Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বুধবার, ১৭ জুলাই, ২০১৯ , ২ শ্রাবণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.4/5 (21 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৩-০৬-২০১২

সাড়া জাগাচ্ছে বিস্ময়কর ক্যামেরা ‘লিট্রো’

সাড়া জাগাচ্ছে বিস্ময়কর ক্যামেরা ‘লিট্রো’
বাজারে এসেছে নতুন একটি ছোট্ট ক্যামেরা৷ কিন্তু ইতোমধ্যেই এটি শোরগোল ফেলেছে ঢের৷ প্রযুক্তি বিশ্লেষকরা বলছেন, ‘লিট্রো’ নামের এই ছোট্ট ক্যামেরাই মাত করে দেবে দুনিয়ার বাজার৷ কিন্তু কী এমন বিশেষত্ব আছে এই নতুন ক্যামেরার?
ছবিটা তোলা হয়ে গেছে৷ যে মুহূর্তটা বন্দি হয়েছে ক্যামেরায় সেটিও শেষ৷ কিন্তু মনটা ভরে নি আপনার৷ ক্যামেরার মনিটরে, কম্পিউটারের স্ক্রিনে ছবিটাকে যতোবার দেখছেন, ততোবারই মনে হচ্ছে, আহা ! ছবিটাকে একটু যদি পাল্টে দেয়া যেতো!

 

হ্যাঁ, এবার সে বাসনা পূরণ হবে আপনার৷ ছবিটা আগে তোলে তারপর কম্পিউটার স্ক্রিনে নিজের ইচ্ছে মতো পাল্টে দেয়া যাবে ছবিটার ফোকাস৷

 

‘লিট্রো’ নামে এই বিশেষ ক্যামেরাটি ক'দিন হলো বাজারে এসেছে৷ যেহেতু ছবিটা আপনি আগেই ‘শুট' করতে পারছেন আর ‘ফোকাস'টা সেট করতে পারছেন পরে, সেহেতু ‘লিট্রো’ কর্তৃপক্ষ ক্যামেরাটির শ্লোগানে বলছে, ‘শুট নাউ, ফোকাস লেটার’৷ অর্থাৎ শ্লোগানটির বাংলা করলে দাঁড়ায়, ‘আগে শুট করো, পরে ফোকাস’৷

 

আকারে খুবই ছোটো আর দেখতে টেলিস্কোপের মতো গড়নের এই ক্যামেরায় রয়েছে অত্যন্ত শক্তিশালী কিছু সেন্সর৷ এ সেন্সরগুলো প্রচলিত ক্যামেরার চেয়ে অনেক বেশি পরিমাণে আলো ধরতে পারে৷ আর এই ‘লাইট ফিল্ড টেকনোলজি’কে কাজে লাগিয়েই ছবির ফোকাল পয়েন্ট পাল্টানোর কাজটি করা হয়৷

 

তবে, মজার ব্যাপার হলো বড় কোনো নামি-দামি কোম্পানি কিন্তু এটি আবিষ্কার করে নি৷

 

রেন নং নামের একজন পিএইচডি গবেষক অ্যামেরিকার স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে কম্পিউটার সায়েন্স নিয়ে গবেষণা করতে করতেই আবিষ্কার করেন এটি৷ এরপর লিট্রো কোম্পানি বাজারে আনে ক্যামেরাটি৷ এ কোম্পানির প্রধান নির্বাহীও হলেন আবিষ্কারক মিস্টার নং৷

 

আবিষ্কারক ও লিট্রোর প্রধান রেন নং এই ক্যামেরায় তোলা ছবিগুলোকে ‘লিভিং পিকচারস’ বা ‘জীবন্ত ছবি’ বলে উল্লেখ করেছেন৷

 

এই ক্যামেরার ১৬ গিগাবাইট মডেলে ছবি তোলা যাবে ৭৫০টি ৷ দাম পড়বে প্রায় ৩৫ হাজার টাকা৷ আর ৮ গিগাবাইট মডেলে ছবি তোলা যাবে ৩৫০টি, দাম প্রায় ২৮ হাজার টাকা৷

 

এদিকে, লিট্রো বাজারে আসার পর থেকে চারদিকে কেবলি প্রশংসা আর উচ্ছ্বাসের ছড়াছড়ি৷ ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল কাগজে লিট্রোকে নিয়ে লিখেছে, ‘ক্যামেরার প্রচলিত ধারণাটাকেই একেবারে পাল্টে দিয়েছে লিট্রো৷’ আর অ্যামেরিকার নিউইর্য়ক টাইমস কাগজে লিট্রোকে বলা হয়েছে এক ‘তাজ্জব’ লাগানো আবিষ্কার৷

 

তবে কি-না লিট্রো ক্যামেরা থেকে এখনো সব ধরণের কম্পিউটারে ছবিগুলো ব্যবহার করা যায় না৷ কেবল ম্যাকেনটশ কোম্পানির কম্পিউটারেই কাজ করা যায় লিট্রোর ছবিগুলো নিয়ে৷ তাই যতো তাড়াতাড়ি সম্ভব এটিকে মাইক্রোসফ্ট উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেম-এর উপযোগী করার উদ্যোগ নিয়েছে লিট্রো কর্তৃপক্ষ৷

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে