান, দক্ষিণ কোরিয়া, কুয়েত, কিরগিজস্তান, লাও পিডিআর, মালয়েশিয়া, পাকিস্তান, ফিলিপাইন, ওমান, কাতার, রাশিয়া, সৌদি আরব, সিঙ্গাপুর, শ্রীলঙ্কা, তাজিকিস্তান, থাইল্যান্ড, সংযুক্ত আরব আমিরাত, উজবেকিস্তান এবং ভিয়েতনাম। সূত্র: বাসস

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে