Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শুক্রবার, ২৪ জানুয়ারি, ২০২০ , ১০ মাঘ ১৪২৬

গড় রেটিং: 1.9/5 (7 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৯-১৩-২০১৫

এবার বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘অবাধ বাণিজ্যে’র বিরুদ্ধে আন্দোলন!

এবার বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘অবাধ বাণিজ্যে’র বিরুদ্ধে আন্দোলন!

ঢাকা, ১৩ সেপ্টেম্বর- বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘অবাধ বাণিজ্যের’ বিরুদ্ধে আন্দোলন করতে যাচ্ছে ‘বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রকল্যাণ ফাউন্ডেশন’ নামের একটি সংগঠন। রোববার সংগঠনের নীতি নির্ধারনী বৈঠকে এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সংগঠনের সভাপতি আসাদুজ্জামান রনো।

গেল বুধবার রামপুরায় ইস্ট ওয়েস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের উপর পুলিশের গুলিবর্ষণের ঘটনা ঘটে। ঐ রাতেই আহত শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ছবি সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে রাস্তায় নামতে থাকেন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মুখে বৃহস্পতিবার জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) এক ব্যাখ্যায় জানায়, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে সাড়ে ৭ শতাংশ ভ্যাট দিতে হবে, শিক্ষার্থীদের নয়।’ আর অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহত জরুরি সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘আরোপিত এ কর দিবে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ’। এদিকে বিশ্ববিদ্যালয় মালিক সমিতিও ঘোষণা দিয়েছে, ‘ভ্যাট শিক্ষার্থীদের দিতে হবে না। কর্তৃপক্ষই ভ্যাট দিবে।’

এরপর বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রকল্যাণ ফাউন্ডেশনের ব্যানারে শুক্রবার দুপুরে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে সংবাদ সম্মেলন করে সংগঠনটির সভাপতি আসাদুজ্জামান রনো আন্দোলন প্রত্যাহারের ঘোষণা দিয়েছিলেন। ভ্যাটের কারণে টিউশন ফি বাড়বে না সরকারের এমন আশ্বাসের পরিপ্রেক্ষিতে আন্দোলন প্রত্যাহার করে সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, এরপর কেউ আন্দোলন করলে বা উসকানি দিলে তাদের প্রতিহত করা হবে।

রোববার আসাদুজ্জামান বলেন, ‘আসলে শিক্ষার্থীদের উসকানি দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ আন্দোলনের ফায়দা লুটছে। তারা শিক্ষার্থীদের ঢাল হিসেবে ব্যবহার করতে চায়।’ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের কীভাবে ব্যবহার করছে এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘খোঁজ করলে আপনি জানতে পারবেন বিশ্ববিদ্যালয় বিগত কয়েক বছরে বিপুল পরিমাণ টিউশন ফি বাড়িয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় কারণে-অকারণে আমাদের কাছ থেকে টাকা নিয়ে থাকে। এই বিশাল ব্যবসা গোপন করতেই তারা ছাত্রদের রাস্তায় নামিয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘মালিক পক্ষের পাতানো ফাঁদে পা দিয়ে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা পুলিশের রাবার বুলেট, কাঁদানে গ্যাস আর লাঠিপেটার শিকার হচ্ছে। তবে এখন সময় এসেছে তাদের বিরুদ্ধে আন্দোলন করার। আমরা সাংগাঠনিকভাবে সিদ্ধান্ত নিয়েছি বিশ্ববিদ্যালয়ের অবাধ বাণিজ্যের বিরুদ্ধে আন্দোলন করব। কবে থেকে আন্দোলন করব তা আপনাকে জানিয়ে দেয়া হবে।’

তবে বিষয়টিকে এই বাস্তবতায় খুব গুরুত্ব সহকারে দেখছেন না ‘নো ভ্যাট অব এডুকেশন’র নেতারা। তারা বলছেন, ‘এখন আমাদের কাজ হলো জীবন বাঁচানো তারপর অন্য আন্দোলন।’ আর মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের মধ্যে। ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্টস বাংলাদেশ-এর শিক্ষার্থী ও ভ্যাটবিরোধী আন্দোলনের অন্যতম এক সংগঠক নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, ‘আমারা যে এমন আন্দোলনের বিপক্ষে তা কিন্তু নয়। তবে আমাদের বক্তব্য হলো, সরকার তো আমাদের শেষ অবলম্বন। কিন্তু সরকারই যদি ভ্যাট বাড়ায় তাহলে আন্দোলন তো এখান থেকেই শুরু হবার কথা।’

বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের বিরুদ্ধেও আন্দোলনের সময় এসেছে বলে মনে করছেন এই নেতা। তিনি বলেন, ‘প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ে এখন পর্যন্ত কোনো ছাত্র আন্দোলন করার মতো সংগঠন তৈরি হয়নি। কিন্তু ক্রমাগতভাবে তা হচ্ছে। ভ্যাট বিরোধী আন্দোলন তারই একটি ফল।’ সবাই মিলে একটি সাংগঠনিক প্লাটফর্মে দাঁড়াতে পারলে যেকোনো আন্দোলন সম্ভব বলে মনে করেন ‘নো ভ্যাট অব এডুকেশন’-এর এই নেতা।

এ বিষয়ে ‘নো ভ্যাট অব এডুকেশন’র মূখপাত্র ফারুক আহমাদ আরিফ বলেন, ‘আমরাও বিশ্ববিদ্যালয়ের টিউশন ফি বাড়ানোর বিপক্ষে। তবে এ সময় সেই বাস্তবতা নেই। এখন শিক্ষার্থীরা স্বতঃস্ফূর্তভাবে আন্দোলন করছে। সুতরাং আগে আমরা ভ্যাটবিরোধী আন্দোলন সফল করে জীবন বাঁচাই। তারপর অন্য আন্দোলনগুলো দেখব।’ তবে ‘বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রকল্যাণ ফাউন্ডেশন’ নামে কিছু আছে এমন কথাও স্বীকার করেনি ‘নো ভ্যাট এডুকেশন’র আন্দোলনকারীরা। তারা দাবি করেছিলেন, ‘আন্দোলনের গতি অন্যদিকে ফেরাতে এই ফাউন্ডেশনের উদ্ভব। কথিত ওই আন্দোলনকারীদের আমরাও খুঁজছি।’

‘নো ভ্যাট অব এডুকেশন’র পক্ষে আন্দোলনকারী মাহাদী হাসান বলেন, ‘আমরা এখন যে ইস্যু নিয়ে আন্দোলন করছি সেটা সফল হোক। তারপর না অন্য কোনো ইস্যু দেখা যাবে।’ আর ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মাহমুদুল হক লিটন বলেন, ‘প্রতি বছর বিশ্ববিদ্যালয় যে পরিমাণ টিউশন ফি নেয় তার বিরুদ্ধে অবশ্যই আন্দোলন হওয়া উচিত। তবে এই শিক্ষার ওপর কর আমরা কোনোভাবেই মানব না।’

শিক্ষা

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে