Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, রবিবার, ১৭ নভেম্বর, ২০১৯ , ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.4/5 (159 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ১১-০৪-২০১৪

বেশি বয়সে যত বিয়ে

বেশি বয়সে যত বিয়ে

মার্কিন লেখক জোশ ডি ম্যাকডোয়েলের মতে, 'বিয়ে যতটা না সঠিক মানুষ খুঁজে বের করা, তার চেয়ে বেশি সঠিক মানুষ হয়ে ওঠা।' এ নিয়ে তর্ক-বিতর্কের অবকাশ থাকতে পারে। কিন্তু এটা ঠিক, বিয়ের জন্য সঠিক মানুষ খুঁজে বের করতে কিংবা সঠিক মানুষ হয়ে উঠতে কারও কারও সময় লেগে যায় অনেক। বিয়ের সঠিক সময়টা নিয়ে মতভেদ থাকলেও দেরিতে বিয়ে করার পেছনে যুক্তিও আছে অনেক। সারা পৃথিবীতে এমন অনেক বিখ্যাত ব্যক্তি আছেন, যারা বিয়ে করেছেন চলি্লশের পরে।

দেরিতে হলেও বিয়ের গুরুত্বটা বোঝেন অনেকে। যেমন ৪১ বছর বয়সে বিয়ে করে স্যান্ড্রা বুলক বলেন, 'এখন
থেকে আমাকে আর নিজে গাড়ির দরজা খুলতে হবে না।'

দেরিতে বিয়ে করার কারণ হিসেবে অনেকেই দায়ী করেন ক্যারিয়ারকে। ক্যারিয়ার গোছাতে গোছাতে কখন যে সময় চলে গেছে, টের পান না অনেকেই। অনেকে আবার বলেন পছন্দের মানুষকে খুঁজে না পাওয়ার কথাও।

যারা মনে করেন, দেরিতে বিয়ে করলে সুখী হওয়া যায় না কিংবা সংসার টিকিয়ে রাখা যায় না, তাদের জন্য উদাহরণ হলো আমেরিকার ধনাঢ্য ব্যবসায়ী ডোনাল্ড ট্র্যাম্প আর ম্যালানিয়া জুটি। ৩৪ বছর বয়সী ম্যালানিয়াকে যখন বিয়ে করেন ট্র্যাম্প, তখন তার বয়স ৫৯। এবং তারা এখনও সুখে সংসার করছেন।
৬১ বছর বয়সে বিয়ে করা নিয়ে হ্যারিসন ফোর্ড বলেন, 'আমার বয়স যখন ৬০, তখন আমি ক্যালিস্টার প্রেমে পড়ি। এবং আমি অবাক হয়ে খেয়াল করি, এখনও আমি একটা সিরিয়াস কমিটমেন্টের জন্য প্রস্তুত।'

বিয়ে নামক জীবনব্যাপী কমিটমেন্টের জন্য তো একটু পরিপকস্ফতা থাকা দরকার। তাই বেশি বয়সে বিয়ে করাটা খারাপ নয় অনেকের মতে।
মোনাকোর প্রিন্স দ্বিতীয় আলবার্টের বিয়ে তো অনেকটা গল্পের মতো। ২০১১ সালে আলবার্ট যখন চার্লিন উইটস্টককে বিয়ে করেন, তখন তার বয়স হয়েছিল ৫৮ বছর। সঠিক মানুষটাকে খুঁজে পেতে আলবার্টের লেগেছে দীর্ঘ সময়, আর মোনাকো তাদের এই প্রিন্সেসের জন্য অপেক্ষা করেছেন ৩০ বছর।
হলিউডের বিখ্যাত অভিনেতা ও চিত্রনির্মাতা জর্জ ক্লুনিকে মনে করা হতো 'চির ব্যাচেলর', অন্তত বন্ধু-বান্ধবরা তা-ই মনে করতেন। কিন্তু তিনি বিয়ে করেন লেবাননি বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ আইনজীবী আমাল আলামুদ্দিনকে; তার বয়স ছিল তখন ৫৩।

ব্রিটিশ সঙ্গীতজ্ঞ ও শিল্পী পল ম্যাককার্টনির প্রথম স্ত্রী ক্যান্সারে মারা যাওয়ার পর বিয়ে করেছিলেন ব্যবসায়ী ন্যান্সি শেভেলকে। তখন তার বয়স ছিল ৬৮ বছর। আর মার্কিন অভিনেতা জেমস ব্রোলিন ও গায়িকা বারবারা স্ট্রেইসেন্ড দীর্ঘদিন চুটিয়ে প্রেম করার পর বিয়ে করেন। তখন তাদের বয়স ছিল ৫০।
দেরিতে বিয়ে করার ক্ষেত্রে সত্যি সত্যি পিছিয়ে নেই নারীরাও। বিয়েশাদি করে ঘরসংসার পাতানো এখনকার বেশিরভাগ মেয়েরই প্রথম এবং প্রধান লক্ষ্য নয়। ক্যারিয়ারকেই মেয়েরা এখন বেশি প্রাধান্য দিচ্ছে। বিশ্বে বিখ্যাতদের মধ্যে এমন আরও অনেক নারী আছেন, যারা আগে খ্যাতি অর্জন করেছেন, তার পর খুঁজে নিয়েছেন জীবনসঙ্গী। ভালো একজন জীবনসঙ্গীর আশায় দেরিতে বিয়ে করেও সংসার টেকাতে পারেননি অনেকে। মার্কিন মডেল এলিজাবেথ টেইলর ৪২ বছর বয়সে বিয়ে করেন ইন্ডিয়ান ব্যবসায়ী অরুণ নায়ারকে, জাঁকজমকপূর্ণভাবে। কিন্তু বিয়েটাও টেকেনি শেষ পর্যন্ত।

মার্কিন টেলিভিশন অভিনেত্রী মার্সিয়া ৪৪ বছর বয়সে বিয়ে করেন টম ম্যাহনেকে। কিন্তু মুখোমুখি হন সন্তান ধারণে অক্ষমতার মতো কঠিন বিষয়ের। শেষ পর্যন্ত জয় হয় ভালোবাসার। সঠিক চিকিৎসার পর দুটি কন্যাসন্তানের গর্বিত বাবা-মা হন তারা।

ভালোবাসা কোনো বয়স মানে না বলেই এবিসি ওয়ার্ল্ড নিউজের সংবাদ পাঠিকা ডায়ানে স্যয়ার অস্কার, গ্র্যামি, এমি ও টনি অ্যাওয়ার্ড বিজয়ী সিনেমা পরিচালক মাইক নিকোলাসকে বিয়ে করেন ৪৩ বছর বয়সে।

সমাজের তোয়াক্কা না করে মার্কিন কমেডিয়ান, ফ্যাশন ডিজাইনার, অভিনেত্রী, লেখক মার্গারেট চো ৩৫ বছর বয়সে বিয়ে করেন একজন আর্টিস্ট রিডেন্যরকে। নিজের বিয়ে নিয়ে মার্গারেট চোর মন্তব্য, 'আমাদের বিয়েটা রীতিগত এবং রক্ষণশীল।'

রিনি জেলওয়েগারের মতো অনেকে আছেন, যারা প্রচুর যাচাই-বাছাই করে বেশি বয়সে বিয়ে করেও মানুষ চিনতে ভুল করেন। পার্শ্বর্ অভিনেত্রী ক্যাটাগরিতে একাডেমি অ্যাওয়ার্ডপ্রাপ্ত জেলওয়েগার অভিনেতা জিম ক্যারি, গায়ক জ্যাক হোয়াইটসহ আরও অনেকের সাথে ডেট করে শেষ পর্যন্ত ৩৬ বছর বয়সে বিয়ে করেন গায়ক ক্যানি চেসনিকে। কিন্তু মাত্র চার মাস পরেই বিচ্ছেদের কাগজে জেলওয়েগার চেসনির সম্বন্ধে লেখেন 'ফ্রড'। কেউ কেউ আবার খুঁজে পান সঠিক মানুষটিকে। যেমন পেয়েছেন মার্কিন টেলিভিশন ব্যক্তিত্ব র‌্যাচেল রে বিয়ে করেন ল'ইয়ার এবং রক ব্যান্ডের লিড গায়িকা ৩৭ বছর বয়সী ক্রিঞ্জকে।
মেক্সিকান অভিনেত্রী সালমা হায়েক এবং হেনরি পিনাল্টের ভ্যালেন্টাইনস ডেতে করা রোমান্টিক বিয়ের কথা তো মনে আছে অনেকের। তাদের বিয়েটাও কিন্তু চলি্লশের পরেই করা। এখন ভ্যালেন্তিনা নামে এক সন্তানের বাবা-মা তারা।

তাই ভালো-মন্দ সবকিছু মিলে এটা তো আমরা বলতেই পারি বেশি বয়সে হোক, সঠিক মানুষটি খুঁজে পেলে আর সঠিক মানুষটি হয়ে উঠতে পারলে বিয়েটা সফল হবেই। কত উদাহরণ আছে আশপাশে!

জানা-অজানা

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে