Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শুক্রবার, ১৫ নভেম্বর, ২০১৯ , ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.2/5 (52 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)


আপডেট : ০৭-১৩-২০১৪

নিহত ১৬০, ইসরায়েলের হুমকিতে পালাচ্ছে গাজার বাসিন্দারা

নিহত ১৬০, ইসরায়েলের হুমকিতে পালাচ্ছে গাজার বাসিন্দারা

গাজা, ১৩ জুলাই- গাজার রকেট উৎক্ষেপণস্থলগুলোতে ইসরায়েলের নতুন করে হামলার হুমকির মুখে বাড়িঘর ছেড়ে পালিয়ে যেতে শুরু করেছে এলাকার হাজার হাজার বাসিন্দা।

ইসরায়েলি সেনাবাহিনী জানায়, বিমান হামলার পাশাপাশি হামাসের সম্ভাব্য রকেট উৎক্ষেপণ কেন্দ্রেগুলো ধ্বংস করতে তারা অভিযান শুরু করবে। সে কারণে গাজার কয়েকটি এলাকার বাসিন্দাদেরকে আত্মরক্ষার্থে ঘরবাড়ি ছেড়ে যেতে হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছে তারা।

ইতোমধ্যে গাজায় ছয়দিনের টানা বিমান হামলায় অন্তত ১৬০ ফিলিস্তিনি নিহত এবং সহস্রাধিক মানুষ আহত হয়েছে বলে ফিলিস্তিনের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে। হতাহতদের তিন-চতুর্থাংশই বেসামরিক মানুষ বলে জাতিসংঘের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

শনিবার রাতে বিমান থেকে ছোড়া ইসরায়েলের একটি প্রচারপত্রে গাজার বাইত লাহিয়া ও পাশের তিনটি বসতির লোকজনকে রোববার দুপুর ১২টার মধ্যে বাসস্থান ত্যাগ করতে বলা হয়। এতে আরো বলা হয়, “কেউ এ আদেশ না মানলে এতে তার নিজের এবং পরিবারের জীবন বিপন্ন হবে, সাবধান!”

বাইত লাহিয়া এলাকায় ৭০ হাজার মানুষের বাস। ওই নির্দেশের পর কমপক্ষে চার হাজার বাসিন্দা জাতিসংঘ পরিচালিত স্কুলে আশ্রয় নিয়েছে। অনেকে নিজেদের যানবাহন যোগে নিরাপদ আশ্রয়ের উদ্দেশ্যে চলে যাচ্ছে বলে গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে।

তবে গাজার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের এক বেতার বার্তায় ইসরায়েলের হুমকি নাকচ করে দিয়ে বাসিন্দাদেরকে বাড়ি ফিরে যেতে বলেছে। ইসরায়েলের হুমকি ‘মনস্তাত্ত্বিক যুদ্ধভীতি’ সৃষ্টির জন্য বলে দাবি করে মন্ত্রণালয়।

রোববার ভোরে ইসরায়েলি বিমান হামলায় গাজায় তিন বছর বয়সী একটি মেয়েশিশু মারা গেছে। এরও কয়েক ঘণ্টা আগে গাজার পুলিশ প্রধানের বাসভবন লক্ষ্য করে চালানো বিমান হামলায় অন্তত ১৮ জন নিহত হয় বলে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে।

এরই মধ্যে গাজায় কমান্ডো অভিযানও শুরু করেছে ইসরায়েল। হামাস যোদ্ধাদের সঙ্গে রোববার সংঘর্ষে জড়িয়েছে ইসরায়েলের নৌ কমান্ডোরা। গাজায় ইসরায়েলের ছয় দিনব্যাপী বিমান হামলার মধ্যে এটিই সেখানে প্রথম স্থল হামলা বলে মনে করা হচ্ছে।

ইসারায়েল জানিয়েছে, গাজায় স্থল অভিযান চালানোর জন্য এরই মধ্যে ২০ হাজার রিজার্ভ সেনা সমাবেশ ঘটিয়েছে তারা। তবে এ পর্যন্ত গাজায় ইসরায়েলের বিমান হামলাই হয়েছে বেশি। গাজার ১২০০টি লক্ষ্যবস্তুতে এসব হামলা চালানো হয়।

ওদিকে উপুর্যপরি হামলার পরও গাজা থেকে রকেট হামলা অব্যাহত রেখেছে হামাস যোদ্ধারা। সকালে দূরপাল্লার একটি রকেট তেল আবিব বিমানবন্দরের কাছে চলে যায়। তবে এতে বিমান চলাচলে কোনো বিঘ্ন ঘটেনি।

গাজায় গত মঙ্গলবার ইসরায়েলি হামলা শুরুর পর থেকে হামাস ৮শ’ রকেট হামলা চালালেও এতে কেউ নিহত হওয়ার খবর পাওয়া যায়নি। ইসরায়েলি সেনারা যুক্তরাষ্ট্রের অর্থায়নে তৈরি আয়রন ডোম প্রযুক্তির সাহায্যে অধিকাংশ রকেটই অকার্যকর করে দিয়েছে।

অজ্ঞাতনামাদের হাতে তিন ইসরায়েলি কিশোর অপহৃত ও পরে নিহত হওয়ার জন্য হামাসকে দায়ী করে তেলআবিব। পরে সন্দেহভাজনদের ধরতে গাজায় সাঁড়াশি অভিযান চালায় ইসরায়েলি পুলিশ। অভিযানে বেশ কয়েকজন নিহত হয়। হামাস যোদ্ধা সন্দেহে গাজার শতাধিক বাসিন্দাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

এরই মধ্যে এক ফিলিস্তিনি কিশোরকে পুড়িয়ে মারার পর পরিস্থিতি আরো উত্তেজনায় রূপ নেয়। এক পর্যায়ে গাজা অঞ্চল থেকে রকেট হামলা চালানো হচ্ছে অভিযোগ তুলে ফিলিস্তিনি অধ্যুষিত এলাকায় বিমান হামলা শুরু করে ইসরায়েল।

মধ্যপ্রাচ্য

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে