Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, মঙ্গলবার, ২১ জানুয়ারি, ২০২০ , ৮ মাঘ ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.9/5 (36 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ১০-১৩-২০১১

টি-টোয়েন্টি ভুলিয়ে দিচ্ছে ৫৮!

টি-টোয়েন্টি ভুলিয়ে দিচ্ছে ৫৮!
কোনটা মনে রাখবেন? ৫৮-এর লজ্জা নাকি পরশু পাওয়া টি-টোয়েন্টি ম্যাচের জয়? বাংলাদেশ দল থাকতে চায় জয়ের আবহে। অথচ মানুষ কিনা বারবারই মনে করিয়ে দিচ্ছে বিশ্বকাপের তিক্ত স্মৃতির কথা! যেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে বাংলাদেশ দলের ওই একটাই ঘটনা! ২০০৯ সালের সিরিজ জয়, কিংবা পরশুরটিসহ টি-টোয়েন্টিতে ওদের দুবার হারানো কিছুই না। ভালো খেলে তাহলে লাভ কী?
বাংলাদেশ দলের প্রতিনিধি হয়ে কাল সংবাদ সম্মেলনে এসেছিলেন দলের জ্যেষ্ঠতম খেলোয়াড় আবদুর রাজ্জাক। তাঁকে অভিমানী করে তুলল সেই একই প্রসঙ্গ?৫৮-র ঘা কোনোভাবে পিছু তাড়া করবে না তো আজ শুরু এক দিবসী সিরিজে? রাজ্জাক সোজা বলে দিলেন, জয় দিয়ে সিরিজ শুরু করার পরও এসব কথাবার্তা অপ্রাসঙ্গিক, ?আমাদের জয়গুলো মনে হয় সবাই ভুলে গেছে। জেতার কথা কেউ মনে রাখে না। আমরা যত বেশি সেই ম্যাচটা ভুলে যাওয়ার চেষ্টা করি, তত বেশি আমাদের মনে করিয়ে দেওয়া হয়। এটা আসলে ঠিক না। জেতার কথা কারও মনে নেই। কিন্তু ৫৮ রানের কথা সবার মনে আছে।?
ক্রিকেটে ফ্ল্যাশব্যাক খুব বেশি আসে। কিছু হলেই পেছন ফিরে তাকানোর সংস্কৃতি, রেকর্ড ঘাঁটার প্রবণতা খেলারই অংশ এখন। আর ৫৮ বাংলাদেশের ক্রিকেটপ্রেমীদের ওপর এমনই এক আঘাত যে, একটা টি-টোয়েন্টি জয় সান্ত্বনার প্রলেপ হিসেবেও যথেষ্ট নয়, ইটের জবাবে পাটকেল তো নয়ই। খেলাকে খেলা ধরেও ওয়ানডেতে অপমানের প্রতিশোধ ওয়ানডেতেই চায় ক্রিকেটপ্রেমীরা। এমন প্রত্যাশা দলের ওপর চাপ হয়ে বসতে পারে, তবে রাজ্জাক আশাবাদী থাকছেন টি-টোয়েন্টির জয়ের সৌজন্যে, ?জয় দিয়ে সিরিজ শুরু করার একটা ইতিবাচক প্রভাব তো থাকবেই। এদিক থেকে মানসিকভাবে আমরা একটু এগিয়ে আছি। যেকোনো জয়ই সেই দলের জন্য গুরুত্বপূর্ণ।?
দলটাকেও দেখা গেছে জয়োদীপ্ত। শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে প্রচণ্ড গরমেও ঘণ্টা দুয়েকের অনুশীলনে কাউকে ক্লান্ত মনে হলো না। নেট প্র্যাকটিসের পর ফুটবল হলো। তামিম ইকবাল তো এর পরও যথারীতি ছক্কা মারার প্র্যাকটিস করলেন। এত কিছুর পর ফিল্ডিং প্র্যাকটিসেও সবাই প্রাণবন্ত। আগের দিনের জয়ের সুখ অবচেতনেই যেন অনেকটা এগিয়ে দিয়ে গেছে মুশফিকুর রহিমের দলকে। কাল রাতে পুরো দলকে নৈশভোজের নিমন্ত্রণ জানিয়ে আনন্দপ্রবাহে সামান্য ভূমিকা রাখতে চাইলেন দলের নতুন ম্যানেজার জাহিদ রাজ্জাকও। নৈশভোজ অধিনায়কের মেন্যুতে বাড়তি ডিশের জোগান দেবে কি না কে জানে, কাল দুপুরে কিন্তু তিনি বারবারই বলছিলেন মুশফিকের উইনিং শটটার কথা, ?কী ছক্কাটা মারল, তাই না! জীবনে অনেক বড় বড় ব্যাটসম্যানের ব্যাটিং দেখেছি। আমার তো মনে হয় এটা আমার দেখা সেরা শট!?
তবে এ ম্যাচে বাংলাদেশ দল যা ব্যাটিং করেছে, ম্যাচটা টি-টোয়েন্টি বলেই মুশফিকের একটা মাত্র ইনিংসে পার পাওয়া গেছে। সংবাদ সম্মেলনে রাজ্জাকও স্বীকার করে গেছেন, ?আমাদের বোলিং-ফিল্ডিং খুবই ভালো হয়েছে। তবে ব্যাটিংয়ে একটু সমস্যা ছিল। বিশেষ করে মিডল-অর্ডারে অল্প রানে কিছু উইকেট পড়ে গেছে।? ওয়ানডেতে এমন ব্যাটিংকে ক্ষমা করবে না ওয়েস্ট ইন্ডিজ। সত্যিকার অর্থেই একটা ভালো শুরুর দরকার হবে, যার অনেকটাই নির্ভর করছে দুই ওপেনার তামিম ইকবাল আর ইমরুল কায়েসের ওপর। কাল ফিল্ডিং প্র্যাকটিসের আগে ড্রেসিংরুমের সামনে চেয়ার পেতে ইমরুল কায়েসকে হয়তো সেটাই বোঝাচ্ছিলেন কোচ স্টুয়ার্ট ল।
এসব আলোচনা নিশ্চয়ই টিম মিটিংয়েও হয়েছে। আর রাজ্জাকই তো বলেছেন, শুধু হারলেই নয়, টিম মিটিং জিতলেও হয় এবং ম্যাচের সবকিছুই বিশ্লেষণ হয় সেখানে। সেই বিশ্লেষণে প্রতিপক্ষের শক্তিমত্তা-দুর্বলতার বিষয়গুলোও উঠে আসে। তবে জয় দিয়ে সিরিজ শুরুর পর প্রতিপক্ষের চেয়ে নিজেদেরই নিয়েই ভাবনাটা বেশি বাংলাদেশের। সেই ভাবনায় ৫৮-র তিক্ত স্মৃতি মোটেও নেই। আছে কেবল জয়ের অভ্যাস ধরে রাখার প্রতিজ্ঞা।

ফুটবল

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে