Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, সোমবার, ১৭ জুন, ২০১৯ , ৩ আষাঢ় ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (24 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ১০-০৬-২০১১

গিবসনের শঙ্কা, মাহমুদের আশা

গিবসনের শঙ্কা, মাহমুদের আশা
শারজা থেকে বোধ হয় ক্লান্তি নিয়েই ঢাকায় এল ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল! পরশু সন্ধ্যায় পৌঁছে রাতটা ঘুমিয়েও দূর হয়নি সেই ক্লান্তি। কাল বেলা সাড়ে ১২টা থেকে আড়াইটা, আড়াইটা থেকে সাড়ে তিনটা, দুই দফা পেছানো হলো সংবাদ সম্মেলন। কারণ একটাই?আরেকটু বেশি বিশ্রাম নেওয়া।
মাঠে আসার পর মূলত অধিনায়ক ড্যারেন সামি আর কোচ ওটিস গিবসনের সংবাদ সম্মেলনই হলো। আর অনুশীলন বলতে দৌড়ে-ফুটবল খেলে ঘণ্টা খানেক হালকা গা গরম। কে জানে, সফরে এসে প্রথম দিনেই হয়তো সব দেখিয়ে ফেলতে চাননি ক্যারিবীয় কোচ ওটিস গিবসন।
বিশ্বকাপের সময়ও ঢাকায় ওয়েস্ট ইন্ডিজের অনুশীলনে অনেক গোপনীয়তা ছিল। এবারও যেন সে রকমই মনোভাব কোচের। বিসিবির মিডিয়া ম্যানেজারের মাধ্যমে জানিয়ে দিলেন, সংবাদমাধ্যম অনুশীলনের সময় যতটা সম্ভব দূরে থাকলেই ভালো।
সংবাদ সম্মেলনে একজন জানতে চাইলেন, শারজার প্রস্তুতির মধ্যে বাংলাদেশ দল নিয়ে অনেক হোমওয়ার্কও ছিল নিশ্চয়ই...। সেখানেও নিজেদের আড়াল করার চেষ্টা ক্যারিবীয় কোচের, ?বলে দিলে তো সেটা আর হোমওয়ার্ক থাকল না...!? তবে বাংলাদেশের স্পিনারদের সামলানোর প্রস্তুতিটা যে ভালোভাবেই নিয়ে এসেছেন, কথায় আভাস থাকল, ?বাংলাদেশের স্কোয়াডে চারজন বাঁহাতি স্পিনার আছে, এটা বোঝাই যাচ্ছে ওরা স্পিন দিয়ে আমাদের ঘায়েল করার চেষ্টা করবে। তবে দুবাইয়ে সপ্তাহ খানেক আমরা ভালো প্রস্তুতি নিয়েছি। সংযুক্ত আরব আমিরাতে কয়েকটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলেছি, সেই দলে বেশ কতজন স্পিনার ছিল।? দলের টিম মিটিংয়েও নাকি বাংলাদেশের স্পিন নিয়মিত আলোচ্য বিষয়। বিশ্বকাপে ৫৮ রানে অলআউট করে দিলেও নিজেদের জল-হাওয়ায় বাংলাদেশ কখনো কখনো ?বড় দল? হয়ে উঠতে পারে, সেটা মানেন ওটিস গিবসনও।
এর আগে দুপুরে অনুশীলন শেষে বাংলাদেশ সহ-অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহও মনে করিয়ে দিয়ে গেছেন কথাটা। তা ছাড়া ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে বাংলাদেশের ৫৮ রানে অলআউট হওয়ার লজ্জা থাকলেও এখন পর্যন্ত হওয়া দুই দলের দুটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচেও তো জয়-পরাজয় সমান! ?দক্ষিণ আফ্রিকায় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে আমরা ওদের হারিয়েছিলাম। তখন ওরা আরও শক্তিশালী দল ছিল। যদি আমরা সামর্থ্য অনুযায়ী খেলতে পারি ইনশাআল্লাহ, পজিটিভ ফলাফল সম্ভব??আশা বাংলাদেশ সহ-অধিনায়কের।
২০০৯ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজে গিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে আসার সুখস্মৃতিটাও হাওয়া দিচ্ছে মাহমুদউল্লাহর আত্মবিশ্বাসের পালে। দেবেন্দ্র বিশুর লেগ স্পিনের চেয়ে কেমার রোচদের পেস বোলিংকে বাংলাদেশ দলের জন্য বড় সমস্যা মনে করলেও বলেছেন, ?তখনো পেস বোলিংয়ে কেমার রোচ ছিল, টিনো বেস্টও ছিল। প্রস্তুতি ম্যাচের বা বিসিবি কাপের ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে পারলে সেটার প্রতিফলন আমরা ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজে দেখাতে পারব আশা করি। ওপেনিং ব্যাটসম্যানরা যদি ভালো একটা শুরু এনে দেয় এবং মিডল-অর্ডারে আমরা সেটা ধরে রাখতে পারি, বড় রান সম্ভব।?
জিম্বাবুয়ে সিরিজের ব্যর্থতা ঢাকার জন্য সেটা প্রয়োজনও। ওই একটা সিরিজ কত ওলট-পালটই না ঘটিয়ে দিল বাংলাদেশের ক্রিকেটে! নেতৃত্বের অংশ হয়ে মাহমুদউল্লাহ ভালোই বুঝতে পারছেন, ওই ব্যর্থতার পর ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজ কতটা গুরুত্বপূর্ণ। তবে এই সিরিজের আগে দীর্ঘ প্রস্তুতি আশাবাদী করছে তাঁকে, ?প্রস্তুতি এবার খুব ভালো হয়েছে। সবাই খুব কষ্ট করেছি যেন ভালো ফলাফল করতে পারি। আমাদের ফিরে আসার জন্য এই সিরিজটা খুব গুরুত্বপূর্ণ।?
অনুশীলনে এবার প্রস্তুতি ম্যাচের ওপরই জোর বেশি। সিরিজ শুরুর আগে ফতুল্লায় আজ শেষ টি-টোয়েন্টি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবেন বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা। লাল ও সবুজ দলের এই ম্যাচ শুরু বেলা ১টায়। ওয়েস্ট ইন্ডিজ অবশ্য দিনটা কাটাবে অনুশীলনেই। চ্যাম্পিয়নস লিগ খেলে সহকারী কোচসহ বাকি পাঁচ ক্রিকেটার কাল ঢাকায় এসেছেন। প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচের আগের দিনের অনুশীলনে তাই পুরো দলকেই হাতে পাচ্ছেন ওটিস গিবসন।

ফুটবল

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে