Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বৃহস্পতিবার, ২৩ জানুয়ারি, ২০২০ , ১০ মাঘ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.9/5 (8 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৭-৩১-২০১২

খালাফ হত্যা মামলা দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে

খালাফ হত্যা মামলা দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে
আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়কমন্ত্রী ব্যারিস্টার শফিক আহমেদ বলেছেন, সৌদি দূতাবাস কর্মকর্তা খালাপ মোহাম্মদ আল আলী হত্যাকারীদের বিচার হবে দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে। হত্যাকারীদের বিচার কাজ দ্রুত সম্পন্ন করতে বাংলাদেশ সরকার আন্তরিক। আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে এ ধরনের হত্যাকাণ্ডের বিচার দ্রুত সম্পন্ন করা বর্তমান সরকারের নীতি। সচিবালয়ে বাংলাদেশে নিযুক্ত সৌদি আরবের রাষ্ট্রদূত ড. আবদুল্লাহ বিন নাসের আল বুসাইরি মন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে গেলে তিনি এ কথা বলেন। আইন প্রতিমন্ত্রী এডভোকেট মো. কামরুল ইসলাম এ সময় উপস্থিত ছিলেন।
সাক্ষাৎকালে আইনমন্ত্রী বলেন, খালাফ হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের বিচারের আওতায় আনতে বাংলাদেশ সরকার সব সময় সক্রিয়। এ নৃশংস হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের বাংলাদেশ সরকার কোনভাবেই ছাড় দেবে না। হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের বিচারে কোন দীর্ঘসূত্রতা ঘটবে না বলে তিনি সৌদি সরকারকে আশ্বস্ত করেন। বিচার দ্রুত সম্পন্ন হলে তা দু’দেশের সম্পর্কের অধিকতর উন্নয়নে ভূমিকা রাখবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
রাষ্ট্রদূত খালাফ হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের গ্রেপ্তার করায় বাংলাদেশ সরকারকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, সৌদি জনগণ অপরাধীদের বিচারের দিকে তাকিয়ে আছে। হত্যাকারীদের গ্রেপ্তারে বাংলাদেশের আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ওপর সৌদি সরকারের আস্থা ছিল। তেমনি হত্যাকারীদের বিচারে সৌদি সরকার বাংলাদেশের বিচার বিভাগের ওপর আস্থা রাখে। হত্যাকারীদের বিচার দ্রুত সম্পন্ন করতে আন্তরিকতার জন্য তিনি বাংলাদেশ সরকারের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান।
পরে আইনমন্ত্রী বৈঠক সম্পর্কে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন এবং বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন। আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের জনবল সংক্রান্ত এক প্রশ্নের জবাবে আইনমন্ত্রী বলেন, সরকার সম্প্রতি ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউশন কার্যালয়ের জন্য ৩১ জন জনবলের অনুমোদন দিয়েছে। জনবল নিয়োগের জন্য নিয়োগ বিধিমালাও তৈরি হয়েছে। ট্রাইব্যুনালে বিচার যে গতিতে চলছে তা বজায় থাকলে চলতি বছরের মধ্যে ৫/৭ জনের বিচার সম্পন্ন হয়ে যাবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।
ট্রাইব্যুনালে আসামিদের পক্ষে হাজার হাজার সাক্ষীর তালিকা উপস্থাপন প্রসঙ্গে আইনমন্ত্রী বলেন, হাজার হাজার সাক্ষীর সাক্ষ্য নেয়া হবে কিনা তা ট্রাইব্যুনাল দেখবে। বিচার বিলম্বিত করতে আসামিদের পক্ষে হাজার হাজার সাক্ষীর তালিকা দিলে তা ট্রাইব্যুনাল মানবে বলে মনে হয় না। আইনে বিচার দ্রুত সম্পন্নের কথা বলা আছে। আইনকে সামনে রেখে ট্রাইব্যুনাল এগিয়ে যাচ্ছে। বিনা কারণে কেউ বিচার বাধাগ্রস্ত করতে চাইলে ট্রাইব্যুনাল তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পারবে বলে আইনে উল্লেখ আছে।

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে