Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, মঙ্গলবার, ২১ মে, ২০১৯ , ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.7/5 (23 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৫-০৩-২০১৫

নেপালের পাশে দাঁড়ালেন ফেসবুক ব্যবহারকারীরা

নেপালের পাশে দাঁড়ালেন ফেসবুক ব্যবহারকারীরা

কাঠমান্ডু, ০৩ মে- নেপালের সহায়তায় এগিয়ে এলেন ১৪০ কোটিরও বেশি মানুষের অন্যতম সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুক ব্যবহারকারীরা। গত মাসে নেপালে ভয়াবহ ভূমিকম্পে ক্ষতিগ্রস্তদের সাহায্যের জন্য হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন অনেকেই। নেপালের পাশে দাঁড়াতে ফেসবুক ব্যবহারকারীরা দ্রুততম সময়ের মধ্যে সহায়তায় এগিয়ে আসায় মাত্র দুই দিনে এক কোটি মার্কিন ডলার অর্থ তহবিল হিসেবে জমা করতে পেরেছে ফেসবুক। এক খবরে এ তথ্য জানিয়েছে আইএএনএস।

২৫ এপ্রিল রিখটার স্কেলে ৭.৯ মাত্রার ভয়াবহ এক ভূমিকম্পে হিমালয়ের পাদদেশের এই দেশটিতে ছয় হাজারের বেশি মানুষ মারা গেছে আর আহত হয়েছে ১০ হাজারেরও বেশি।

ফেসবুকের প্রধান নির্বাহী মার্ক জাকারবার্গ বলেছেন, ‘স্থানীয়ভাবে ত্রাণ সাহায্যের প্রচেষ্টাকে আরও বাড়াতে আমরা ফেসবুক ব্যবহারকারীদের কাছে একটি অপশন দিয়েছিলাম। মাত্র দুই দিনে পাঁচ লাখেরও বেশি মানুষ নেপালের দুর্দশাগ্রস্ত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর সেই ডাকে সাড়া দেন এবং এক কোটি ডলারেরও বেশি অর্থ দান করেছেন। ইন্টারন্যাশনাল মেডিকেল করপোরেশনের ত্রাণকার্যক্রমে এই তহবিল ব্যয় হচ্ছে।’

জাকারবার্গ আরও জানিয়েছেন, নেপালের ভূমিকম্পে ফেসবুকের পক্ষ থেকে ২০ লাখ ডলার দান করা হয়েছে যাতে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় আটকে পড়া মানুষকে উদ্ধারকার্যক্রমে ব্যয় করা হচ্ছে।

ইন্টারন্যাশনাল মেডিকেল করপোরেশনের ত্রাণকার্যক্রমে সহায়তার জন্য ফেসবুকে ‘ডোনেশান’ বাটন চালু করেন জাকারবার্গ। সেই বাটন চালুর দুই দিনের মধ্যেই ফেসবুক ব্যবহারকারীরা নেপালের পাশে দাঁড়ানোর জন্য সাড়া দিলেন।

ডোনেশান বাটন ছাড়াও ভূমিকম্পে বন্ধুরা নিরাপদ আছে কি না তা জানার জন্য ‘সেফটি চেক’ নামে একটি নিরাপত্তা ফিচার উন্মুক্ত করেছিল ফেসবুক, যাতে ৭০ লাখ মানুষ নিরাপদ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়। ‘সেফটি চেক’ নামের ফিচারটি ভূমিকম্প বা বড় কোনো ধরনের দুর্ঘটনার সময় পরিচিতজনেরা নিরাপদ আছে কি না—তা জানতে সাহায্য করে।
এর আগে ডোনেশান বাটন চালুর এক ব্লগ পোস্টে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ জানিয়েছিল, নেপাল, ভারত ও বাংলাদেশে ভূমিকম্পের প্রভাব পড়েছে। ভূমিকম্পে বিপদগ্রস্ত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য অনেকেই এগিয়ে এসেছেন। এখন অনেকেই তাঁদের নিউজ ফিডের ওপরে একটি বার্তা দেখতে পাবেন যাতে ইন্টারন্যাশনাল মেডিকেল করপোরেশনে সাহায্যের আবেদনের কথা বলা হবে।

ফেসবুক কর্তৃপক্ষের ভাষ্য, জরুরি সময়ে মানুষ এখন ফেসবুকে ঢুকে চারপাশে কী ঘটছে তা জানার চেষ্টা করে, নিজস্ব অভিজ্ঞতা প্রকাশ করে এবং বিপদে মানুষের পাশে এসে দাঁড়ায়।

দক্ষিণ এশিয়া

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে