Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 3.0/5 (136 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৫-০৪-২০১২

পানির নিচে হাওর অঞ্চল

পানির নিচে হাওর অঞ্চল
হবিগঞ্জ থেকে: হবিগঞ্জের বানিয়াচং ও আজমিরীগঞ্জ উপজেলার বছিরা, সিনাই নদীর বাঁধ ভেঙে তলিয়ে গেছে কয়েক হাজার হেক্টর জমির বোরো ফসল। তবে সরকারি হিসেবে বলা  হয়েছে ১৫শ’ হেক্টর জমির ফসল বিনষ্ট হয়েছে। বাস্তবে এর চিত্র দ্বিগুণ। সোমবার রাতে ভারতের পাহাড়ি ঢলের পানি নেমে আসায় সিনাই নদীতে বান দেখা দেয়। বানের তোড়ে ওই রাতে ছাগাইয়ার বাঁধ ভেঙে প্রবল শ্রোতে বোরো জমিতে পানি প্রবেশ করতে থাকে। ফলে ভয়াবহ এ বন্যায় তলিয়ে যায় হাজার হাজার একর জমির বোরো ফসল। এ ক্ষয়ক্ষতির কারণে ওই এলাকার কৃষকরা দিশাহারা হয়ে পড়েছেন। এসব এলাকার কৃষকরা পাকা ধান গোলায় উঠাতে পারেননি। পৈলারকান্দি ইউনিয়নের কুমড়ি, চরগাঁও, বাগতলা, শ্রীমঙ্গলকান্দি, ভাঙ্গারকান্দি, দুর্গাপুর ও বাল্লা গ্রামের কৃষকরা সবচেয়ে বেশি ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছেন। পাকা ধান কাটার আগেই সর্বনাশা বানের পানি তাদের কষ্টের ফসল ভাসিয়ে নিয়ে গেছে। পৈলারকান্দি গ্রামের কৃষক জালাল মিয়া জানান, দুদিনের মধ্যেই তার ধান কাটার কথা ছিল। কিন্তু বানের পানি তার ধান কাটার স্বপ্ন তলিয়ে নিয়ে গেছে। এছাড়াও বাগতলা গ্রামের ননীগোপাল দাস ও জগদীশ দাস, চরগাঁও গ্রামের রউপ মিয়া জানান, তাদের কষ্টের বোরো ফসল কাটার সময় হয়েছিল। কিন্তু বানের পানি সে সময় তাদের দেয়নি। পাকা ধান হারিয়ে তারা তাদের হতাশার কথা ব্যক্ত করেন। ইউনিয়ন পরিষদ মেম্বার দেবীচাঁদ দাস বলেন আকস্মিক এ বন্যায় পৈলারকান্দি এলাকার কৃষকরা ব্যাপক ক্ষতির শিকার হয়েছেন। তাদের মুখের হাসি কেড়ে নিয়েছে সর্বনাশা বন্যা। তিনি বলেন, এর আগেও সমপ্রতি পৈলারকান্দি ইউনিয়নের বাগারখালের পানি প্রবেশ করে কাতিয়ার বন, হাসার বন নামক হাওরের জমির ধানের ব্যাপক ক্ষতি সাধন হয়েছিল। তিনি কৃষকদের ক্ষয়ক্ষতি পুষিয়ে দেয়ার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। ইউনিয়ন পরিষদের অপর মেম্বার মোক্তার হোসেন জানান শ্রীমঙ্গলকান্দি গ্রামসহ ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের অবস্থা বর্তমানে শোচনীয়। তাদের সহযোগিতায় এগিয়ে আসার জন্য তিনি কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানান। এদিকে ৩০শে এপ্রিল হবিগঞ্জের আজমিরীগঞ্জ উপজেলার বছিরা নদীর বাঁধ ভেঙে কাকাইলছেওয়ে ও মাটিরাঙ্গা  এলাকায় ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। এতে কাকাইলছেও, রসুলপুর, মাটিকাটা, বৈরাটি, মুরাদপুর, ভুরবটি, ইমামনগর ও বিজয়নগরসহ ১৫/২০টি গ্রামের সহস্রাধিক হেক্টর জমির ফসল তলিয়ে গেছে। তবে হবিগঞ্জ কৃষি সমপ্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক আবদুল বাতেনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, ৮ হাজার ৫শ’ ৬৫ হেক্টর জমির বোরা ফসল প্লাবিত হয়েছে। এতে  দু’উপজেলার ১৫শ’ হেক্টর জমির বোরো ফসল সম্পূর্ণ ক্ষতিগ্রস্ত  হয়েছে।

হবিগঞ্জ

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে