Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শনিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ , ১০ ফাল্গুন ১৪২৬

গড় রেটিং: 4.1/5 (105 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ১১-১৪-২০১৪

শুক্রবার ওয়াশিংটন ন্যাশনাল ক্যাথেড্রাল আয়োজন করছে মুসলিমদের জুম্মার নামাজের

শুক্রবার ওয়াশিংটন ন্যাশনাল ক্যাথেড্রাল আয়োজন করছে মুসলিমদের জুম্মার নামাজের

ওয়াশিংটন, ১৪ নভেম্বর- মুসলিম ও অন্যান্য ধর্মাবলম্বীরা এর আগে খ্রিস্টানদের বা আন্ত-বিশ্বাসী বিভিন্ন অনুষ্ঠানে ক্যাথেড্রালে গিয়েছে। এবার প্রথম আমেরিকান মুসলিমদের আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে ক্যাথেড্রালে পবিত্র জুম্মার নামাজ আদায় করার জন্য। উল্লেখ্য এখানে প্রেসিডেন্টদের শেষকৃত্যসহ অন্যান্য জাতীয় ধর্মীয় অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

সাউথ আফ্রিকার অ্যাম্বেসেডর এব্রাহিম রাসুল এই অনুষ্ঠানের আয়োজনে সহযোগিতা করছেন, তিনিই খুতবা পাঠ করবেন- এমনটিই জানায় ওয়াশিংটন পোস্ট।
হাফিংটন পোস্টকে এব্রাহিম রাসুল বলেন, “এটি দুই ধর্মের অনুসারীদের ভেতর সংহতির ক্ষেত্রে একটি বিশাল দলিল হয়ে থাকবে। খ্রিস্টানদের ধর্মের দাপটে মুসলিমদের ধর্মের বিরাট সম্ভাবনা ব্যাহত হওয়া এবং মধ্যপ্রাচ্যে থাকা খ্রিস্টানদের অস্তিত্ব সর্বদা হুমকির মধ্যে থাকার মতো ব্যাপার যেহেতু বিদ্যমান।

এব্রাহিম রাসুল ও ক্যাথেড্রালের ডিরেক্টর অব লিটারজি রেভারেন্ড ক্যানন জিনা গিল্যান্ড ক্যাম্পবেলের মধ্যে হওয়া এক কথোপকথনের মাধ্যমে এই আয়োজনের সূত্রপাত। নেলসন ম্যান্ডেলার স্মৃতির জন্য একটি অনুষ্ঠানের পরিকল্পনা করার সময় দুজনের দেখা হয়।
ক্যাথেড্রালের মাঝখানে দাঁড়িয়ে রাসুল ক্যাম্পবেলকে বলেছিলেন যে এই গির্জার খোদাইয়ের কাজ, খিলান এবং মাঝখান দিয়ে যাওয়া লম্বা খোলা জায়গা তাঁকে প্রাচীন মসজিদের কথা মনে করিয়ে দিচ্ছে।

হাফিংটন পোস্টকে ক্যাম্পবেল বলেন, “তিনি যেভাবে আমাদের গির্জার মধ্যে তাঁদের মসজিদ দেখতে পেলেন তা আমাকে নাড়া দিয়েছে। একই ভবনে দাঁড়িয়ে আমাদের যার যার প্রার্থনার ঐতিহ্য দেখতে পাওয়ার অসম্ভব শক্তিশালী একটা মুহূর্ত ছিল সেটা”।

জুম্মার নামাজের আয়োজন করতে সাহায্য করেছে অল ডুলেস এরিয়া মুসলিম সোসাইটি, মসজিদ মুহাম্মাদ, দ্য কাউন্সিল অন অ্যামেরিকান-ইসলামিক রিলেশনস, দ্য ইসলামিক সোসাইটি অব নর্থ অ্যামেরিকা এবং দ্য মুসলিম পাবলিক অ্যাফেয়ারস কাউন্সিল। জুম্মার নামাজে কেবল আমন্ত্রিতরাই অংশ নিতে পারবেন, তবে ক্যাথেড্রালের ওয়েবসাইটে সরাসরি সম্প্রচার করা হবে।

গির্জার যে অংশে আইকন কম এবং মসজিদের সাথে সাদৃশ্য বেশি সেখানেই নামাজের ব্যবস্থা করা হবে। নারী-পুরুষ আলাদা নামাজ পড়তে পারবেন এবং বয়স্কদের জন্য সুব্যবস্থা থাকবে বলে জানান ক্যাম্পবেল।

ক্যাম্পবেল অনুভব করেছেন যে সংযত থেকে ধর্মমত নির্বিশেষে যৌথ প্রার্থনার যে শক্তি তার পক্ষে কথা বলার এবং বোঝানোর এখনই গুরুত্বপূর্ণ সময়। এ থেকে আরো অনেক কাজ হওয়ার আশা রাখেন তিনি।

এব্রাহিম রাসুলের মতে এই অনুষ্ঠানটি বিশেষভাবে গুরুত্বপূর্ণ কারণ পৃথিবীতে বিশ্বাস এখন বিপদাপন্ন অবস্থায় আছে। একদিকে যারা দৃঢ় বিশ্বাসের কথা বলে তারা প্রচুর ক্ষতিসাধন করে চলেছে অন্যদিকে আমরা এমন এক বস্তুবাদী দুনিয়ায় বাস করি যেখানে মানবিক অনুভূতির কোনো দাম নেই। আমাদের সবার মধ্যে যে অদৃশ্য বাঁধন আছে তা আমরা বিশ্বাস করি না।

উত্তর আমেরিকা

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে