Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, রবিবার, ২০ অক্টোবর, ২০১৯ , ৫ কার্তিক ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.7/5 (41 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৪-২২-২০১৬

ছাত্রী উত্ত্যক্তের দায়ে রাবি শিক্ষকের বাধ্যতামূলক অবসর

ছাত্রী উত্ত্যক্তের দায়ে রাবি শিক্ষকের বাধ্যতামূলক অবসর

রাজশাহী, ২২ এপ্রিল- ছাত্রীকে উত্ত্যক্তের দায়ে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাবেক সভাপতি ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূ-তত্ত্ব ও খনিবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক কামরুল হাসান মজুমদারকে বাধ্যতামূলক অবসর পাঠানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবার রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। একই বিভাগের এক ছাত্রীকে যৌন হয়রানির দায়ে তার বিরুদ্ধে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট সদস্য উজ্জ্বল হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য প্রফেসর চৌধুরী সারওয়ার জাহান এই সিদ্ধান্তে নোট অব ডিসেন্ট দিয়েছেন বলে বৈঠক সূত্রে জানা গেছে। তিনি এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানিয়ে বৈঠকে মতামত দেন। তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের যৌন হয়রানি ও নিপীড়ন নিরোধ কমিটির গঠন ও কার্য প্রক্রিয়ায় সমস্যা আছে।

২০১৪ সালের নভেম্বরে ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগে কামরুল হাসান মজুমদারকে বিভাগের পরীক্ষা ও ছাত্রীদের গবেষণাসংক্রান্ত সকল কার্যক্রম থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।

তার আগে একই বছরের অক্টোবরের শেষের দিকে ভূ-তত্ত্ব ও খনিবিদ্যা বিভাগের প্রথমবর্ষের এক ছাত্রী বিভাগের শিক্ষক অধ্যাপক কামরুল হাসান মজুমদারের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির লিখিত অভিযোগ দেন বিশ্ববিদ্যালয়ের যৌন হয়রানি ও নিপীড়ন নিরোধ কমিটির কাছে।

কমিটি সূত্রে জানা গেছে, শিক্ষক কামরুল হাসান মজুমদার মুঠোফোনে ছাত্রীটিকে একাধিকার আপত্তিকর প্রস্তাব দিয়েছেন। তার প্রস্তাবে সম্মত হলে বিভাগে ভালো ফলাফলের নিশ্চয়তাসহ শিক্ষক হওয়ার লোভনীয় সুযোগের ব্যাপারে প্রলুব্ধ করার চেষ্টা করেন ওই শিক্ষক। ওই ছাত্রী তার প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেন।

ছাত্রীটি অভিযোগ করেন, প্রথমদিকে তিনি শিক্ষককে নানাভাবে নিবৃত করার চেষ্টা করেন। কিন্তু দিন দিন শিক্ষকের যৌন হয়রানির মাত্রা আরো বেড়ে যায়। পরে তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের যৌন হয়রানি ও নিপীড়ন নিরোধ কমিটির কাছে লিখিত অভিযোগ দেন।

পরে তদন্ত করে অভিযোগের সত্যতা পাওয়ায় কমিটি বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেটের কাছে ২০১৫ সালের ২৭ এপ্রিল তাকে চাকরিচ্যুত করার সুপারিশ করে। সিন্ডিকেট সুপারিশ গ্রহণ করে একটি সুপারিশ পর্যালোচনা ও বাস্তবায়ন কমিটি গঠন করে। বিশ্ববিদ্যালয়ে কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক সায়েন উদ্দিন আহমদের নেতৃত্বে চার সদস্যবিশিষ্ট এ কমিটি পর্যালোচনা শেষে তাকে বাধ্যতামূলক অবসরের সুপারিশ করলে বৃহস্পতিবার তা পাস হয়।

এফ/১৫:৪৬/২২ এপ্রিল

শিক্ষা

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে