Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, রবিবার, ১৮ আগস্ট, ২০১৯ , ৩ ভাদ্র ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.3/5 (26 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৭-১১-২০১৪

আকর্ষণ বেড়ে গেল ফাইনালের

আকর্ষণ বেড়ে গেল ফাইনালের

বেঁচে গেল আর্জেন্টিনা বেঁচে গেল বাংলাদেশ। সেমিতে শোচনীয় হেরে ব্রাজিল বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিয়েছে। এ নিয়ে ব্রাজিলবাসী যেমন কাঁদছে। তেমনিভাবে হতাশা নেমে এসেছে বাংলাদেশের ক্রীড়াঙ্গনেও। কেননা বিশ্বকাপে বাংলাদেশের বড় একটা অংশ ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনার সাপোর্টার। যদি দ্বিতীয় সেমিফাইনালে আর্জেন্টিনা হেরে যেত তাহলে বাংলাদেশে বিশ্বকাপের আকর্ষণই শেষ হয়ে যেত। কেননা ১৯৮৬ সালের পর থেকে বাংলাদেশে আর্জেন্টিনা সমর্থকদের ছড়াছড়ি। যদি গড় হিসাব করা হয় তাহলে বলব ৭০ ভাগ যদি আর্জেন্টিনার ৩০ ভাগ ব্রাজিলের। সে জন্য বলছি আর্জেন্টিনা যদি সেমিফাইনালে শেষ হয়ে যেত তাহলে বিশ্বকাপ ঘিরে বাংলাদেশের আকর্ষণ একেবারে শেষ হয়ে যেত।

গোটা পৃথিবীর প্রত্যাশা ছিল আর্জেন্টিনা-ব্রাজিল স্বপ্নের ফাইনালে মুখোমুখি হোক। কিন্তু সেই স্বপ্ন পূরণ হলো না। তবে মেসির আর্জেন্টিনা আছে বলে রক্ষা। তা না হলে দুই ইউরোপের ফাইনাল দেখে দর্শকরা ততটা মজা পেতেন না। যাক ফাইনাল ফাইনালই। যারা জিতবে তারাই বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হয়ে যাবে। প্রশ্ন হচ্ছে এবার বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হচ্ছে কে? মজার ব্যাপার হলো আর্জেন্টিনা বিশ্বকাপের ফাইনাল খেলছে দুই যুগ পর। ১৯৯০ সালে সেই ফাইনালে প্রতিপক্ষ ছিল জার্মানিই। আগের বিশ্বকাপ অর্থাৎ ১৯৮৬ সালে জার্মানদের হারিয়েই ম্যারাডোনার নেতৃত্বে আর্জেন্টিনা বিশ্বকাপে হারানো ট্রফি উদ্ধার করেছিল। সুতরাং প্রশ্ন উঠেছে পুনরাবৃত্তি হবে কোনটার ৮৬ না ৯০। দেখেন অনেকে বলছেন এবার প্রতিশোধ নেওয়ার পালা আর্জেন্টিনার। প্রতিশোধটা কিন্তু আবেগের কথা। বিশেষ করে বিশ্বকাপের ফাইনালের উত্তেজনা থাকে অন্যরকম। টেনশনে খেলোয়াড়রা ঠিক মতো খেলতেই পারেন না।

জার্মানি বা আর্জেন্টিনা দুটো দলই সেমিফাইনালে কঠিন প্রতিপক্ষকে পরাজিত করেছে। এখন পারফরম্যান্সের তুলনা করলে আমি কেন অনেকে জার্মানিকে এগিয়ে রাখবেন। কেননা আর্জেন্টিনা টাইব্রেকারে নেদারল্যান্ডস অন্যদিকে জার্মানি ৭-১ গোলে ব্রাজিলের মতো দলকে বিধ্বস্ত করে ফাইনালে উঠেছে। তাহলে কি বলব জার্মানি ফাইনালে জিতে যাবে। না, এ ধরনের বোকামি মন্তব্য কেউ করবেন না। তবে আমার দৃষ্টিতে জার্মানদের স্কোরিং পাওয়ার অনেক বেটার। থমাস মুলার, স্কার্ল, ক্রুজ, ক্লোসাদের খেলার ভিতর ধারাবাহিকতা রয়েছে। তাদের রক্ষণভাগও ঠাণ্ডা মাথায় প্রতিপক্ষের আক্রমণ সামাল দিতে পারে। কোন পরিবেশে কেমন খেলতে হয় তা জার্মানদের ভালোই জানা আছে। অন্যদিকে শেষ তিন ম্যাচ আর্জেন্টিনা গুছিয়ে নিলেও দলটা এখনো মেসিনির্ভর। সত্যি বলতে মেসি মনে করিয়ে দিচ্ছে ৮৬'র সেই ম্যারাডোনার কথা। এই মেসি যদি ফাইনালে জ্বলে উঠতে পারেন তাহলে বলব ২৮ বছর পর হারানো ট্রফি উদ্ধার করাটা কষ্টকর হবে না। তবে ফাইনালে আবার দুই কোচের দায়িত্ব অনেক। তাদের কৌশলের উপর নির্ভর করবে দলের ভালো বা মন্দ খেলা।

বিশ্বকাপ ফুটবল ২০১৪

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে