Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বুধবার, ২১ আগস্ট, ২০১৯ , ৬ ভাদ্র ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.1/5 (103 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৫-০৪-২০১২

বীরশ্রেষ্ঠর সমাধিতে...

বীরশ্রেষ্ঠর সমাধিতে...
কাপ্তাই হ্রদের মধ্যে দিয়ে ছুটে চলেছে আমাদের ইঞ্জিনচালিত নৌকা। এর শব্দে উড়ে যায় পানকৌড়ি। দূরে মিলিয়ে যায় জেলেদের মাছ ধরার ছোট্ট নৌকা। মাঝেমধ্যে মাথা জাগিয়ে আছে ছোট টিলা। আমরা যাচ্ছি বীরশ্রেষ্ঠর সমাধিতে। পার্বত্য চট্টগ্রামের রাঙামাটি জেলার নানিয়ারচর বুড়িঘাট ইউনিয়নের ভাঙ্গামুড়া এলাকায় বীরশ্রেষ্ঠ ল্যান্স নায়েক মুন্সী আব্দুর রউফের সমাধিস্থল। নীল পানিবেষ্টিত ছোট এক টিলায় তাঁর সমাধি।
পার্বত্য চট্টগ্রামেই এক বীরশ্রেষ্ঠর সমাধি, অথচ এখনো তা দেখা হয়নি। ২৪ ফেব্রুয়ারি তাই বেরিয়ে পড়লাম আমরা। সকাল সাড়ে নয়টায় খাগড়াছড়ি থেকে বাসে করে শুরু হলো যাত্রা নানিয়ারচরের পথে। দুই পাশের সড়কে সারি সারি পাহাড়। তার গায়ে আনারসের বাগান। দুপুর সাড়ে ১২টায় আমরা পৌঁছে যাই নানিয়ারচর ডাকবাংলোয়। সেখানে হর্টিকালচার সেন্টারে জিনিসপত্র রেখে ইঞ্জিনচালিত নৌকা নিয়ে চেঙ্গী নদী ও কাপ্তাই লেক ধরে বীরশ্রেষ্ঠর সমাধিস্থলে রওনা হলাম। জলের বুক চিরে সাদা ঢেউ তুলে এগিয়ে যাচ্ছি আমরা। একসময় আমরা পৌঁছে যাই সমাধিস্থলের কাছাকাছি। সে এক অন্য রকম অনুভূতি। চারদিকে নীল জল, দূরে সবুজের রেখা। তার মাঝে দুধ সাদা সমাধিতে শুয়ে আছেন দেশের শ্রেষ্ঠ সন্তান। আশপাশের নীরবতায় যেন শ্রদ্ধার আবহ। আমরা সেই মৌনতা ভাঙালাম না। চুপচাপ শ্রদ্ধা জানিয়ে ফেরার পথ ধরলাম।

কীভাবে যাবেন
বীরশ্রেষ্ঠ মুন্সী আব্দুর রউফের সমাধিস্থলে ঢাকা ও চট্টগ্রাম থেকে খাগড়াছড়ি ও রাঙামাটি হয়ে যাওয়া যায়। ঢাকার কমলাপুর, ফকিরাপুল, গাবতলী ও কলাবাগান থেকে খাগড়াছড়ি ও রাঙামাটির বিভিন্ন পরিবহনের চেয়ারকোচ ছাড়ে। এ ছাড়া চট্টগ্রামের অক্সিজেন থেকেও এ দুই জেলার গাড়ি ছাড়ে। ঢাকা থেকে রাতের বাসে এসে সকালে নেমে খাগড়াছড়ি থেকে নানিয়ারচর অথবা রাঙামাটি নেমে রির্জাভ বাজার জেটিঘাট থেকে ইঞ্জিনচালিত নৌকায় বীরশ্রেষ্ঠ মুন্সী আব্দুর রউফের সমাধিস্থল যাওয়া যায়। নানিয়ারচর থেকে ইঞ্জিনের নৌকায় রির্জাভ যাতায়াতে খরচ পড়বে ৬০০ টাকা। এক নৌকায় ৩০-৩৫ জন যাওয়া যায়।

কোথায় থাকবেন
বীরশ্রেষ্ঠর সমাধিস্থল ও কাপ্তাই লেকের নানা অপরূপ দৃশ্য দেখে দিনে দিনেই খাগড়াছড়ি অথবা রাঙামাটিতে ফিরতে পারবেন। ইচ্ছে করলে রাত যাপন না করে নৈশকোচে আবার ফিরে যেতে পারবেন। রাত যাপন করতে চাইলে রাঙামাটি ও খাগড়াছড়িতে পর্যটন মোটেলসহ রয়েছে বিভিন্ন আবাসিক হোটেল।

রাঙ্গামাটি

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে