Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বুধবার, ১৩ নভেম্বর, ২০১৯ , ২৯ কার্তিক ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.8/5 (33 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৯-১৫-২০১৫

‘যুক্তরাষ্ট্রে অধ্যাপকের হত্যাকারীর আত্মহত্যা’

‘যুক্তরাষ্ট্রে অধ্যাপকের হত্যাকারীর আত্মহত্যা’
সন্দেহভাজন হত্যাকারী একই বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূগোল বিভাগের অধ্যাপক শ্যানন ল্যাম্ব।

ওয়াশিংটন, ১৫ সেপ্টেম্বর- যুক্তরাষ্ট্রের মিসিসিপি অঙ্গরাজ্যের ডেল্টা স্টেট বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের অধ্যাপক ইথান শমিতের হত্যাকারী হিসাবে সন্দেহভাজন শ্যানন ল্যাম্ব আত্মহত্যা। কর্মকর্তাদের বরাতে বিবিসি এ খবর জানিয়েছে। সোমবার ইথান শমিতকে তার বিভাগীয় দপ্তরে হত্যা করা হয় ।এ হত্যাকাণ্ডের জন্য একই বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূগোলের অধ্যাপক শ্যানন ল্যাম্বকে সন্দেহ করা হয়।

৪৫ বছর বয়সী ল্যাম্ব একই দিন সকালে আরেক নারীকে গুলি করে হত্যা করেছেন বলেও পুলিশের সন্দেহ। পুলিশ জানিয়েছে, ভোরে ডেল্টা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ৩০০ মাইল দূরে গাউটিয়ারে নিজ বাসায় এমি প্রেন্টিসের (৪১) গুলিবিদ্ধ মৃতদেহ পাওয়া যায়। প্রেন্টিসের সঙ্গে একই বাসায় ল্যাম্ব বসবাস করতেন বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

গাউটিয়ার থেকে গাড়িতে বিশ্ববিদ্যালয়ে যেতে পাঁচঘন্টা সময় লাগে। স্থানীয় সময় সকাল ১০টা ১৮-তে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পুলিশকে ফোন করে গুলিবর্ষণের কথা জানানো হয়। অধ্যাপক ইথান শমিত ও এমি প্রেন্টিসকে হত্যার সন্দেহভাজন হিসাবে ল্যাম্বকে ধরার চেষ্টা করছিল পুলিশ। সোমবার সন্ধ্যায় এক সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ জানিয়েছে, ৪৫ বছর বয়সী ল্যাম্বের সঙ্গে তারা কথা বলেছেন। কিন্তু তিনি কারাগারে যেতে চান না বলে পুলিশকে জানিয়ে দিয়েছেন।

নিহত ইথান শমিত বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাসের অধ্যাপক ছিলেন। ডেল্টা স্টেট ইউনিভার্সিটির পুলিশ কর্মকর্তা লিন বুফোর্ড বলেন, পুলিশ ল্যাম্বের গাড়ি অনুসরণ করলে তিনি গাড়ি থেকে লাফ দিয়ে নেমে পালানোর চেষ্টা করেন। পুলিশও তার পিছু নিলে আকস্মিক একটি গুলির শব্দ শোনা যায়। এরপরই তারা ল্যাম্বের মৃতদেহ দেখতে পান। পুলিশ জানিয়েছে, অধ্যাপক শমিতকে বিশ্ববিদ্যালয়ের জব হল ভবনের নিজ দপ্তরের ভিতরে গুলি করা হয়।

গুলির্বষণের পর পুলিশ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভবনগুলো থেকে শিক্ষার্থীদের সরিয়ে নিয়ে ভবনগুলো তালাবদ্ধ করে দেয়। সন্দেহভাজন গুলিবর্ষণকারী শ্যানন ল্যাম্ব ২০০৯ সালে বিশ্ববিদ্যালয়টিতে যোগ দিয়েছিলেন। ল্যাম্ব ‘ব্যক্তিগত কারণে’ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ছুটি নিয়েছিলেন বলে জানিয়েছেন ইংরেজি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডন মিশেল।

নিহত অধ্যাপক শমিত ‘সব বিবেচনায় একজন ভদ্রলোক’ ও ‘পরিবার অন্তঃপ্রাণ মানুষ’ ছিলেন বলে জানিয়েছেন অধ্যাপক মিশেল। আরকানসাস অঙ্গরাজ্যের সীমান্তের কাছে মিসিসিপির এই বিশ্ববিদ্যালয়টিতে প্রায় সাড়ে তিন হাজার শিক্ষার্থী আছেন।

উত্তর আমেরিকা

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে