Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, সোমবার, ২০ মে, ২০১৯ , ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.1/5 (12 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৮-৩১-২০১৫

শাবিতে ছাত্রলীগের হামলার প্রতিবাদে কর্মবিরতি, র‌্যালি ও মানববন্ধন

শাবিতে ছাত্রলীগের হামলার প্রতিবাদে কর্মবিরতি, র‌্যালি ও মানববন্ধন

সিলেট, ৩১ আগষ্ট- শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয়ে আন্দোলনরত শিক্ষকদের ওপর ছাত্রলীগের হামলার প্রতিবাদে র‌্যালি ও সমাবেশ কর্মসূচি পালন করেছেন শিক্ষকরা। এছাড়া কালো ব্যাজ ধারণ ও  সকাল ৯টা থেকে  দুপুর ১২ টা পর্যন্ত কর্মবিরতিও পালন করেছেন ‘মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ শিক্ষক পরিষদ’।

অন্যদিকে শিক্ষকদের উপর বর্বরোচিত হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে বিশ বিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীরা। সোমবার সকাল ১০টায় কালোব্যাজ ধারণ করে ক্যাফেটেরিয়ার সামনে থেকে র‌্যালি শুরু করেন শিক্ষকরা। র‌্যালিটি প্রশাসনিব ভবন-২ (উপাচার্য ভবন) এর সামনে গিয়ে সমাবেশে মিলিত হয়। প্রচন্ড বৃষ্টি উপেক্ষা করে সেখানেই সমাবেশ করেন শিক্ষকরা।

সমাবেশে শিক্ষক সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো. ফারুক উদ্দিনের সঞ্চালনায় বক্তব্য দেন  অধ্যাপক মুহম্মদ জাফর ইকবাল , অধ্যাপক ইয়াসমিন হক, অধ্যাপক সৈয়দ সামসুল আলম,অধ্যাপক মস্তাবুর রহমান, অধ্যাপক তুলসী কুমার দাস ,অধ্যাপক আনোয়ারুল ইসলাম দিপু ,সহকারী প্রফেসর এমদাদুল হক , প্রভাষক মোস্তফা কামাল মাসুদ , আল আমিন রাব্বী , সৌরভ রায় প্রমুখ।

সমাবেশে অধ্যাপক মুহম্মদ জাফর ইকবাল বলেন, আমি তীব্র যন্ত্রণায় ভূগছি। আমার বিশ^বিদ্যালয়ের ছাত্ররা তাদের শিক্ষকদের উপর হামলা করতে পারে- এমন দৃশ্য আমাকে নিজ চোখে দেখতে হয়েছে। তিনি বলেন- শরীরের  আঘাতে কিছু আসে যায় না। কিন্তুমানসিক আঘাত কোনো দিন ভালো হয় না। ছাত্ররা শিক্ষকদের গায়ে আঘাত করেছে আর সেই দৃশ্য আমাকে বসে বসে দেখতে হয়েছে- এটা কখনো ভুলতে পারব না আমি।

অধ্যাপক ড. ইয়াসমিন হক বলেন , এই বিশ^বিদ্যালয়ে বিশ বছর শিক্ষাদানের প্রতিদান এভাবে পাবো সেটা কখনো ভাবিনি। শিক্ষামন্ত্রণালয় থেকে প্রাপ্ত পরিপত্রে ‘পুলিশি একশন’ এর কথা বললেও শিক্ষকদের উপর হামলা হলেও পুলিশ কোন ব্যবস্থা নেয়নি। যে ভিসি ঘন্টায় ঘন্টায় কথা পাল্টান তিনি কিভাবে একটি বিশ^বিদ্যালয়ের ভিসি হতে পারেন? যে শিক্ষকরা তিলে তিলে বিশ^বিদ্যালয়টিকে গড়ে তুলেছেন তাদের গায়ে হাত তুলার কি বিচার হতে পারে আমার জানা নেই। আমি কারো কাছে বিচার চাই না। কোনো বিচারের দাবিও করব না।

আন্দোলনরত শিক্ষক নেতা অধ্যাপক সৈয়দ সামসুল আলম  বলেন, এই বিশ^বিদ্যালয়ের ইতিহাসে সবচাইতে ন্যাক্কারজনক ঘটনা ঘটাল ছাত্রলীগ। যার নেতৃত্বে ছিলেন উপাচার্য অধ্যাপক আমিনুল হক ভূইয়া। উপাচার্যের লেলিযে দেয়া পেটোয়া বাহিনীর হাতে শিক্ষক সমাজ লাঞ্চিত হয়েছে এর চেয়ে লজ্জাজনক আর কিছু হতে পারে না।

এদিকে হামলা প্রতিবাদে দুপুর সাড়ে ১২টায় কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার ভবনের সামনে প্রচন্ড বৃষ্টি উপেক্ষা করে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে সাধারণ শিক্ষার্থীরা। মানববন্ধন শেষে শিক্ষার্থীরা একটি মিছিল বের করে ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে একই স্থানে এসে প্রতিবাদ সমাবেশে মিলিত হয়। সমাবেশ থেকে  শিক্ষার্থীরা হামলায় জড়িতদের কঠোর শাস্তি ও বিচারের দাবি জানান।

উল্লেখ্য, গত রোববার উপাচার্যেও অপসারণ দাবিতে মহান মুক্তিযুদ্ধেও চেতনায় উদ্বুদ্ধ শিক্ষক পরিষদেও শিক্ষকরা প্রশাসনিক ভবন-২ এর সমানে অবস্থান কর্মসূচি পালন করতে গেলে ছাত্রলীগ তাদের উপর হামলা করে ব্যানার কেড়ে নেয়। এঘটনায় অধ্যাপক ইয়াসমিনসহ ১০জন শিক্ষক আহত হন।

সিলেট

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে