Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, সোমবার, ১১ নভেম্বর, ২০১৯ , ২৭ কার্তিক ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (39 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)


আপডেট : ০৩-০১-২০১৫

 অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ড ম্যাচে ‘বিতর্ক’

সামিউল ইসলাম শোভন


 অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ড ম্যাচে ‘বিতর্ক’

এক দেশের গ্রেটদের সঙ্গে অন্যদেশের গ্রেটদের নাম জোড়া লাগিয়ে দ্বিপাক্ষিক সিরিজের আয়োজনের ইতিহাস নতুন কোন ঘটনা নয়; বেশ আগের থেকেই এর প্রচলন।

ভারত ও অস্ট্রেলিয়ার মধ্যে অনুষ্ঠিত হয় বোর্ডার-গাভাস্কার ট্রফি; কিংবা অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের মধ্যকার চ্যাপেল-হ্যাডলি ট্রফি। দ্বিতীয় নামটা একটু অপরিচিত ঠেঁকতে পারে; কারণ, দেশ দু’টির মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের অবনতি।

তবে অন্যান্য সিরিজের সাথে এর একটা ‘মৌলিক’ পার্থক্যও আছে!

২০০৪ সালের কথা। অস্ট্রেলিয়া এবং নিউজিল্যান্ডের দুই কিংবদন্তী ক্রিকেটার গ্রেগ চ্যাপেল ও রিচার্ড হ্যাডলির স্মরণে শুরু হয় পাঁচ ম্যাচের চ্যাপেল-হ্যাডলি ওয়ানডে সিরিজ। কিন্তু হঠাৎ করেই ২০১০ সালের পর থেকে এই সিরিজের বন্ধ হয়ে যায়। ফিউচার টুর প্রোগ্রাম (এফটিপি) হোক আর অভ্যন্তরীণ সম্পর্কই হোক, এখন পর্যন্ত আর পাঁচ ম্যাচের পূর্নাঙ্গ সিরিজ খেলেনি ম্যাককালাম-ক্লার্করা। সিরিজ না হোক, ট্রফি তো দুই দলের একজনকে দিতে হবে! কি করা যায়?

শেষ পর্যন্ত সিদ্ধান্ত হলো, যে কোন বহুজাতিক টুর্নামেন্টের মধ্যে অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের মধ্যে যদি কাকতালীয়ভাবে ম্যাচ পড়ে, তাহলে ওই ম্যাচই হবে ওপেনিং ম্যাচ এবং ফাইনাল ম্যাচ। যে জিতবে, ট্রফি তার!
এমন অদ্ভুত সিদ্ধান্তে অন্যেরা অবাক হলেও, সহমত জানিয়েছিলো ওই দুই খেলুড়ে দল। কিন্তু লাভের লাভ খুব একটা হয়নি। ২০১১ বিশ্বকাপে নাগপুরে অস্ট্রেলিয়ার কাছে সাত উইকেটে পরাজিত হয় ব্ল্যাক ক্যাপরা। ফলে ট্রফি যায় অজিদের হাতে। দুই বছর পরেই, আইসিসি চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে দুই দল ফের মুখোমুখি হলেও, বিধাতা হয়তো এই সিরিজের এমন করুণ হাল চাননি। আর চাননি বলেই ম্যাচ পতিত হয় বৃষ্টির মুখে এবং যথারীতি পরিত্যক্ত। সর্বশেষ ২০১৫ বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্বের ম্যাচে শনিবার অস্ট্রেলিয়াকে এক উইকেটে পরাজিত করে ট্রফি যেতে ম্যাককালাম বাহিনী।

এখন পর্যন্ত দুই দলের কতৃপক্ষের কেউই জানেন না পুনরায় কবে থেকে একটি সম্পূর্ণ সিরিজের মাধ্যমে অনুষ্ঠিত হবে চ্যাপেল-হ্যাডলি সিরিজ।

এতো গেলো পুরনো কথা। নতুনটি হলো, বিশ্বকাপ কিংবা এই ধরণের বহুজাতিক টুর্নামেন্টের মধ্যে এক ম্যাচেই দ্বিপাক্ষিক সিরিজ আয়োজনের যোক্তিকতা ঠিক কতটুকু তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন ক্রিকেট বোদ্ধারা। এছাড়া বিশ্বকাপের মধ্যে যে এই কান্ড হচ্ছে, এর জন্য কিন্তু দুই দলের কেউই আইসিসি থেকে কোন ধরণের অনুমতি নেয়নি!

শনিবারের ম্যাচ শেষে তো সাবেক ভারতীয় কিংবদন্তী সুনীল গাভাস্কার সরাসরিই সমালোচনা করে বসলেন এই ম্যাচের। নিজের কলামে তিনি লেখেন, ‘আইসিসিকে আরো শক্ত হওয়া উচিত। কারণ বিশ্বকাপের মধ্যেই এই সিরিজের ম্যাচ আয়োজন করা, তাও আবার আইসিসির অনুমতি না নিয়েই। এটা সত্যিই দুঃখজনক। আমি এখনো বুঝতে পারছি না, বিশ্বকাপের মধ্যে আরো একটি টুর্নামেন্ট খেলাবার চিন্তা তারা করছেটাই বা কিভাবে!’

নিউজিল্যান্ডের সাথে অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেট কতৃপক্ষের সম্পর্কের অবনতির কথা পুরনো নয়। তবে এই ধরণের টুর্নামেন্টের মধ্যেই আরো একটি টুর্নামেন্টের ম্যাচ খেলানো যে আর খুব বেশীদিন সম্ভব হবে না, সেটা খাতা কলমে না আসলেও, একরকম নিশ্চিতই বলতে হবে।

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে