Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বুধবার, ১৯ জুন, ২০১৯ , ৪ আষাঢ় ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (10 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)


আপডেট : ০৩-০৪-২০১৬

আওয়ামী লীগের পাশে আছি: বিজেপি

আওয়ামী লীগের পাশে আছি: বিজেপি

ঢাকা, ০৪ মার্চ- বাংলাদেশে গণতান্ত্রিক ধারা সমুন্নত রাখতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকারের প্রশংসা করে ভারতীয় জনতা পার্টির সাধারণ সম্পাদক রাম মাধব বলেছেন, আওয়ামী লীগের প্রতি সমর্থন অক্ষুণ্ন রাখার বিষয়ে তারা আন্তরিক।

প্রথমবারের মতো ঢাকা সফরে এসে শুক্রবার এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

রাম মাধব বলেন, বাংলাদেশে গণতন্ত্র সমুন্নত রাখতে শেখ হাসিনা নেতৃত্বধীন আওয়ামী লীগ সরকারের প্রতি তার দেশের সমর্থন অব্যাহত রাখতে তারা আন্তরিক।

গত বছরের শুরুর দিকে বিএনপির রাজনৈতিক আন্দোলনের দিকে ইঙ্গিত করে ভারতীয় এই নেতা ‘গণতন্ত্রের নামে ধর্মঘট ও সহিংসতার’ সমালোচনা করেন।

তিনি বলেন, “গণতন্ত্রের সুরক্ষার জন্য তিনি কী চ্যালেঞ্জের মধ্য দিয়ে গেছেন তা বেশ অনুমেয়। যেভাবে তিনি ওই অবস্থা থেকে উত্তরণ ঘটিয়ে গণতন্ত্রের সুরক্ষা করেছেন তা প্রশংসার দাবিদার।”

ফ্রেন্ডস অব বাংলাদেশ ও বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আয়োজনে ‘ভারত-বাংলাদেশ সংলাপে’ বলছিলেন মাধব, যিনি বিজেপি ঘরানার গবেষণা সংস্থা ইন্ডিয়া ফাউন্ডেশনের একজন পরিচালক।

গতবছর ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরের আগে সর্বশেষ ভারত-বাংলাদেশ সংলাপের আয়োজন করা হয়েছিল। মোদির ওই সফর শেষে যৌথ ঘোষণায় এসেছিল দুই দেশের সম্পর্কে নতুন সূচনার প্রতিশ্রুতি।

ভারতের সাবেক কূটনীতিক, রাজনৈতিক নেতা, সাংবাদিক ও অধিকার কর্মীদের একটি দল এই সফরে মাধবের সঙ্গে এসেছে।

বক্তব্যে ভারত-বাংলাদেশের সম্পর্কের নানাদিক নিয়ে কথা বলেন এই বিজেপি নেতা; জানিয়েছেন, তার দেশ বাংলাদেশকে ‘বড়ভাই সুলভ’ দৃষ্টিতে দেখে না।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বেরও প্রশংসা করে তিনি বলেন, “তিনি যেভাবে বাংলাদেশে গণতন্ত্রের সুরক্ষা করেছেন তা সত্যি প্রশংসার দাবিদার।”

দুই দেশের সম্পর্ককে একটি নতুন মাত্রায় উন্নীত করার অভিপ্রায় জানিয়ে মাধব বলেন, “বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে সব সমস্যার সমাধান গণতন্ত্রের মাধ্যমেই সম্ভব।

“বাংলাদেশের সঙ্গে এই সম্পর্ক আমাদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এ অঞ্চলে আমরা দুটি বড় গণতান্ত্রিক দেশ।”

তিনি বলেন, “গণতন্ত্রের বিস্তৃতি স্বাধীনতা পর্যন্ত। আমাদের সেই স্বাধীনতাকেই লালন করতে হবে, সুরক্ষা দিতে হবে। স্বাধীনতা তখনই বাধাগ্রস্ত হয় যখন অন্য কেউ এর মধ্যে নাক গলায়।

“দুই দেশের রয়েছে সুলিখিত সংবিধান; তার সুরক্ষা দিতে হবে। এটি আমাদের কোনোভাবেই সংবিধানকে ধ্বংস বা গণতন্ত্রকে ধ্বংসের সম্মতি দেয় না। এটি আমাদের বাস পোড়ানো, সরকারি সম্পত্তি ধ্বংস বা সহিংসতারও সম্মতি দেয় না।

“একমাত্র শান্তিই দিতে পারে গণতন্তের সুরক্ষা।”

বর্তমান সরকারের পাশে থাকার প্রতিশ্রুতি দিয়ে বিজেপি মুখপাত্র বলেন, “বাংলাদেশে গণতান্ত্রিক ধারা সমুন্নত রাখতে আমরা আপনাদের (সরকারের) পাশে আছি।”

তিনি বলেন, “প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির অগ্রসরমান নেতৃত্ব এবং বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রগতিশীল নেতৃত্বের হাত ধরে আমরা সম্পর্কের একটি নতুন পথে হাঁটা শুরু করেছি।”

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে