Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, মঙ্গলবার, ২১ মে, ২০১৯ , ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.4/5 (17 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৮-২৫-২০১৫

কাজীরবাজার সেতুর জন্য সিলেট আসবেন প্রধানমন্ত্রী

কাজীরবাজার সেতুর জন্য সিলেট আসবেন প্রধানমন্ত্রী

সিলেট, ২৫ আগষ্ট- সিলেটের নগরীর বুক চিরে বয়ে যাওয়া সুরমা নদীর উপর নবনির্মিত ‘কাজীরবাজার সেতু’র কাজ প্রায় শেষ। উদ্বোধনের অপেক্ষায় রয়েছে সেতুটি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজে এসে সেতুটি উদ্বোধন করার সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছে আওয়ামীলীগের একটি সূত্র।

এর আগে গোলাপগঞ্জের একটি জনসভায় অন্য কয়েকটি উন্নয়ন কাজের উদ্বোধনের সাথে কাজিরবাজার সেতুর ফলকও উন্মোচন করার কথা ছিল। কিন্তু ওই সময় সেতুর কাজ পুরোপুরি সম্পন্ন না হওয়ায় প্রধানমন্ত্রী সেতুটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করতে পারেননি। বর্তমানে কাজীরবাজার সেতুর দক্ষিণ প্রান্তের সংযোগ সড়কের কাজ বাকি আছে। এটি শেষ হতে আরো কিছু সময় লাগবে। এরপরই সেতুটি উদ্বোধনের দিনক্ষণ নির্ধারিত হবে বলে সওজ সূত্রে জানা গেছে।

গত বৃহস্পতিবার সকালে তিনি সিলেট ও সুনামগঞ্জের দু’টি সেতু ঢাকা থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে উদ্বোধন করেন। সেতু দুটি হলো ঢাকা দক্ষিণ-চন্দরপুর-বিয়ানীবাজার সড়কে চন্দরপুর সেতু, সুনামগঞ্জ-কাঁচিরগাতি-বিশম্ভরপুর সড়কে সুরমা নদীর উপর নির্মিত আব্দুজ জহুর সেতু। গত  ২৯ এপ্রিল সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছিলেন জুন মাসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কাজীরবাজার সেতু উদ্বোধন করবেন। কাজ শেষ না হওয়ায় জুন পেরিয়ে আগস্টেও উদ্বোধন করা সম্ভব হয়নি।

এ ব্যাপারে সাবেক সংসদ সদস্য ও সিলেট জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী বলেন, বঙ্গবন্ধুর কন্যা দেশের সফল প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে দেশ দুর্বার গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে। দেশের প্রতিটি বিভাগে সেতু, সড়ক স্কুল-কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপিত হয়েছে এ সরকারের আমলেই। সিলেট বিভাগের ৪টি জেলাতে অবিস্মরনীয় উন্নয়নমূলক কাজ করেছে আওয়ামীলীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোট সরকার। তিনি জানান কাজীরবাজার সেতুটি প্রধানমন্ত্রী সিলেট এসে উদ্বোধন করার সম্ভাবনা রয়েছে।

উল্লেখ্য, প্রায় ১২৪ কোটি টাকা ব্যয়ে সেতুটির নির্মাণ কাজ শেষের পর্যায়ে। প্রথম অবস্থায় চার লেন বিশিষ্ট ৩৬৬ মিটার দীর্ঘ এবং ১৯ মিটার প্রস্থের অত্যাধুনিক একটি সেতু হিসেবে নির্মাণের পরিকল্পনা নিয়েছিলো সরকার। প্রাথমিক নির্মাণ ব্যয় ধরা হয় ৪৪ কোটি ৬৪ লাখ টাকা। ২০০৫ সালের ২৪ ডিসেম্বর ‘সুরমা সেতু’ নামে সেতুটির নির্মাণকাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন তৎকালিন অর্থ ও পরিকল্পনামন্ত্রী মরহুম এম. সাইফুর রহমান।

সেতুটির নির্মাণকাজ ২০০৭-০৮ অর্থবছরের মধ্যেই শেষ হওয়ার কথা ছিলো। নানা জটিলতায় নির্ধারিত সময়ে শেষ হয়নি কাজ। ২০০৯ সালে মহাজোট সরকার ক্ষমতায় এসে কাজিরবাজার সেতুর নকশা সংশোধন করে। এর সাথে বেড়ে যায় নির্মাণ ব্যয়। সেতুর দৈর্ঘ্য আরো ২৫ মিটার বৃদ্ধি করা হয়। সবমিলিয়ে বর্ধিত নির্মাণ ব্যয় দাঁড়ায় ১২৪ কোটি টাকা।

সিলেট

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে