Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০ , ১৪ আশ্বিন ১৪২৭

গড় রেটিং: 3.5/5 (20 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ১০-২৩-২০১৬

কে আমির, তামিম না আবু ইব্রাহিম?

জামাল উদ্দিন ও নুরুজ্জামান লাবু


কে আমির, তামিম না আবু ইব্রাহিম?

ঢাকা, ২৩ অক্টোবর- নব্য জেএমবির আমির কে? সোহেল মাহফুজ নাকি সারোয়ার জাহান ওরফে আব্দুর রহমান ওরফে আবু ইব্রাহিমম আল হানিফ? পুলিশ বলছে, তামিম আহমেদ চৌধুরী নিহত হওয়ার পর নব্য জেএমবির দায়িত্ব নিয়েছে সোহেল মাহফুজ। র‌্যাবের দাবি, নব্য জেএমবির আমির হচ্ছে সারোয়ার জাহান ওরফে আব্দুর রহমান ওরফে আবু ইব্রাহিম আল হানিফ। তবে এ নিয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরাই রয়েছেন দ্বিধায়। আশুলিয়ায় র‌্যাবের অভিযানে এরইমধ্যে নিহত হয়েছে নব্য জেএমবির এই আমির। সোহেল মাহফুজ পলাতক রয়েছে। সে দেশের বাইরে ভারতে অবস্থান করছে বলে গোয়েন্দাদের কাছে তথ্য রয়েছে। নব্য জেএমবির আধ্যাত্মিক গুরু হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন শায়খ মাওলানা আবুল কাশেম। এই আধ্যাত্মিক গুরু এখনও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ধরাছোঁয়ার বাইরে রয়েছেন।

গুলশান হামলাসহ সাম্প্রতিক ২২ হামলার নেতৃত্ব আবু ইব্রাহিম আল হানিফ দিয়েছিল বলে দাবি করেছে র‌্যাব। নব্য জেএমবি’র এই আমিরের পরিচয় প্রথমে র‌্যাব যা পেয়েছিল, পরে দেখা যায় তা ছিল ভূয়া। তার প্রকৃত নাম হচ্ছে সারোয়ার জাহান। গ্রামের বাড়ি চাঁপাইনবাবগঞ্জের ভোলাহাটের থুমরিভোজা গ্রামে। তার বাবার নাম আব্দুল মান্নান ও মায়ের নাম ছালেহা খাতুন। আশুলিয়ার বাসা থেকে উদ্ধার হওয়া আলামত ও তথ্য-উপাত্তে থেকে র‌্যাব জানতে পারে সারোয়ার জাহানই আবু ইব্রাহিম আল হানিফ।

মধ্যপ্রাচ্য ভিত্তিক আন্তর্জাতিক জঙ্গি সংগঠন আইএস-এর কথিত মুখপত্র ‘দাবিক’-এর ১৪তম সংখ্যায় চলতি বছরের ১৩ এপ্রিল যার সাক্ষাৎকার ছাপা হয়েছিল। সেখানে তাকে আইএস-এর বাংলাদেশ প্রধান হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছিল। পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের কর্মকর্তারাও মনে করছেন, আবু ইব্রাহিম আল হানিফ নামে তারা যাকে খুঁজছিলেন, আশুলিয়ায় র‌্যাবের অভিযানে নিহত সারোয়ার জাহান ওরফে আবদুর রহমানই সেই ব্যক্তি। তবে সেই নব্য জেএমবি’র আমির হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছিল কিনা, সে ব্যাপারে তারা নিশ্চিত নন।

র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ শুক্রবার এক সংবাদ সম্মেলনে জানান, ‘২০০৩ সালে এই সারোয়ার জাহান জয়পুরহাটের ক্ষেতলালে মনতেজারের বাড়িতে পুলিশের সঙ্গে সশস্ত্র সংঘর্ষে লিপ্ত হয়েছিল। ওই সময় গ্রেফতার হয়ে ৯ মাস চারদিন কারাভোগের পর জামিনে বেরিয়ে এসে আত্মগোপনে চলে যায়। এরপর থেকেই বিগত ১৩ বছর ধরে সে জঙ্গি কর্মকাণ্ড চালিয়ে আসছিল। তবে সে জেএমবি’র সঙ্গে যুক্ত হয়েছিল ১৯৯৮ সালে। ইংরেজি, আরবি ও উর্দু ভাষায় দক্ষ ছিল সে। সবশেষে সে নব্য জেএমবি গঠন করে এবং আবু ইব্রাহীম আল হানিফ নামে এই সংগঠনের আমির হিসেবে আত্মপ্রকাশ করে। তার আস্তানা থেকে উদ্ধার হওয়া একটি কাগজে দেখা যায়, তামিম আহমেদ চৌধুরী ওরফে শায়খ আবু দুজানাও তাকে আমির হিসেবে স্বীকৃতি দিয়ে স্বাক্ষর করেছিল।

অন্যদিকে, কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের কর্মকর্তারা জানান, নব্য ও পুরনো নামে জেএমবিতে এখন দু’টি গ্রুপ সক্রিয় রয়েছে। তবে এ দু’টি গ্রুপের বর্তমান নেতৃত্বে যারা রয়েছেন তাদের কেউই বাংলাদেশে নেই। তারা দু’জনই ভারতে অবস্থান করছে বলে তাদের কাছে তথ্য রয়েছে। সেখানে থেকেই তারা তাদের অনুসারীদের দিক নির্দেশনা দিয়ে আসছে। পুরনো জেএমবি’র নেতৃত্ব দিচ্ছে সালাউদ্দিন ওরফে সালেহীন। তামিম চৌধুরী নিহত হওয়ার পর নব্য জেএমবি’র নেতৃত্ব দিচ্ছে সোহেল মাহফুজ।

২০১৪ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারি কাশিমপুর কারাগার থেকে ময়মনসিংহ আদালতে নেওয়ার পথে গুলি ও বোমা হামলা চালিয়ে সালাউদ্দিন ওরফে সালেহীন, জাহিদুল ইসলাম ওরফে বোমারু মিজান ও রাকিবুল হাসান ওরফে হাফেজ মাহমুদকে ছিনিয়ে নেয় জঙ্গিরা। পরদিন টাঙ্গাইলে হাফেজ মাহমুদ পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে মারা গেলেও সোহেল মাহফুজ ও বোমারু মিজান পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। একসময়ের জেএমবির শুরাসদস্য সালাউদ্দিন ওরফে সালেহীন বর্তমানে আমিরের দায়িত্ব পালন করছে বলে মনে করেন কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের কর্মকর্তারা। গুলশান হামলায় ব্যবহৃত অস্ত্র ও গ্রেনেড দু’টোই সোহেল মাহফুজ সরবরাহ করা হয়েছিল বলে তথ্য পান গোয়েন্দারা।

কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জের পাইকপাড়ায় তামিম চৌধুরী নিহত হওয়ার পর পলাতক থাকা জঙ্গি নেতা সোহেল মাহফুজ এখন নব্য জেএমবি’র নেতৃত্ব দিচ্ছে তথ্য রয়েছে।’ তিনি বলেন, ‘জঙ্গি সংগঠনগুলোকে পুরোপুরি ধ্বংস করতে না পারলেও হামলা করার মতো তাদের এখন আর সামর্থ্য নেই। সদস্য, অস্ত্র ও বিস্ফোরক সবকিছুই নতুন করে সংগ্রহের পর তাদের নতুন চিন্তা করতে হবে।’

আর/১২:১৪/২৩ অক্টোবর

অপরাধ

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে