Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শুক্রবার, ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৯ , ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (51 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০২-১৩-২০১৫

দিনে দুই পরীক্ষা হবে না

দিনে দুই পরীক্ষা হবে না

ঢাকা, ১৩ ফেব্রুয়ারী- অবরোধ-হরতালের কারণে কয়েক দফায় পেছানো হলেও চলতি এসএসসি পরীক্ষা সকাল-বিকাল দুটি করে নেওয়া হবে না বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ।

শুক্রবার সকালে মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজে এসএসসি পরীক্ষা কেন্দ্র পরিদর্শনকালে পরীক্ষার্থীদের অভিভাবকদের মন্ত্রী একথা জানান।

তিনি বলেন, “সকাল-বিকাল দুটি করে পরীক্ষা নেওয়া হবে না। এটা গুজব, আপনারা এই গুজবে কান দেবেন না।

“আমি ছেলে-মেয়েদের সাথে মিশি, তাদের মনের কথা বুঝি। দিনে দুটি পরীক্ষা নেব না। আমরা দিনে দুটি করে পরীক্ষা দিয়েছি, সেই দিন আর নেই। কৌশলে পরীক্ষাগুলো শেষ করে ঠিক সময়েই ফল দিয়ে দেব।”

পরীক্ষাকেন্দ্রের সামনে শিক্ষামন্ত্রীকে দেখে তার কাছে সন্তানদের নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বেগ জানান অনেক অভিভাবক। দিনে দুটি করে পরীক্ষা নেওয়া হবে কি না তা জানতে চান তারা।

চলমান পরিস্থিতির উত্তরণে কয়েকজন অভিভাবক দুই নেত্রীকে সংলাপে বসাতে শিক্ষামন্ত্রীর প্রতি আহ্বান জানালেও মন্ত্রী এ বিষয়ে কিছু বলেননি।


বিএনপি নেতৃত্বাধীর ২০ দলীয় জোটের হরতালের কারণে পিছিয়ে দেওয়া গত ৮ ফেব্রুয়ারির পরীক্ষা হচ্ছে শুক্রবার।

এদিন সকাল ৯টা থেকে এসএসসিতে ইংরেজি (আবশ্যিক) প্রথম পত্র, দাখিলে আরবি প্রথম পত্র, এসএসসি ভোকেশনালে গণিত-২ (১৯২৩) ও গণিত-২ (৮১২৩) এবং ভোকেশনাল দাখিলে গণিত-২ (১৭২৩) ও গণিত-২ (৮৫২৩) বিষয়ের পরীক্ষা হচ্ছে।

নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেন, “গায়ের জোরে পরীক্ষা নেব সেই শক্তি আমাদের নেই। আর শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তাই আমাদের কাছে সব থেকে বড়।”

পরীক্ষার সময়ে হরতাল-অবরোধে শিক্ষার্থীদের মারাত্মক ক্ষতি হচ্ছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, “নতুন প্রজন্মকে নিয়ে আমি চিন্তিত। কিন্তু পরীক্ষার থেকে তাদের নিরাপত্তাই আমাদের কাছে বড়।”

হরতালের মধ্যে শিক্ষার্থীরা মানসিক চাপ, আতঙ্ক আর অনিশ্চয়তার মধ্যে পরীক্ষায় বসছে বলেও মনে করেন শিক্ষামন্ত্রী।

‘বোমা মেরে মানুষ হত্যা’ বন্ধ করতে বিএনপি জোটের প্রতি আহ্বান জানিয়ে নাহিদ বলেন, “পারলে মানুষ নিয়ে গণঅভ্যুত্থান করে ক্ষমতা দখল করুন। দয়া করে আর হরতাল দেবেন না, আমি করজোড়ে বলছি।”

হরতালের কারণে এসএসসি ও সমমানের গত ২, ৪, ৮, ১০ ও ১২ ফেব্রুয়ারির পরীক্ষা পিছিয়ে দিতে হয় শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে, পিছিয়ে যায় ৩৭টি বিষয়ের পরীক্ষা।

হরতালের কারণে এবারের এসএসসি পরীক্ষা শুরুর পর চার দিনের পরীক্ষাই সাপ্তাহিক ছুটির দিনে হল।

মাধ্যমিক পর্যায়ের সমাপনী পরীক্ষায় এবার ২৭ হাজার ৮০৮টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ১৪ লাখ ৭৯ হাজার ২৬৬ জন শিক্ষার্থী অংশ নিচ্ছে।

বিএনপি-জামায়াত জোটের হরতালে ২০১৩ সালে এসএসসির ৩৭টি বিষয় এবং এইচএসসির ৪১টি বিষয়ের পরীক্ষা পিছিয়ে যায়।

ওই বছরের জেএসসি-জেডিসির ১৭টি বিষয় এবং প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনীর দুটি বিষয়ের পরীক্ষা হরতালের কারণে পিছিয়ে দেওয়া হয়।

গত বছরের শেষ দিকে অনুষ্ঠিত জেএসসি-জেডিসি এবং প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী পরীক্ষাও বিএনপির হরতালের কবলে পড়লে বেশ কয়েকটি পরীক্ষাও পিছিয়ে যায়।

শিক্ষা

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে