Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ , ৮ আশ্বিন ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.4/5 (22 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৬-০৪-২০১২

বাংলাদেশে ইকো সিস্টেম নিয়ে বহুমাত্রিক গবেষণার প্রয়োজন

বাংলাদেশে ইকো সিস্টেম নিয়ে বহুমাত্রিক গবেষণার প্রয়োজন
সামনে আসছে বিশ্ব পরিবেশ দিবস। এই দিবসকে সামনে রেখে ইতিমধ্যে পরিবেশ অধিদপ্তর ব্যাপক প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে। পাশাপাশি বেসরকারী পর্যায়েও বিভিন্ন সংগঠন কাজ করে যাচ্ছে। রহিম আফরোজ , বাপাসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান বিভিন্ন ধরনের সচেতনতামূলক কাজ করছে। এই কাজগুলোর পাশাপাশি প্রয়োজন গবেষণামূলক কার্যক্রমকে আরো জোরদার করা। ইকোট্যুরিজমের উন্নয়ন ও সমপ্রসারণে বাংলাদেশ পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয় বেশকিছু উদ্যোগ নিয়েছে। ইকোট্যুরিজম সুন্দরবন জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ প্রকল্পের একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। সুন্দরবন বায়োডাইভারসিটি কনজারভেশন প্রকল্পের আওতায় ইকোট্যুরিজমের প্রসারে খুলনাতে একটি তথ্য এবং শিক্ষা কেন্দ্র উপস্থাপন করা হয়েছে। যেখানে সুন্দরবনের ওপর বিভিন্ন আলোকচিত্র প্রদর্শিত হয় এবং এছাড়া ট্যুর অপারেটরদের সম্পর্কে প্রয়োজনীয় তথ্যসহ ভ্রমণ সম্পর্কিত বিভিন্ন পুস্তিকা ও লিফলেট পাওয়া যায়। সুন্দরবনের করমজলে অবস্থিত ম্যানগ্রোভ আরবোরেটাম পর্যটকদের সুন্দরবনের জীববৈচিত্র্য সম্পর্কে ধারণা প্রদান করে থাকে। সুন্দরবন বায়োডাইভারসিটি প্রকল্পের আওতায় ইকোট্যুরিজম প্রসারের লক্ষ্যে কিছু দর্শনীয় স্থানকে নির্বাচন করা হয়েছে। পাশাপাশি গাজীপুরের ভাওয়াল জাতীয় উদ্যান, মধুপুরের জাতীয় উদ্যান, দিনাজপুরের রামসাগর জাতীয় উদ্যান, কক্সবাজারে দুলাহাজরা সাফারি পার্ক, সীতাকু-ে বোটানিক্যাল গার্ডেন ও ইকোপার্ক এবং ঢাকার জাতীয় উদ্ভিদ উদ্যান ও বলধা গার্ডেনে ইকোট্যুরিজম উন্নয়ন ও সমপ্রসারণ করা হয়েছে। ইকোট্যুরিজম বিষয়ে মুখ্যসচিবের নেতৃত্বে গঠিত কমিটির সভায় গৃহীত সিদ্ধান্তগুলো বাস্তবায়নে সচিব-পরিবেশ ও মন্ত্রণালয় এবং সচিব-বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের যৌথ আহবায়কত্বে একটি সাব কমিটি কাজ করে যাচ্ছে। বিশ্ব উষ্ণায়নে বাংলাদেশের ভূমিকা নগণ্য হলেও এর প্রভাবে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হবে বাংলাদেশ। এ সমস্যা থেকে স্বল্পমেয়াদে পরিত্রাণের উপায় হচ্ছে অভিযোজন বা খাপ খাওয়ানো কার্যক্রম গ্রহণ। পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবেলায় বিভিন্ন ধরনের অভিযোজন কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে। আবহাওয়া পরিবর্তন এবং বিশ্ব উষ্ণায়নের কারণে বাংলাদেশের পরিবেশের যে আশঙ্কাজনক পরিস্থিতি তা মোকাবেলায় গবেষক ও বিজ্ঞান প্রযুক্তিবিদদের সহায়তায় পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয় বেশকিছু উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। এছাড়াও পানি দূষণ নিয়ন্ত্রণ, বায়ু দূষণ প্রশমন, বর্জ্য ব্যবস্থাপনা নিশ্চিত করা, বনভূমি ও জলাধার সংরক্ষণ, নদীভাঙন রোধ, জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ, ওজোন স্তর সংরক্ষণসহ বেশ উল্লেখযোগ্য সেবামূলক ও গবেষণামূলক বৈজ্ঞানিক কার্যক্রম পরিচালনা করছে পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয়।

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে