Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শুক্রবার, ১৯ জুলাই, ২০১৯ , ৪ শ্রাবণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (45 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০২-১৩-২০১৭

সেলফিহীন বসন্তও যেন বেমানান!

সেলফিহীন বসন্তও যেন বেমানান!

লক্ষ্মীপুর, ১৩ ফেব্রুয়ারি- আজ বাতাসে আবীরের গন্ধ। আকাশের রঙ আজ নীল নয়, আজ সেখানেও রঙধনুর ছোঁয়া। রঙের উৎসবে মেতেছে সবাই। লাল-নীল-হলুদ-সবুজ রঙে রঙিন প্রত্যেকটি মুখ। মুখ দেখে আজ আর কাউকে চেনার উপায় নেই। 

আর এই রঙে সবচেয়ে বেশি মাতোয়ারা খুদেরা। রাস্তার ধারে রঙ বেলুন আর স্প্রে নিয়ে প্রস্তুত খুদে-বাহিনী। বাতাসে বইছে প্রেম, নয়নে লাগিলো নেশা। কারা যেন ডাকিছে পিছে, বসন্ত এসে গেছে, বসন্ত এসে গেছে। 

শীতের পালা শেষ হয়ে ঋতুরাজ বসন্তের আগমনে ফুলে ফুলে সেজেছে প্রকৃতি। আর মৌমাছি ও পাখিরা এসব ফুল থেকে মধু সংগ্রহ করতে শুরু করেছে। 


সেই সঙ্গে সেলফি ওঠাতে ব্যস্ত দেখা যায় অনেক তরুণীকে। বসন্ত উৎসব স্মৃতির অ্যালবামে ধরে রাখতে অবিরাম চলতে থাকে তাদের মোবাইলগুলো। সবমিলিয়ে সেলফিতে বসন্ত উৎসবে মাতোয়ারা তরুণীরা

এমন বর্ণিল আয়োজনের মধ্য দিয়ে সোমবার ঋতুরাজ বসন্তকে বরণ করে নিয়েছে লক্ষ্মীপুর সরকারি কলেজের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরাসহ বিভিন্ন পেশার মানুষ। 

এই উৎসবে আপন মনে সেজেছে কলেজ শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা। তরুণীদের দেখা গেছে মাথা নানা রঙের ফুল আর বাসন্তী রঙের শাড়িতে। অন্যদিকে বাসন্তি পাঞ্জাবি আর মাথায় গামছা বেঁধে দিনটি উদযাপিত করেছে তরুণরা। এ সময় কলেজ ক্যাম্পাস এলাকা মুখরিত হয়ে উঠে আনন্দ-উৎসবে। 


ঋতুরাজ বসন্তের আগমনে কলেজ প্রাঙ্গণে দিনব্যাপী সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অধ্যক্ষ অধ্যাপক মাইন উদ্দিন পাঠানের সভাপতিত্বে এতে উপস্থিত ছিলেন, জেলা প্রশাসক মো. জিল্লুর রহমান চৌধুরী, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) শেখ মুর্শিদুল ইসলাম, লক্ষ্মীপুর সরকারি কলেজের সহযোগী অধ্যাপক সাইফুল ইসলাম ভূঁইয়া তপন, সহযোগী অধ্যাপক মুহাম্মদ মাহবুবে এলাহি, জেলা তথ্য কর্মকর্তা আবদুল্লাহ আল মামুন। 

এ সময় উপস্থিত ছিলেন,জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি চৌধুরী মাহমুদুন্নবী সোহেল, সাধারণ সম্পাদক রাকিব হোসেন লোটাস, লক্ষ্মীপুর সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের আহ্বায়ক রাফসান জানি বাপ্পী, যুগ্ম-আহ্বায়ক সাইফুল ইসলাম রকি, মনোয়ার হোসেন জিহাদ, রিয়াদ হোসেন রিফাত, রেজাউল করিম নিশান ও সদর উপজেলা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক ইবনে জিসাদ আল নাহিয়ান প্রমুখ। 

বিভিন্ন শিল্পীর কণ্ঠে নানা ধরনের গান, নৃত্যর তালে আর বাদ্যযন্ত্রের ঝংকারে মুখরিত হয়ে উঠেছে পুরো ক্যাম্পাস। দিনব্যাপী উৎসবে কলেজ শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা বসন্তকথন, রবীন্দ্র সংগীত, নাটক, কবিতা আর নৃত্য পরিবেশন করে। যা দর্শনার্থীদের উচ্ছ্বাসিত করে। 

আর/১০:১৪/১৩ ফেব্রুয়ারি

লক্ষীপুর

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে