Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বৃহস্পতিবার, ২৩ জানুয়ারি, ২০২০ , ১০ মাঘ ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.1/5 (15 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৩-২৮-২০১৫

প্রচলিত ধারণা ভাঙবেন যে সাত বাংলাদেশি পেসার!

প্রচলিত ধারণা ভাঙবেন যে সাত বাংলাদেশি পেসার!

বাংলাদেশ ক্রিকেটের ক্ষেত্রে একটা কথা প্রায়ই শোনা যায়। সেটা হল - এখানে নাকি তেমন গতির কোন পেসার নেই। কিন্তু তারা আসলে ভুল ভাবেন । এখানে পেস বোলিংয়ের গুনগত মান নয়, বরং গতি নিয়ে আলোচনা করা হবে। বর্তমানে পেসারদের মধ্যে জাতীয় দলে খেলার যোগ্য আছেন ৭ জন। এদের মধ্যে গতির একটা তালিকা করা হলো -

রুবেল হোসেন
দলে তার পরিচিতি ছিলো ফাস্ট-মিডিয়াম বোলার হিসেবে। নিয়মিত ১৩০ থেকে ১৩৬ গতিতে বল করতেন। কিন্তু ব্যাক্তিগত কিছু কারনে বিশ্বকাপ মিস করতে করতেও করলেন না , তখন সকল জমে থাকা রাগ যেন নিংড়ে দিলেন ব্যাটসম্যানদের ওপর। হাতে গোনা কয়েকটি বাদে তার বাকি সকল গোলাই ১৪০ থেকে ১৪৪.৫ কিমি/ঘন্টার এর গতিতে ছুটেছে। গড় গতি ১৪২ থেকে ১৪৩ কিমি/ঘন্টা। নিঃসন্দেহে এখন পর্যন্ত দেশের সেরা স্পিডস্টার।

তাসকিন আহমেদ
খুব সম্ভবত বাংলাদেশের সবচাইতে বেশি রেটেড বোলার। নিজের অভিষেকে ১৫১ কিমি/ঘন্টার কয়েকটি বল করে সবাইকে তাক লাগিয়ে দিয়েছিলেন। তবে সেটুকুই । এরপরে বাকি ম্যাচগুলোতে অতটা না পারলেও নিয়মিত ১৩৬ থেকে ১৪২ গতিতে বল করে গিয়েছেন। বর্তমানে তার গড় গতি প্রায় ১৪০ এর মতো। এখনো প্রায় তরুনই বলা চলে ,ইনশাল্লাহ ধীরে ধীরে তার গতি আরও বাড়বে।

শফিউল ইসলাম
খুব সম্ভবত বাংলাদেশ দলের সবচাইতে হ্যাংলা পাতলা খেলোয়াড়। একবার এক কোচ তাকে সর্বপ্রথম দেখে জিজ্ঞেস করেছিলেন, `তুমি ডিম খাও না?’ সবচাইতে বিস্ময়কর ব্যাপার হলো , এই হ্যাংলা পাতলা শরীর নিয়েও ২০১৪ পর্যন্ত তিনি ছিলেন বাংলাদেশের সবচাইতে ফাস্ট বোলার। সম্পূর্ন স্পিন সহায়ক পিচে নিয়মিত ১৩৬ গতি তোলা ছিলো তার ট্রেডমার্ক স্টাইল ।এবং একে উন্নত করে এখন তিনি স্পিনিং পিচে বা মরা পিচে ১৩৮ থেকে ১৪০ স্পীডে বোলিং করেন। তবে সাধারনত তার বলগুলো ১৩০ থেকে ১৩৮ এর মধ্যে হয়ে থাকে। গড় গতি ১৩৬ এর মতো।

আবুল হাসান রাজু
বর্তমান খেলোয়ারদের মধ্যে দ্বিতীয় আন্ডাররেটেড পেস বোলার। নিয়মিত ১২৫ কিমি/ঘন্টা থেকে ১৩৫ কিমি/ঘন্টা বেগে বল করতে পারেন। গড় গতি ১৩০ এর চাইতে বেশিই।

আল-আমিন হোসেন
দলের ডেথ বোলিং এর ভিত্তি তিনি। নতুন বলেও ভালোই বোলিং করতে পারেন। তার মূল অস্ত্র গতি নয় , কিন্তু তাই বলে গতি মোটেও কম নেই তার। ১২২ কিমি/ঘন্টা থেকে ১৩৫ কিমি/ঘন্টা এর মধ্যে বোলিং করেন। গড় গতি ১২৮ কিমি/ঘন্টা।

মাশরাফি বিন মুর্তজা
বাংলাদেশের সেরা পেসারের তকমা অর্জন করেছেন অনেক আগেই , কিন্তু সেটা ঠিক আগুনগতি দিয়ে নয়। এখনো বাংলাদেশ দলের সেরা পেসার , এবং তার পেছনেও গতির অবদান কমই। বারবার ইনজুরীর কবলে পড়েও তিনি এখনো মাঝেমধ্যে ১৩৬ গতিতে বল করতে পারেন। তবে সাধারনত ১২০-১৩০ এর মধ্যেই বল করেন। গড় গতি ১২৫+- কিমি/ঘন্টা । এবং তাতেই পরাস্ত হয় ব্যাটসম্যানেরা।

শাহাদাৎ হোসেন
বাংলাদেশের শাহরুখ খান নামে তাকে সবাই একনামে চেনে। দেশের বোলারদের মধ্যে অন্যতম লম্বা বোলিং রানআপ তার। বোলিং করার সময় নানারকম অদ্ভুতূরে আওয়াজ করে ব্যাটসম্যানদের দিকে ছুড়ে দেন এক-একটি আগুনের গোলা। তবে কোন গোলার গতি থাকে ১২০ কিমি/ঘন্টা , কোনটার গতি আবার থাকে ১৩২ কিমি/ঘন্টা। কালেভদ্রে ১৩৫কিমি/ঘন্টা এর কাঁটা ছুয়ে দেন। তার গড় গতি সাধারনত ১২২-১২৮ কিমি/ঘন্টা।

ক্রিকেট

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে