Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, সোমবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৯ , ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.6/5 (11 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৩-১৪-২০১৫

শেষ ম্যাচে অনন্য টেলর

শেষ ম্যাচে অনন্য টেলর

অকল্যান্ড, ১৪ মার্চ- অপশাসনে রিক্ত জিম্বাবুইয়ান ক্রিকেট ধরে রাখতে পারে না তার কোনো সূর্য সন্তানকেই। অতীতে দেশটি ধরে রাখতে পারেনি অ্যান্ডি ফ্লাওয়ার, গ্র্যান্ট ফ্লাওয়ার হেনরি ওলঙ্গা কিংবা হিথ স্ট্রিকের মতো ক্রিকেটারকে। জিম্বাবুয়ে ধরে রাখতে পারল না ব্রেন্ডন টেলরকেও। দেশের হয়ে আজ অকল্যান্ডে শেষ ম্যাচটি খেলে ফেললেন তিনি। দেশটির ক্রিকেট ইতিহাসের অন্যতম সেরা এই ক্রিকেটারটি বিশ্বকাপে টানা দ্বিতীয় আর দেশের হয়ে অষ্টম সেঞ্চুরিটি করে জিম্বাবুয়ের হয়ে ক্যারিয়ারের শেষ কর্ম দিবসটা অনন্য করে রাখলেন তিনি।

‘কলপ্যাক’ চুক্তিতে তিনি বিশ্বকাপের পরপরই পাড়ি জমাবেন ইংলিশ কাউন্টি দল নটিংহ্যামশায়ারে। কলপ্যাক চুক্তির অর্থ এই যে তিনি আপাতত আর জিম্বাবুয়ের হয়ে খেলতে পারবেন না। ব্যাপারটা আর কিছুই নয়, এই চুক্তির অর্থই হলো টেলর এখন থেকে না যতটা জিম্বাবুইয়ান, তার চেয়ে অনেক বেশি ‘ইংলিশ’। দেশের ইতিহাসের তৃতীয় সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক আর সর্বোচ্চ সেঞ্চুরির মালিককে ‘কলপ্যাক’ চুক্তির অধীনে হারাতে হচ্ছে, ক্রিকেট দুনিয়ায় জিম্বাবুয়ে নিজেদের সবচেয়ে বড় দুর্ভাগা ভাবতেই পারে!

ওয়ানডে ক্রিকেটে জিম্বাবুয়ের হয়ে রান করায় টেলরের ওপরের দুটি স্থান, দুই বিখ্যাত ‘ফ্লাওয়ার’ ভাইয়ের। গ্র্যান্ট ফ্লাওয়ার আছেন এই তালিকার দ্বিতীয় স্থানে, অ্যান্ডি ফ্লাওয়ার প্রথম স্থানে। মজার ব্যাপার হচ্ছে জিম্বাবুইয়ান রাজনীতির বলি হয়ে দুই ‘ফ্লাওয়ার’ ভাই-ই দেশ ছেড়েছেন, ছেড়েছেন জাতীয় দল। টেলর রাজনীতির শিকার হয়েছেন কি না, সেটা পুরোপুরি জানা না গেলেও দেশ ছাড়ছেন তিনিও। দেশ ছাড়ছেন অনেকটা পেটের দায়েই। দেশপ্রেম অনেক সময় গৌণ হয়ে উঠতে পারে, যখন আর্থিক অনিরাপত্তা গ্রাস করে কাউকে। জিম্বাবুয়ের পতাকাতলে খেলাটা সম্মানের হলেও অর্থকরী যে নয় মোটেও।

আজ অকল্যান্ডে জিম্বাবুয়ের হয়ে শেষ ইনিংসটা টেলর খেললেন অসম্ভব আত্মপ্রত্যয়ের সঙ্গে। নিজের প্রতিভার পূর্ণ সদ্ব্যবহার করে। তিনি যে জিম্বাবুয়ের ক্রিকেটের মানের তুলনায় অনেক উঁচু মানের খেলোয়াড়—আজ অকল্যান্ডে বিদায়ের বেলায় এই ব্যাপারটি যেন নতুন করে সবাইকে টেলর জানিয়ে গেলেন। তাঁর ১৩৮ রানের অনবদ্য ইনিংসটি এসেছে ১১০ বলে, ১৫টি চার ও পাঁচটি ছয়ের মারে। ভারতীয় বোলারদের সাধারণের স্তরে নামিয়ে নিয়ে আসা এই ইনিংস যেন চারদিকে ছড়িয়ে গেল একরাশ আফসোসই।

এমন ক্রিকেটারকে আর কোনো দিন দেখা যাবে না আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে?

১৪ মার্চ ২০১৫/০৩:৩৫পিএম/চৈতি/

ক্রিকেট

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে