Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বৃহস্পতিবার, ২১ নভেম্বর, ২০১৯ , ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ১০-১৩-২০১৬

সার্জিক্যাল স্ট্রাইক নিয়ে ভারতে নির্লজ্জ রাজনীতি!

সার্জিক্যাল স্ট্রাইক নিয়ে ভারতে নির্লজ্জ রাজনীতি!

নয়াদিল্লি, ১৩ অক্টোবর- পাকিস্তানের মাটিতে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক নিয়ে উপমহাদেশ ব্যাপকভাবে উত্তপ্ত। ভারত দাবি করেছে, তারা পাকিস্তানে ঢুকে 'জঙ্গিদের' বিরুদ্ধে সফল সার্জিক্যাল স্ট্রাইক চালিয়েছে। কিন্তু পাকিস্তান তা অস্বীকার করে চলেছে। কিন্তু এই আক্রমণ নিয়ে ভারতে কিছু দিন ধরেই চলছিল বিতর্ক। এই বিতর্কে এবার নতুন মাত্রার যোগ করলেন ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী মনোহর পরিকর। ভারতের বিদায়ী কংগ্রেস সরকারও কয়েকবার এ ধরনের হামলা চালিয়েছিল বলে দাবি করেছিল। কিন্তু পরিকর তা প্রত্যাখ্যান করেন।

কংগ্রেসের তথা ইউপিএ আমলে সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের দাবি অস্বীকার করায় প্রতিরক্ষামন্ত্রীকে তোপ দেগে তার বিরুদ্ধে ‘নগ্ন রাজনীতি’ করার অভিযোগ তুলল কংগ্রেস। দলের প্রধান মুখপাত্র রণদীপ সুরজেওয়ালা তাকে প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়েছেন, শ্রী পর্রিকর, ভারতীয় সেনাবাহিনীকে কেন তার প্রাপ্য কৃতিত্ব দিচ্ছেন না? কেন মানুষকে বিভ্রান্ত করছেন, আগের সার্জিক্যাল স্ট্রাইক অস্বীকার করে কেন সেনাবাহিনীর ভূমিকাকে লঘু করে দেখাচ্ছেন?

সুরজেওয়ালা বলেছেন, ২০১১ সালে পুরোদমে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক চালানো হয়েছিল ‘অপারেশন জিঞ্জার’ নামে। কেন সেনার সেই সাহসী অভিযান নিয়ে চুপ মনোহর পর্রিকর? এটা খোলাখুলি, নির্লজ্জ রাজনীতি করা নয়! তার প্রশ্ন, সাম্প্রতিক সেনা অভিযানের জন্য সেনাবাহিনীকে যদি পূর্ণ কৃতিত্বই দেয়া হয়, তাহলে কেন ‘উরির প্রত্যাঘাতকারী’ পোস্টারে মোদিজীকে ভগবান রাম বলে সাজিয়ে সেগুলি ভোটমুখী রাজ্যে ছড়ানো হচ্ছে?

দফায় দফায় ট্যুইটের মাধ্যমে পর্রিকরকে আক্রমণ করে সুরজেওয়ালা বলেন, চরম রাজনৈতিক দ্বিচারিতা। সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের পর মোদী সরকার ‘যুদ্ধের ময়দানে আঘাতে’র জেরে অক্ষম হয়ে পড়াদের পেনসন অর্ধেক করে দিয়েছে। কটাক্ষের সুরে তাঁর প্রশ্ন, মোদী সরকার কি এক পদ, এক পেনশন, সপ্তম বেতন কমিশনের সুপারিশগুলি অগ্রাহ্য করে, সেনা জওয়ানদের দেয়া আগের প্রতিশ্রুতি ভুলে গিয়ে তাদের পুরস্কার দিচ্ছে!

সুরজেওয়ালা দাবি করেন, আরএসএস, বিজেপি প্রধান অমিত শাহও প্রকাশ্যেই জানিয়ে দিয়েছেন, সার্জিক্যাল স্ট্রাইক তাদের প্রধান রাজনৈতিক কৌশল হবে।

সুরজেওয়ালা এও বলেন, প্রতিরক্ষামন্ত্রী সেনাকে সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের জন্য সেনাকে বাহবা দিচ্ছেন বটে, কিন্তু এতে বিস্ময়ের কিছুই নেই যে, আমাদের বীর সেনা জওয়ানদের পরিবর্তে তিনি সংবর্ধনা পেলেন আগ্রা, লখনউ, গোয়ায়।

পর্রিকর বুধবার দুটি পৃথক অনুষ্ঠানে সাম্প্রতিক সার্জিক্যাল স্ট্রাইক সম্পর্কে সংশয় প্রকাশ করে তার প্রমাণ দাবি করা বিরোধীদেরও সমালোচনা করেন তিনি। বিরোধী শিবিরের বেশ কিছু নেতা ও দল সেনাবাহিনীর নিয়ন্ত্রণ রেখা টপকে পাকিস্তান শাসিত কাশ্মীরে সন্ত্রাসবাদী ঘাঁটিগুলিতে অভিযানের ইস্যুতে নরেন্দ্র মোদি সরকারকে সমর্থন করেও তার ভিডিও জনসমক্ষে প্রকাশের দাবি তুলেছেন। ইউপিএ আমলেও একই ধরনের সামরিক অপারেশন হয়েছিল, তাদের দাবি। কিন্তু এমন দাবি ভুল বলে পাল্টা সওয়াল করেছেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী।

তিনি বলেছেন, দু বছর ধরে প্রতিরক্ষামন্ত্রী আমি। আমি যতদূর জানি, আগের বছরগুলিতে কোনো সার্জিক্যাল স্ট্রাইকই হয়নি। ওঁরা যা বলছেন, সেটা সীমান্তের অ্যাকশন টিমের অভিযান। সারা দুনিয়াতেই এমন অভিযান স্বাভাবিক। ভারতীয় সেনাও করে থাকে। তিনি ব্যাখ্যা দেন, এ ধরনের অভিযান চালানো হয় সরকারি সবুজ সংকেত বা আগাম সরকারি অনুমতি ছাড়াই। স্থানীয় কমান্ডার এমন অভিযান চালান। রিপোর্টও জমা পড়ে। কিন্তু এবার যেটা হয়েছে, তা আগের সব অভিযান থেকে ভিন্ন। এবারেরটা সার্জিক্যাল স্ট্রাইক, কেননা আগে থেকে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছিল। এই অভিযান থেকে সরকার ও দেশের উদ্দেশ্য স্পষ্ট ফুটে উঠেছে।

পর্রিকর এও বলেন, সরকার সার্জিক্যাল স্ট্রাইক থেকে রাজনৈতিক ফায়দা নিতে চাইলে ডিরেক্টর জেনারেল অব মিলিটারি অপারেশনস নন, তিনিই এর ঘোষণা করতেন।

সার্জিক্যাল স্ট্রাইক নিয়ে সন্দেহ, সংশয় প্রকাশ করা লোকজনসহ গোটা ভারতের ১২৭ কোটি মানুষ এর কৃতিত্ব দাবি করতে পারেন, কেননা দেশের সশস্ত্র বাহিনী এই অভিযান চালিয়েছে, কোনো রাজনৈতিক দল নয়। তবে একইসঙ্গে তিনি বলেন, এই অপারেশনের সিংহভাগ কৃতিত্বই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, সরকারের। তার এই মন্তব্য ঘিরেও নতুন করে সমালোচনার ঝড় উঠেছে।

এফ/১১:২০/১৩ অক্টোবর

দক্ষিণ এশিয়া

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে