Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, রবিবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০১৯ , ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.1/5 (28 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৫-০৬-২০১২

‘যৌথ অংশীদারিত্ব ঘোষণা’য় যা আছে

‘যৌথ অংশীদারিত্ব ঘোষণা’য় যা আছে
ঢাকা, ৫ মে: বাংলাদেশ ও আমেরিকার মধ্যে শনিবার স্বাক্ষরিত যৌথ অংশীদারিত্বের ঘোষণায় শান্তি, নিরাপত্তা ও উন্নয়নের কথা বলা হয়েছে। দুই দেশের জনগণ ও বৈশ্বিক স্বার্থে বেশ কিছু ইস্যুতে অভিন্ন অবস্থানের কথা বলা হয়েছে। এগুলো হলো মানবাধিকার, সুশাসন, সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, মাদক, দস্যুতা, মানব ও অস্ত্রপাচারের মতো আন্তঃদেশীয় অপরাধ দমনসহ নিরাপত্তা সহযোগিতা। যৌথ অংশীদারির ঘোষণায় পররাষ্ট্রসচিব ও আমেরিকার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আন্ডার সেক্রেটারি পর্যায়ে বছরে একবার এবং দুই দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ে দ্বিপক্ষীয় স্বার্থসংশ্লিষ্ট ইস্যুগুলোতে নিয়মিত বৈঠক অনুষ্ঠানের উল্লেখ আছে।

বলা হয়েছে বাংলাদেশ ও আমেরিকার মধ্যে জোরালো মৈত্রী ও মূল্যবোধকে দৃঢ়ভাবে সমর্থন করার কথা। এ ছাড়া বাংলাদেশ ও আমেরিকার পারস্পরিক স্বার্থে দ্বিপক্ষীয়, আঞ্চলিক ও বৈশ্বিক বিষয়াদিতে দুই দেশের অংশীদারত্ব জোরদারের আগ্রহের ওপর বিশেষ গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। এ ছাড়া একুশ শতকের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় মানবাধিকার, আইনের শাসনসহ দুই দেশের পারস্পরিক মূল্যবোধ একে অন্যের প্রতি সম্পৃক্ততার পথ দেখাবে বলেও যৌথ ঘোষণায় উল্লেখ আছে। সহনশীলতা, মানবাধিকারের প্রতি সম্মান, শক্তিশালী সুশীলসমাজ ও স্থিতিস্থাপকতার কথা বলা হয়েছে। খাদ্যনিরাপত্তা, মা ও শিশুস্বাস্থ্য, পরিবার পরিকল্পনা, জলবায়ু পরিবর্তন, গণতন্ত্র শক্তিশালীকরণ, নারী ও যুবসমাজের ক্ষমতায়নসহ যৌথ উন্নয়ন অগ্রাধিকার অর্জনের জন্য বড় পরিসরে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক জোরদারের অঙ্গীকার করা হয়েছে।

যৌথ ঘোষণায় জাতিসংঘের মাধ্যমে উভয় দেশের আস্থা এবং জাতিসংঘের নেতৃত্বে শান্তিরক্ষা কার্যক্রম ও শান্তিরক্ষা উদ্যোগের ওপর জোর দেয়া হযেছে। এ ছাড়া জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা কার্যক্রমে বাংলাদেশের অবদানের প্রশংসাও আছে এতে।

সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, মাদক, দস্যুতা, মানব ও অস্ত্রপাচারের মতো আন্তঃদেশীয় অপরাধ দমনসহ নিরাপত্তা সহযোগিতায় সংলাপ জোরদারে উভয় দেশের দৃঢ় আগ্রহের কথা উল্লেখ আছে যৌথ ঘোষণায়। এ ছাড়া সমৃদ্ধ দুই সমাজের মধ্যে শিক্ষা ও সাংস্কৃতিক বিনিময়, নতুন নতুন উদ্ভাবনে উৎসাহ, ব্যবসা-বাণিজ্য সম্পর্ক জোরদারের মাধ্যমে মানুষে মানুষে যোগাযোগ বৃদ্ধির প্রতিশ্রুতি আছে এতে।

তথ্য, দক্ষতা ও প্রযুক্তি বিনিময়ের মাধ্যমে দ্বিপক্ষীয়, আঞ্চলিক ও আন্তির্জাতিকভাবে উভয় দেশের জন্য নতুন অর্থনৈতিক সুযোগ সৃষ্টিতে জোর দেয়া হয়েছে। এই বিষয়গুলো এবং অভিন্ন লক্ষ্য পূরণে দুই দেশের এগিয়ে যাওয়া, যৌথভাবে চলমান ও ভবিষ্যৎ কর্মকাণ্ড মূল্যায়ন এবং দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ককে কৌশলগত দিকে নিয়ে যেতে বাংলাদেশ ও আমেরিকা ‘অংশীদারি সংলাপ’-এর আওতায় প্রতিবছর বৈঠক করবে বলে ঘোষণা করা হয়েছে। উভয় পক্ষের জন্য সুবিধাজনক সময়ে পররাষ্ট্রসচিব/আন্ডার সেক্রেটারির নেতৃত্বে ওই সংলাপ অনুষ্ঠানের কথা বলা হয়েছে। এ ছাড়া দুই দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়েও নিয়মিত বৈঠক অনুষ্ঠানে উভয় পক্ষের আগ্রহের কথা যৌথ ঘোষণায় স্থান পেয়েছে।

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে