Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, রবিবার, ১৯ জানুয়ারি, ২০২০ , ৬ মাঘ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.6/5 (37 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৯-২০-২০১২

যুদ্ধাপরাধীদের বিচার শুরু হয়েছে, শেষও হবে


	যুদ্ধাপরাধীদের বিচার শুরু হয়েছে, শেষও হবে

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘যুদ্ধাপরাধীদের বিচার শুরু হয়েছে, শেষও করা হবে। দেশ স্বাধীন হওয়ার পর জাতির জনক এ বিচার শুরু করেছিলেন। কিন্তু ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির পিতাকে সপরিবারের হত্যা করা হলো, জাতীয় চার নেতাকে কারাগারে হত্যা করা হলো। এরপর যাঁরা ক্ষমতায় এসেছেন, তাঁরা যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করেন নাই। যুদ্ধাপরাধীদের মধ্যে যারা কারাগারে বন্দী ছিল, তাদের ছেড়ে দিয়ে ক্ষমতায় বসিয়েছিল। নির্বাচনের আগে ওয়াদা করেছিলাম, ক্ষমতায় গেলে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করা হবে। আপনাদের ভোটে মহাজোট সরকার গঠিত হয়েছে। যুদ্ধাপরাধীদের বিচার শুরু হয়েছে; এ দেশের মাটিতেই যুদ্ধাপরাধীদের বিচার শেষ করা হবে, ইনশাআল্লাহ।’
আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে লালমনিরহাট জেলা আওয়ামী লীগের জনসভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এসব কথা বলেন।
শেখ হাসিনা বলেন, ‘দেশে গণতন্ত্র চালু রয়েছে। সংসদে পঞ্চদশ সংশোধনী পাস হয়েছে। কাউকে সাংবিধানিক অধিকার কেড়ে নিতে দেওয়া হবে না। কাউকে জনগণের ভাগ্য নিয়ে আর ছিনিমিনি খেলতে দেওয়া হবে না। বাংলাদেশ দক্ষিণ এশিয়ায় শান্তিপূর্ণ দেশ হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছে। এই সরকার জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদ কঠোর হস্তে দমন করেছে। এ দেশে আর কখনো বাংলা ভাই বা জেএমবি মাথা চাড়া দিতে পারবে না।’
প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিগত বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের আমলে লালমনিরহাটে জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সামছুল ইসলাম ও জেলা ছাত্রলীগের নেতা আশরাফুল আলম সোহেল সন্ত্রাসীদের হাতে খুন হন।
আজ দুপুরে প্রধানমন্ত্রী লালমনিরহাট-কুড়িগ্রাম জেলার প্রবেশদ্বার হিসেবে খ্যাত তিস্তা সড়কসেতুর উদ্বোধন করেন। বিকেলে জেলা কালেক্টরেট মাঠে আয়োজিত জনসভায় প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, এই সরকারের আমলে দেশে শিশু ও মাতৃমৃত্যুর হার কমেছে; বেড়েছে খাদ্য উত্পাদন ও বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকাণ্ড। এই সরকার কৃষি ও কৃষকবান্ধব, তাই মাত্র ১০ টাকা দিয়ে কৃষকেরা ব্যাংকে হিসাব খুলে ভর্তুকির টাকা সরাসরি তুলতে পারছেন। তিনি বলেন, যাঁদের সামান্য ভূমি আছে, কিন্তু বাড়ি করার টাকা নেই, তাদের এনজিওর মাধ্যমে সহজ শর্তে বাড়ি করতে ঋণ দেওয়া হচ্ছে। ভূমিহীনদের মধ্যে খাসজমি বিতরণসহ খরা ও মঙ্গা মোকাবিলায় গবেষণার মাধ্যমে উন্নত জাতের ধানের আবাদ শুরু করা হয়েছে। এসবের মাধ্যমে বৃহত্তর রংপুরের মঙ্গা দূর করা সম্ভব হয়েছে বলে প্রধানমন্ত্রী জানান।
প্রধানমন্ত্রী আজ লালমনিরহাট জেলা কালেক্টরেট মাঠ থেকে একযোগে ডিজিটাল পদ্ধতিতে বুড়িমারী-লালমনিরহাট রেললাইন এবং নির্মাণাধীন লালমনিরহাট ডায়াবেটিক বহুতল হাসপাতাল ভবনের উদ্বোধনী ফলক উন্মোচন করেন। তিনি একই স্থান থেকে কাকিনা-মহীপুর দ্বিতীয় তিস্তা সড়কসেতু, লালমনিরহাট-কুলাঘাট-ফুলবাড়ী-কুড়িগ্রাম মহাসড়কে দ্বিতীয় ধরলা সেতু এবং লালমনিরহাট সদর হাসপাতালসংলগ্ন নার্সিং ইনস্টিটিউটের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন।
প্রধানমন্ত্রী জনসভায় বলেন, এই সরকারের আমলে রংপুর বিভাগ ও সিটি করপোরেশন ঘোষণা এবং বৃহত্তর রংপুর অঞ্চলের লালমনিরহাটসহ অন্যান্য জেলায় ব্যাপক উন্নয়ন কর্মকাণ্ড হয়েছে।
লালমনিরহাট জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মোতাহার হোসেনের সভাপতিত্বে জনসভায় আরও বক্তব্য দেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদ, বাণিজ্যমন্ত্রী জি এম কাদের, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব উল আলম হানিফ, সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদ প্রশাসক মতিয়ার রহমান প্রমুখ।
অনুষ্ঠানের মঞ্চে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মহীউদ্দীন খান আলমগীর, রেলমন্ত্রী মো. মজিবুল হক, স্বাস্থ্যমন্ত্রী আ ফ ম রুহুল হক, স্থানীয় সরকার প্রতিমন্ত্রী জাহাঙ্গীর কবির নানকসহ বৃহত্তর রংপুর অঞ্চলের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে