Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ , ৮ আশ্বিন ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.8/5 (11 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০২-২০-২০১৬

সিম নিবন্ধনের প্রভাবে ১৮ লাখ মোবাইল গ্রাহক কমেছে!

সিম নিবন্ধনের প্রভাবে ১৮ লাখ মোবাইল গ্রাহক কমেছে!

ঢাকা, ২০ ফেব্রুয়ারী- বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে মোবাইল সিম নিবন্ধন বাধ্যতামূলক করার কারণে শুধুমাত্র জানুয়ারি মাসে দেশে ১৮ লাখ ৩২ হাজার মোবাইল গ্রাহক কমেছে। গত ৬ বছরের মধ্যে এ বছর জানুয়ারিতে সবচেয়ে বেশি গ্রাহক হ্রাস পেল। বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) সর্বশেষ প্রকাশিত প্রতিবেদনে এসব তথ্য পাওয়া গেছে। আর মোবাইল অপারেটরগুলো বলছে, গ্রাহকের পরিচয় নিশ্চিতে গত বছরের ১৬ ডিসেম্বর থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে সিম নিবন্ধন ব্যবস্থা চালু করা হয়। এর মাধ্যমে বিদ্যমান সংযোগের পাশাপাশি নতুন মোবাইল ফোন সংযোগ কিনতে বাধ্যতামূলক করা হয়েছে বায়োমেট্রিক নিবন্ধন, যার প্রভাব পড়েছে গ্রাহক সংখ্যায়।

বিটিআরসির প্রতিবেদন অনুযায়ী, বেসরকারি পাঁচ মোবাইল ফোন অপারেটর গত জানুয়ারিতে গ্রাহক হারিয়েছে ১৮ লাখ ৩২ হাজার। তবে এ সময়ে রাষ্ট্রায়ত্ত টেলিটকের গ্রাহক বেড়েছে ৬৮ হাজার। ফলে সামগ্রিকভাবে জানুয়ারি শেষে দেশে মোবাইল ফোনের গ্রাহক সংখ্যা ১৭ লাখ ৬৪ হাজার কমে দাঁড়িয়েছে ১৩ কোটি ১৯ লাখ ৫৬ হাজারে। যদিও গত বছরের ডিসেম্বর শেষে মোবাইল গ্রাহক ছিল ১৩ কোটি ৩৭ লাখ ২০ হাজার। ৬ বছর ধরে শুধু জানুয়ারিতে মোবাইল ফোন অপারেটরদের নেটওয়ার্কে গড়ে প্রায় ১২ লাখ করে নতুন গ্রাহক যুক্ত হয়েছে। এর মধ্যে ২০১০ সালের জানুয়ারিতে ১৪ লাখ, ২০১১ সালের জানুয়ারিতে ১৬ লাখ ৯৫ হাজার, ২০১২ সালের জানুয়ারিতে ১১ লাখ ২৪ হাজার, ২০১৩ সালের জানুয়ারিতে ২ লাখ ৯ হাজার, ২০১৪ সালের জানুয়ারিতে ১০ লাখ ২৪ হাজার ও ২০১৫ সালের জানুয়ারিতে ১৫ লাখ ১০ হাজার নতুন গ্রাহক পায় অপারেটররা।

গত বছরের শুরুতে রাজনৈতিক অস্থিরতায় সব খাতে নেতিবাচক প্রভাব পড়লেও সেলফোন অপারেটরদের গ্রাহক প্রবৃদ্ধি ছিল ৪৭ শতাংশ। এদিকে চলতি বছরের জানুয়ারি শেষে গ্রামীণফোনের গ্রাহক সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫ কোটি ৬২ লাখ, বাংলালিংকের ৩ কোটি ২৩ লাখ ৬৮ হাজার, রবির ২ কোটি ৭৭ লাখ ৯৫ হাজার, এয়ারটেলের ১ কোটি ৫ লাখ, সিটিসেলের ৮ লাখ ৬৭ হাজার ও টেলিটকের ৪২ লাখ ১১ হাজার। এ সময় সবচেয়ে বেশি গ্রাহক কমেছে রবির। প্রতিষ্ঠানটির গ্রাহক কমেছে ৫ লাখ ২২ হাজার। অথচ ২০১৫ সালের জানুয়ারিতে প্রতিষ্ঠানটির গ্রাহক প্রবৃদ্ধি ছিল ৩৩০ শতাংশের বেশি। গত বছরের জানুয়ারিতে রবি ৯ লাখ ৯৪ হাজার নতুন গ্রাহক পেয়েছিল।

শীর্ষ দুই সেলফোন অপারেটর গ্রামীণফোন ও বাংলালিংক চলতি বছরের জানুয়ারিতে গ্রাহক হারিয়েছে যথাক্রমে ৪ লাখ ৭৫ হাজার ও ৪ লাখ ৯৭ হাজার। যদিও গত বছরের জানুয়ারিতে অপারেটর দুটির গ্রাহক বেড়েছিল যথাক্রমে ৪৫ হাজার ও ২ লাখ ৪৫ হাজার। এছাড়া চলতি বছরের জানুয়ারিতে এয়ারটেলের গ্রাহক কমেছে ২ লাখ। যদিও গত বছরের জানুয়ারিতে প্রতিষ্ঠানটির নেটওয়ার্কে যুক্ত হয় ২ লাখ ১১ হাজার গ্রাহক। গত কয়েক বছরের ধারাবাহিকতায় সিটিসেলও গ্রাহক হারিয়েছে এ বছরের জানুয়ারিতে। মাসটিতে ১ লাখ ৪০ হাজার গ্রাহক হারায় সিটিসেল। এক মাসে হারানো গ্রাহকের সংখ্যা বিবেচনায় চলতি বছরের জানুয়ারিতে সর্বোচ্চ গ্রাহক হারিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। তবে জানুয়ারিতে শুধুমাত্র রাষ্ট্রীয় মোবাইল ফোন সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান টেলিটকের গ্রাহক বেড়েছে ৬৮ হাজার। ডিসেম্বরে টেলিটকের গ্রাহক ৪১ লাখ ৪৩ হাজার ছিল, একমাস পর তা হয়েছে ৪২ লাখ ১১ হাজার।

অপরদিকে ডিসেম্বরে ইন্টারনেট গ্রাহক সংখ্যা ৫ কোটি ৪১ লাখ ২০ হাজার থাকলেও জানুয়ারিতে তা বেড়ে হয়েছে ৫ কোটি ৬১ লাখ ৬৭ হাজার। তবে ২০ লাখ ৪৭ হাজারের মধ্যে মোবাইল ইন্টারনেট ব্যবহারকারীই বেড়েছে ১৯ লাখ ৭৮ হাজার। ডিসেম্বরে মোবাইল ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা ৫ কোটি ১৪ লাখ ৫৩ হাজার থাকলেও জানুয়ারিতে এ সংখ্যা ৫ কোটি ৩৪ লাখ ৩১ হাজার। অন্যান্য ইন্টারনেট গ্রাহক (ওয়াইম্যাক্স, আইএসপি ও পিএসটিএন) ৬৯ হাজার বেড়েছে। এ ধরনের ইন্টারনেট গ্রাহক ডিসেম্বরে ২৬ লাখ ৬৬ হাজার থাকলেও পরের মাসেই তা হয়েছে ২৭ লাখ ৩৭ হাজার।

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে