Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, রবিবার, ১৯ জানুয়ারি, ২০২০ , ৬ মাঘ ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.9/5 (18 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৩-১৮-২০১২

তত্ত্বাবধায়ক মানে ধরে আনো, মারো: শেখ হাসিনা

তত্ত্বাবধায়ক মানে ধরে আনো, মারো: শেখ হাসিনা
আওয়ামী লীগ সভানেত্রী এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সমালোচনা করে বলেছেন, ‘‘তত্ত্বাবধায়ক সরকার ছিল আতঙ্কের নাম। তাদের কাজ ছিল মানুষকে মারধোর করা। অন্যদিকে বিএনপি আমলের সমালোচনা করে তিনি বলেছেন, ‘‘বিএনপি আমলে বাংলাদেশের মানুষদের ওপর পাকিস্তানি বাহিনীর মতো অত্যাচার চালানো হয়েছিল।’’

রোববার বিকেলে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিন উপলক্ষে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।


শেখ হাসিনা বলেন, ‘‘তত্ত্বাবধায়ক সরকার কি করেছে? রাজনীতিবিদ, পেশাজীবী, শিক্ষক, ছাত্র, ব্যবসায়ী- তাদেরকে ধরো মারো। ধরে আনো, এই করেছে। একটা আতঙ্ক সৃষ্টি করেছে।’’

বিএনপি আমলের অত্যাচারের কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, ‘‘বিএনপি সরকার কি করেছিল, পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী যা করেছিল, তারা তা করেছে। তারা দেশের দিকে তাকানোর সুযোগ পায়নি। তারা দুর্নীতি করেছে, ঘুষ নিয়েছে। ওই দুর্নীতি করা টাকা, লুটপাট করা, মানুষ হত্যা করা, গ্যাংরেপ করা ছাড়া আর কিছুই করেনি তারা।’’

বিএনপিকে ঈঙ্গিত করে তিনি বলেন, ‘‘করার ইচ্ছেই ছিল না। থাকবে কি করে ওই পরাজিত শক্তির কাছে টাকা খেলে সে ইচ্ছে হবে কিভাবে।’’

প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে উদ্দেশ্য করে বলেন, ‘‘এখন রাজকার আলবদরদের রক্ষা করার জন্য ভদ্রমহিলা উঠেপড়ে লেগেছেন। আপনার স্বামীও চেষ্টা করেছিলেন বঙ্গবন্ধুর খুনীদের রক্ষা করতে, পারেননি। আপনিও চেষ্টা করেছেন, পারেননি। এখন যুদ্ধাপরাধীদের বাঁচাতেও পারবেন না।’’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘‘আওয়ামী লীগ পারে এদেশের মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে।’’

সরকারের সফলতা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘‘মিয়ানমারের সাথে সমুদ্রসীমার বিরোধ আমদের হয়েছে। পাশাপাশি দুই প্রতিবেশী রাষ্ট্র ভারত এবং মিয়ানমারের সাথে বন্ধুত্বপূর্ণ সর্ম্পক বজায় রেখেই আমরা আমাদের ন্যায্য হিস্যা আদায় করে এনেছি। এটা আমাদের পররাষ্ট্রনীতির অন্যতম সফলতা।’’

আগের কোনো সরকারই এই অর্জন দেশকে এনে দিতে পারে নি উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘‘আমাদের সমুদ্রসীমার বিশাল এলকা এখন আমাদের অধিকারে এসেছে। এর আগে এরাশাদ সরকার, বিএনপি সরকার এমনকি হোমড়া চোমড়াদের দিয়ে গঠিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারও তা পারেনি।’’

শেখ হাসিনা ২০১৪ সালে সুখবর আসতে পারে জানিয়ে বলেছেন, ‘‘মায়ানমারের সাথে সমুদ্রসীমা নির্ধারণের পর ভারতের সাথে সমুদ্রসীমা নিয়ে মামলা করা হয়েছে। আগামী ২০১৪ সাল নাগাদ ফলাফল আসবে। আশা করি ২০১৪ সালের নির্বাচনে জয়ী হলে আবার একটি সুখবর দিতে পারবো।’’

তিনি এসময় বলেন, ‘‘সমুদ্রসীমা অর্জনের জন্য সরকারকে ব্যাপক পরিশ্রম করতে হয়েছে।’’

শেখ হাসিনা এসময় দলের নেতাকর্মীদের শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে সাদাসিধে জীবন যাপন করে দেশের মানুষের জন্য রাজনীতি করার পরামর্শ দেন।

আলোচনা সভায় আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা বক্তব্য রাখেন।

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে