Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শনিবার, ১৮ জানুয়ারি, ২০২০ , ৫ মাঘ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.1/5 (26 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৫-২৫-২০১২

মোস্তাক আহমদ ‘বেস্ট টুয়েনটি ফাইভ ইমিগ্রান্টস’ নির্বাচিত

মোস্তাক আহমদ ‘বেস্ট টুয়েনটি ফাইভ ইমিগ্রান্টস’ নির্বাচিত
২০১২ সালের কানাডার 'বেস্ট টুয়েনটি ফাইভ ইমিগ্রান্টস’ নির্বাচনে জয়ী হয়েছেন বাংলাদেশী কমিউনিটির জনপ্রিয় মুখ, বিশিষ্ট সমাজসেবক, বাংলাদেশী কানাডিয়ান কমিউনিটি সার্ভিসেস বিসিএস এর প্রতিষ্ঠাতা ও বর্তমান উপদেষ্টা মোস্তাক আহমদ। আগামী ২৯ মে আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা ও এ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হবে। টরন্টো ষ্টারের পক্ষ থেকে ইতিমধ্যে মোস্তাক আহমদের সাথে যোগাযোগ করা হয়েছে এবং সুখবরটি তাঁকে জানানো হয়েছে।
টরন্টোর জনপ্রিয় দৈনিক টরন্টো স্টারের সহযোগি মাসিক প্রকাশনা ‘কানাডিয়ান ইমিগ্রান্ট’ ম্যাগাজিন প্রতিবছর কমিউনিটিতে বিশেষ অবদান, ব্যবসায়িক সাফল্য, স্বেচ্ছাসেবামূলক কর্মকান্ডসহ আর বেশ কিছু দিক বিবেচনা করে ২৫ জনকে ‘শ্রেষ্ঠ ইমিগ্রান্ট’ ঘোষণা করে থাকে। এই বছর ৫০০জন প্রার্থীর মধ্যে চূড়ান্ত নির্বাচনের জন্যে ৭৫জনকে মনোনীত করা হয়। ইমিগ্রান্ট কানাডা সূত্রে জানা গেছে, সর্বাধিক নম্বর পেয়ে মোস্তাক আহমদ তখনই প্রাথমিক তালিকার শীর্ষে অবস্থান করেন। শুরু হয় অনলাইন ভোটিং পর্ব। যে কোনও কানাডিয়ান সিটিজেন তার পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিতে পারার সুযোগ ছিলো অনলাইনে। গত ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত চলে ভোট গ্রহণের কাজ। বিচারক প্যানেলের নম্বর ও অনলাইন ভোটিং এর ফলাফল গড় করে চূড়ান্তভাবে বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করা হয়। ইমিগ্রান্ট কানাডার এই স্বীকৃতিকে জাতীয় পর্যায়ে বিশেষ গুরুত্ব দেয়া হয়। উল্লেখ্য, পেশাগত জীবনে মোস্তাক আহমদ একজন ফাইন্যান্সিয়াল এক্সিকিউটিভ। তিনি ড্যানফোর্থে অবস্থিত অমনিবাস ট্যাক্স এন্ড এ্যাকাউন্টিং সার্ভিসেস এর প্রধান নির্বাহী । নব্বই দশকের শুরুতে মোস্তাক আহমদ স্বপরিবারে কানাডায় আসেন। অন্যান্য ইমিগ্রান্টদের মতো তাকেও মেধা এ শ্রম কাজে লাগিয়ে প্রতিষ্ঠা পেতে হয়েছে। নিজ প্রতিষ্ঠা কিংবা সাফল্যে থেমে ছিলেন না তিনি। সমমনাদের নিয়ে কমিউনিটির উন্নয়নে এবং নবাগত ইমিগ্রান্টদের সহায়তায় কাজ শুরু করেন। ২০০৩ সালে গড়ে তোলেন বাংলাদেশী কানাডিয়ান কমিউনিটি সার্ভিসেস বিসিএস নামক একটি স্বেচ্ছাসেবি সংগঠন। বিসিএস এখন বাংলাদেশি কমিউনিটির অনন্যেএকটি সংগঠনে পরিণত হয়েছে। পাশাপাশি মোস্তাক আহমদ প্রকাশ করেন বাংলাদেশি কানাডিয়ানদের তথ্য সম্বলিত ফোন ডিরেক্টরি। তিনি অসংখ্য পেশাজীবি ও সামাজিক সংগঠনের সঙ্গে ওতোপ্রোতভাবে জড়িত। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য ইনস্টিটিউট অব প্রফেশনাল বুক কিপারস অব কানাডা, বাংলাদেশি প্রফেশনালস নেটওয়ার্ক প্রভৃতি। কাজের স্বীকৃতি হিসেবে পেয়েছেন হাউস অব কমন্স ভ্যালুড ভলানটিয়ার এ্যাওয়ার্ড, কানাডিয়ান প্রধানমন্ত্রি কতৃক সিআরএ ভলানটিয়ার এ্যাওয়ার্ড ২০০১ এবং সিটিজেনশিপ মন্ত্রি হেলেন জোনস ও অন্টারিও প্রিমিয়ার মাইকেল হেরিস কতৃক অন্টারিও ভলানটিয়ার এ্যাওয়ার্ড ২০০০ । এই বিষয়ে প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে প্রচারবিমুখ মোস্তাক আহমদ বলেন, কোনও কিছু পাওয়ার প্রত্যাশা নিয়ে আমি কখনো কিছু করিনি। বিবেকের তাড়না আর সামাজিক দায়বদ্ধতার কারণেই সবসময় কমিউনিটির উন্নয়নে কাজ করার চেষ্টা করেছি। এই স্বীকৃতি অন্যদেরকে আরও উৎসাহিত করবে। ভবিষ্যত পরিকল্পনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি চাই আমাদের কমিউনিটি মূলধারার রাজনীতির সাথে নিজেদের সম্পৃক্ত করুক। স্থানীয় কাউন্সিলর, এমপিপি ও এমপিদের উন্নয়ন কর্মকান্ডের সাথে নিজেদের জড়িত করে কমিউনিটির বিকাশে কাজ করুক। এজন্যে একটি পরিকল্পিত প্রেসার গ্রুপ দরকার। এধরনের একটি সংগঠনের উপলদ্ধি আমার সবসময়। আগামী প্রজন্মকে সামনের সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাবার দায়িত্ব আমাদের। (দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম এর সৌজন্যে)

কানাডা

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে