Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, রবিবার, ১৬ জুন, ২০১৯ , ২ আষাঢ় ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (91 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৫-২৭-২০১২

বাহরাইনে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে ১০ বাংলাদেশী নিহত

বাহরাইনে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে ১০ বাংলাদেশী নিহত
মানামা, ২৮ মে- বাহরাইনে ঘরে আগুন লেগে ধোঁয়ায় দম বন্ধ হয়ে মারা গেছেন ১০ বাংলাদেশী। গতকাল স্থানীয় সময় ভোরে (আনুমানিক ৪টা) দেশটির রাজধানী মানামা থেকে ৩০ কিলোমিটার দূরে পূর্ব রিফা এলাকায় এই দুর্ঘটনা ঘটে। মানামায় নিযুক্ত বাংলাদেশ দূতাবাসের প্রথম সচিব (শ্রম) মুহাম্মদ ইব্রাহিম পররাষ্ট্র ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ে পাঠানো প্রাথমিক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছেন। বৈদেশিক কর্মসংস্থান সচিব ড. জাফর আহমেদ খান ও পররাষ্ট্র দপ্তরে বহিঃপ্রচার অনুবিভাগের মহাপরিচালক (অতিরিক্ত দায়িত্ব) সৈয়দ মাসুদ মাহমুদ খন্দকার ওই প্রতিবেদনের উদ্ধৃতি দিয়ে জানান, প্রাথমিক তদন্তে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে ঘটনার সূত্রপাত বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে। তাদের মৃতদেহ উদ্ধারের পর স্থানীয় সালমানিয়া মেডিকেল কমপ্লেক্সে রাখা হয়েছে। এদিকে বাহরাইন সংবাদ সংস্থা বাহরাইনের দক্ষিণ প্রদেশের সরকারি কর্মকর্তা মোহান্না আল-শাইজির বরাত দিয়ে জানিয়েছে, আগুনের খবর পেয়েই স্থানীয় কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে ছুটে যান। পুলিশ, বেসামরিক প্রতিরক্ষা কর্মকর্তা এবং অপরাধ বিশেষজ্ঞদের উপস্থিতিতে তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। অগ্নিকাণ্ডের যাবতীয় তথ্য অনুসন্ধান করে এ সম্পর্কে প্রাথমিক প্রতিবেদন তৈরি করা হয়েছে। আগুন লাগার অন্য কোন কারণ খুঁজে না পাওয়ায় নাশকতার অভিযোগ নাকচ করেন কর্মকর্তারা। মৃতদেহের পরীক্ষা ও প্রত্যক্ষদর্শীদের জিজ্ঞাসাবাদ করে তাদের মৃত্যুর প্রকৃত কারণ নির্ধারণে একজন ফরেনসিক বিশেষজ্ঞ নিয়োগ করা হয়েছে বলেও জানায় বাহরাইন সংবাদ সংস্থা। বাহরাইন দূতাবাসের প্রথম সচিব জানান, পূর্ব রিফা আবাসিক এলাকার একটি বাসায় ১১ জন বাংলাদেশী কর্মী একসঙ্গে থাকতেন। আগুন লাগার পর তাৎক্ষণিক ধোঁয়ায় বাসাটি আচ্ছন্ন হয়ে যায়। এতে একজন ছাড়া সবাই দম বন্ধ হয়ে মারা যান। ঘটনার সময় তারা সবাই ঘুমিয়ে ছিলেন। ওই কক্ষে কোন জানালা না থাকায় আলো-বাতাস চলাচলের কোন সুযোগ ছিল না। তবে মোহাম্মদ ইব্রাহিম গতকাল রাত সাড়ে আটটায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত তিনজন ছাড়া বাকিদের নাম ঠিকানা নিশ্চিত করতে পারেননি। সর্বশেষ পাঠানো ই-মেইল-এ তিনি জানান, কুমিল্লা জেলার আবু তাহের আবুল হাশেম এবং সৈয়দ আহমদের পরিচয় নিশ্চিত করেছে বাহরাইন পুলিশ। বাকিদের চিহ্নিতকরণের কাজ চলছে। অন্য একটি সূত্রে জানা গেছে নিহত ১০ শ্রমিকের মধ্যে ৯ জনের বাড়ি কুমিল্লায়। এর মধ্যে জেলার সদর দক্ষিণ উপজেলার ৮ জন, চৌদ্দগ্রাম উপজেলার ১ জন এবং চাঁদপুরের ১ জন। এদের মধ্যে পরস্পর নিকটাত্মীয় রয়েছেন ৩ জন। মোবাইল ফোনে তাৎক্ষণিক খবর পৌঁছার পর নিহতদের বাড়িতে বুকফাটা কান্না আর স্বজন হারানোর বেদনায় চলছে শোকের মাতম। স্বজনদের হৃদয় বিদীর্ণ আহাজারিতে বাতাস ভারি হয়ে উঠেছে। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে উপজেলা প্রশাসন, পুলিশ, গোয়েন্দা সংস্থার লোকজনসহ সাংবাদিকরা নিহতদের গ্রামের বাড়িতে ভিড় জমান। সদর দক্ষিণ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফাতেমা জাহান জানান, নিহতদের মধ্যে ৪ জনের বাড়িতে গিয়ে রাত সোয়া ৭টা পর্যন্ত তিনি তাদের স্বজনদের সান্ত্বনা জানিয়েছেন এবং এই উপজেলার অপর ৪ জন নিহতের পরিবারের সঙ্গে তিনি রাতেই দেখা করে সান্ত্বনা জানাবেন। এদিকে সদর দক্ষিণ মডেল থানা পুলিশও এই উপজেলার নিহত ৮ জনের পরিচয় প্রাথমিকভাবে নিশ্চিত করেছেন। সদর দক্ষিণ উপজেলার নিহত ৮ জনের মধ্যে একই পরিবারের সদর দক্ষিণ উপজেলার ৩ জন হলেন- কলামিয়া গ্রামের হানিফ মিয়া (৪৮), তার শ্যালক যশপুর আটিটি বাজার গ্রামের খোরশেদ আলম (৩৫) এবং মেয়ের জামাতা জামিয়া গ্রামের মনির হোসাইন (২৮)। এছাড়া একই উপজেলার ভূশ্চি পূর্বপাড়া গ্রামের ছিদ্দিকুর রহমান (৩০), উত্তরদা গ্রামের আনোয়ার হোসেন (৪০), শাকেরা মনিপুর গ্রামের নুরুল ইসলাম (৪৫), যশপুর গ্রামের সোলায়মান (৪২), সুসন্দা গ্রামের আবু তাহের (৩৮)। অপর সূত্রে জানা গেছে, নিহত অপর দুইজনের মধ্যে একজন কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার দাবিরখিল গ্রামের আবুল হাসেম (৩৫) এবং অপরজন চাঁদপুর জেলার হাজীগঞ্জ উপজেলার সৈয়দ আহমেদ (৪০)। সদর দক্ষিণ মডেল থানার ওসি জসিম উদ্দিন ও এসআই ইমাম হোসেন ৮ জনের নাম-পরিচয় প্রাথমিকভাবে নিশ্চিত করেছেন।

বাহরাইন

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে