Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, রবিবার, ২১ জুলাই, ২০১৯ , ৬ শ্রাবণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.8/5 (129 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৪-১৭-২০১২

আজ ঠাকুরগাঁও গণহত্যা দিবস

আজ ঠাকুরগাঁও গণহত্যা দিবস
১৯৭১ সালের এই দিনে স্বাধীনতা যুদ্ধে পাক হানাদার বাহিনী ও স্থানীয় রাজাকারদের সহায়তায় ঠাকুরগাঁওয়ে নির্বিচারে গণহত্যা চলে। শিক্ষক, রাজনীতিবিদ, চিকিৎসক,বুদ্ধিজীবী ও ব্যবসায়ীসহ সাধারণ মানুষও রেহাই পায়নি তাদের হাত থেকে।

 

স্বাধীনতার ৪০ বছর পেরিয়ে গেলেও এই শহীদ পরিবারদের প্রতি রাষ্ট্রীয়ভাবে সম্মান না দেখানোর কারণে হতাশ হয়েছেন শহীদ পরিবারের সদস্যরা। শহীদদের কবরে নির্মাণ করা হয়নি কোনো স্মৃতি চিহৃ।

 

শহীদ গোলাম মোস্তফার কবরটি সংরক্ষণের জন্য তার ছেলে প্রভাষক আসাদুজ্জামান গত বছর প্রধানমন্ত্রীর বরাবরে আবেদন করলে প্রধানমন্ত্রী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় এর সচিবকে নির্দেশ দেন। প্রধানমন্ত্রীর এ নির্দেশের এক বছর পার হয়ে গেলেও এখন পর্যন্ত কোনো ব্যবস্থা নেয়া হয়নি।

 

উল্লেখ্য, ২০১১ সালে আটজন শহীদ বুদ্ধিজীবীর মধ্যে অধ্যাপক গোলাম মোস্তফার নামে দুই টাকা মূল্যের স্মারক ডাক টিকিট প্রকাশ করেন প্রধানমন্ত্রী। সেই সঙ্গে জেলার পীরগঞ্জ উপজেলার দুটি সড়ক অধ্যাপক গোলাম মোস্তফা ও ডা.সুজাউদ্দীনের নামে

নামকরণ করা হয়।

 

শান্তি কমিটির স্থানীয় নেতাদের সহায়তায় এই দিন হানাদার বাহিনীর সদস্যরা এপ্রিল মাসের মাঝামাঝি সময়ে হানা দেয় ঠাকুরগাঁওয়ে। নির্বিচারে শুরু করে গণহত্যা। সদর উপজেলার পাথরাজ নদীর তীরে জাঠিভাঙ্গায় আশ পাশের ১২ টি গ্রামের তিন হাজারেরও বেশি মানুষকে হত্যা করে একই সঙ্গে মাটি চাপা দেয়। তৎকালীন পীরগঞ্জ থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি ডা. সুজাউদ্দীন আহাম্মেদ, অধ্যাপক গোলাম মোস্তফা, জব্বার মহাজনসহ বেশ কয়েকজন নিরীহ মানুষকে ১৭ এপ্রিল ধরে নিয়ে গিয়ে পীরগঞ্জ-ঠাকুরগাঁও পাকা সড়কের ভাতারমারি ফার্ম এর জামালপুর নামক স্থানে ব্যনয়েট দিয়ে খুচিয়ে খুচিয়ে হত্যার পর লাশ ফেলে রেখে যায়। পরে তাদের পীরগঞ্জে এনে দাফন করা হয়।

 

অন্যদিকে রানীশংকৈলের খুনিয়াদিঘিতে প্রায় আড়াই হাজার নারী-পুরুষকে হত্যা করে পানিতে ভাসিয়ে দেয়া হয়। যুদ্ধকালীন সময়ে এলাকার হাজার হাজার লোক শহীদ হলেও শুধু অধ্যাপক গোলাম মোস্তফা ও ডা. সুজাউদ্দীন ছাড়া কেউ রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি পায়নি। শহীদের রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি চায় তাদের স্বজনরা।

 

নতুন প্রজন্মের কাছে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস সমুন্নত রাখতে শহীদদের স্মৃতি রক্ষায় কার্যকর ব্যবস্থা নেয়া হবে এই প্রত্যাশা এলাকাবাসীর।

ঠাকুরগাঁও

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে