Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শনিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ , ১০ ফাল্গুন ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.9/5 (12 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৬-০৪-২০১২

কামারুজ্জামানের বিচার শুরু

কামারুজ্জামানের বিচার শুরু
ঢাকা, ৪ মে- মুক্তিযুদ্ধের সময় হত্যা, গণহত্যার ষড়যন্ত্র, নির্যাতন, দেশত্যাগে বাধ্য করাসহ মানবতাবিরোধী অপরাধের ঘটনায় জামায়াত নেতা মোঃ কামারুজ্জামানের বিরুদ্ধে অভিযোগ (চার্জ) গঠন করেছেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল।  সোমবার বিচারপতি এটিএম ফজলে কবীরের নেতৃত্বে ট্রাইব্যুনাল-২ আসামি কামারুজ্জামানের বিরুদ্ধে সাত ধরনের অভিযোগ আমলে নেন। ১৯৭৩ সালের আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল আইনের ৩(২)এ, ৩(২)সি, ৩(২)জি, ৩(২)এইচ, ৪(১ ও ২) ধারায় তার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়। আগামী ২ জুলাই কামারুজ্জামানের বিরুদ্ধে সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু করার নির্দেশ দেন ট্রাইব্যুনাল। অভিযোগ গঠনের মধ্য দিয়ে কামারুজ্জামানের
বিরুদ্ধে একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধের বিচার আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হলো। এ নিয়ে ৪১ বছর আগে বাংলাদেশে স্বাধীনতা যুদ্ধে সংঘটিত অপরাধের ঘটনা নিয়ে ট্রাইব্যুনালে ছয়জনের বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধ মামলায় অভিযোগ গঠন করা হলো। এর আগে জামায়াত নেতা গোলাম আযম, মতিউর রহমান নিজামী, দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদী, আবদুল কাদের মোল্লা ও বিএনপি নেতা সালাহউদ্দিন কাদের চৌধুরীর বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়।
ট্রাইব্যুনাল-২ এর চেয়ারম্যান বিচারপতি এটিএম ফজলে কবীর সকাল ১০টা ৩৫ মিনিট থেকে সাড়ে ১১টা পর্যন্ত সাতটি অভিযোগ গঠনের আদেশ পড়ে শোনান। ট্রাইব্যুনাল আদেশে বলেছেন, রাষ্ট্রপক্ষ থেকে কামারুজ্জামানের বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিক অভিযোগে যে সব তথ্য-উপাত্ত উপস্থাপন করা হয়েছে তা পরীক্ষা-নিরিক্ষা ও যাচাই-বাছাই করে দেখা গেছে, ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে কামারুজ্জামান বৃহত্তর ময়মনসিংহ জেলায় আলবদরের প্রধান সংগঠক ছিলেন। তার নেতৃত্বে ও সহযোগিতায় আলবদর বাহিনী ও পাকিস্তানি সেনারা ময়মনসিংহ, শেরপুর, জামালপুরসহ বিভিন্ন এলাকায় মানবতাবিরোধী অপরাধ করেছে।
এসব অভিযোগ পড়ে শোনানোর পর ট্রাইব্যুনাল কামারুজ্জামানের কাছে জানতে চান_ আপনি দোষী না নির্দোষ? জবাবে কামারুজ্জামান নিজেকে নির্দোষ দাবি করে বলেন, ১৯৭১ সালে উচ্চ মাধ্যমিক ছাত্রের বিরুদ্ধে মানবতাবিরোধী অপরাধের বিচার করা হচ্ছে, এটা ইতিহাসে নজিরবিহীন। তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ সবই মিথ্যা, ভিত্তিহীন, বিদ্বেষপ্রসূত, কাল্পনিক।
কামারুজ্জামানের বিরুদ্ধে যত অভিযোগ : জামায়াত নেতা কামারুজ্জামানের বিরুদ্ধে সাত ধরনের মানবতাবিরোধী অপরাধের ঘটনায় অভিযোগ গঠন করা হয়েছে। অভিযোগে বলা হয়, শেরপুরের বাসিন্দা কামারুজ্জামান একাত্তরে ময়মনসিংহ জেলায় ইসলামী ছাত্রসংঘের দায়িত্বপ্রাপ্ত সভাপতি ও আলবদরের প্রধান সংগঠক ছিলেন। তার নেতৃত্বে ময়মনসিংহ অঞ্চলে দ্রুত আলবদর বাহিনী গড়ে ওঠে এবং তারা নানা স্থানে ক্যাম্প স্থাপন করে।
একাত্তরের মে মাসের মাঝামাঝিতে শেরপুর কলেজের শিক্ষক সৈয়দ আবদুল হান্নানকে খালি গায়ে, মাথা ন্যাড়া করে চুনকালি মাখিয়ে গলায় জুতার মালা পরিয়ে উলঙ্গ অবস্থায় শেরপুর শহরে ঘোরায় কামারুজ্জামান ও তার সহযোগীরা।
২৯ জুন নালিতাবাড়ীর কালীনগর গ্রামের বদিউজ্জামানকে আলবদর সদস্যরা ঝিনাইগাতীর রামনগর গ্রামের আহমেদ মেম্বারের বাড়ি থেকে ধরে আহমেদনগর সেনা ক্যাম্পে নিয়ে যায়। পরে তাকে হত্যা করে লাশ পানিতে ফেলে দেওয়া হয়।
একাত্তরের ২৩ আগস্ট মাগরিবের নামাজের পর গোলাম মোস্তফা তালুকদারকে ধরে নিয়ে যায় আলবদর বাহিনীর সদস্যরা। আসামি কামারুজ্জামানের নির্দেশে তাকে সুরেন্দ্র মোহন সাহার বাড়িতে বসানো ক্যাম্পে আটক রাখা হয়। পরে আলবদর বাহিনীর সদস্যরা গোলাম মোস্তফা ও আবুল কাশেমকে নদীর ওপর ব্রিজে নিয়ে গুলি করে। গুলিতে গোলাম মোস্তফা নিহত হলেও হাতের আঙুলে গুলি লাগায় নদীতে ঝাঁপ দিয়ে প্রাণে বেঁচে যান আবুল কাশেম।
শেরপুর জেলার নালিতাবাড়ী উপজেলার সোহাগপুর গ্রামে কামারুজ্জামানের নেতৃত্বে তার পরিকল্পনা ও পরামর্শে ১৯৭১ সালের ২৫ জুলাই ১২০ জন মুক্তিকামী নিরীহ মানুষকে হত্যা করা হয় এবং ওই গ্রামের প্রায় ১৭০ জন নারীকে ধর্ষণ ও নির্যাতন করা হয়। সে ঘটনার পর থেকে সোহাগপুর গ্রাম বিধবাপল্লী নামে পরিচিত।
শেরপুরের এক ব্যবসায়ীর বাড়ি দখল করে আলবদরের ক্যাম্প গড়ে তোলা হয়। নভেম্বর মাসে কামারুজ্জামানের নির্দেশে জহুরুল হক মুন্সী নামে এক ব্যক্তিকে ওই ক্যাম্পে নিয়ে চরম নির্যাতন চালানো হয়। রমজান মাসের মাঝামাঝি সময়ে এক সন্ধ্যায় চার-পাঁচজনকে রঘুনাথ বাজারের আলবদর ক্যাম্পে নিয়ে নির্যাতন করার পর থানায় সোপর্দ করা হয়। এরপর লিয়াকতসহ ১১ জনকে কামারুজ্জামানের উপস্থিতিতে ঝিনাইগাতী উপজেলার আহমেদনগর ক্যাম্পে নিয়ে একটি গর্তের পাশে দাঁড় করিয়ে গুলি করে হত্যা করা হয়। একাত্তরে ২৭ রমজানের দিন দুপুরে টেপা মিয়ার বাড়ি ঘেরাও করে আলবদর বাহিনী। এরপর আসামি কামারুজ্জামানের নির্দেশে টেপা মিয়াসহ ৫ জনকে হত্যা করা হয়।

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে