Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শনিবার, ১৮ জানুয়ারি, ২০২০ , ৫ মাঘ ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.8/5 (11 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৯-১০-২০১৫

শিক্ষার্থী নয়, ভ্যাট দেবে বিশ্ববিদ্যালয়: এনবিআর

শিক্ষার্থী নয়, ভ্যাট দেবে বিশ্ববিদ্যালয়: এনবিআর

সিলেট, ১০ সেপ্টেম্বর- বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ওপর আরোপিত ভ্যাট প্রত্যাহারের দাবিতে দেশের বিভিন্ন স্থানে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মধ্যে সরকার বলেছে, ওই কর পরিশোধের দায়িত্ব বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের, ছাত্র-ছাত্রীদের নয়।

আর ওই ভ্যাট যে প্রত্যাহার করা হবে না, তা আবারও জানিয়ে দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত। বৃহস্পতিবার দুপুরে সরকারের এক তথ্য বিবরণীতে এ বিষয়ে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) একটি ‘ব্যাখ্যা’ দেওয়া হয়। এতে বলা হয়, “শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে আদায় করার জন্য নতুন করে ভ্যাট আরোপ করা হয়নি। বিদ্যমান টিউশন ফি’র মধ্যে ভ্যাট অন্তর্ভূক্ত রয়েছে। ভ্যাট বাবদ অর্থ পরিশোধ করার দায়িত্ব সম্পূর্ণরূপে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের, কোনক্রমেই শিক্ষার্থীদের নয়।”

‘বিদ্যমান টিউশন ফি’র মধ্যে ভ্যাট ‘অন্তর্ভুক্ত থাকায়’ টিউশন ফি বাড়ার কোনো ‘সুযোগ নেই’ বলেও এতে উল্লেখ করা হয়। চলতি অর্থবছরের বাজেটে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়, মেডিকেল এবং ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের শিক্ষার্থীদের টিউশন ফি’র ওপর সাড়ে ৭ শতাংশ হারে এই ভ্যাট আরোপ করে সরকার। জাতীয় রাজস্ব বোর্ড গত ৪ জুলাই এ বিষয়ে আদেশ জারি করে।

এরপর থেকেই এসব প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা ভ্যাট প্রত্যাহারের দাবিতে বিক্ষোভ-সমাবেশসহ বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করে আসছেন। বুধবার ইস্ট ওয়েস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে বিক্ষোভের সময় শিক্ষার্থীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হলে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে বিভিন্ন সড়ক আটকে বিক্ষোভ শুরু হয়। এই পরিস্থিতিতে সারা শহরে যানজট ছড়িয়ে পড়লে নগরবাসীকে ব্যাপক ভোগান্তির মুখে পড়তে হয়।

এরইমধ্যে দুপুরে ভ্যাটের বিষয়ে ব্যাখ্যা দিয়ে ওই তথ্য বিবরণী আসে। সরকারের পক্ষ থেকে মোবাইল ফোনে এসএমএস দিয়েও পরিস্থিতি শান্ত করার চেষ্টা হয়। বিকালে সিলেট সার্কিট হাউসে এক সংবাদ সম্মলনে অর্থমন্ত্রী মুহিতও এ বিষয়ে কথা বলেন। ভ্যাট প্রত্যাহার করা হবে না জানিয়ে তিনি বলেন, “এটা প্রত্যাহার করার কোনো কারণ দেখছি না।”

এর পক্ষে তার যুক্তি, “একজন ছাত্র যে প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ে, তার এভারেজ দৈনিক খরচ এক হাজার টাকা। সেখানে আমি মাত্র সাড়ে ৭ পারসেন্ট দাবি করেছি। “আর এ টাকা বিশ্ববিদ্যালয়কে দিতে হবে। তারা যে হারে টাকা আদায় করে সে হারে এটা দিতেই পারে। তবে কোনো ফি বাড়াতে পারবে না।” ভ্যাট থেকে পাওয়া অর্থ জনগণের কল্যাণেই ব্যবহার হবে মন্তব্য করে মুহিত বলেন, “জনগণের জন্য সরকারের খরচের উৎস কোথায়? আমি মনে করি এটা একটা ভালো উৎস। যারা তাদের ছেলেমেয়েদের প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ান, তারা যথেষ্ট ধনী। নইলে দৈনিক এক হাজার টাকা খরচ করেন কীভাবে।”

শিক্ষা

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে