Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, রবিবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০১৯ , ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.6/5 (115 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৭-০৩-২০১৪

পৃথিবীর বিখ্যাত ১০ টি স্থাপত্য, যেগুলো অবশ্যই একবার দেখা উচিৎ

পৃথিবীর বিখ্যাত ১০ টি স্থাপত্য, যেগুলো অবশ্যই একবার দেখা উচিৎ

রহস্যে ভরা এই পৃথিবী যেমন প্রাকৃতিকভাবে অনেক সুন্দর তেমনি মনুষ্য তৈরি কৃত্রিম অনেক নিদর্শনও সবাইকে প্রতিনিয়তই মুগ্ধ করে চলছে। পৃথিবী বিখ্যাত এমন অনেক স্থাপত্য রয়েছে যেগুলো দেখতে অনেক বেশি সুন্দর এবং মনোরম। আসুন ছবিতে দেখে জেনে নিই এমন ১০ টি বিখ্যাত স্থাপত্যশৈলী।


১. পেট্রোনাস টুইন টাওয়ার :

ছবিতে দেখুন মনোমুগ্ধকর এই পেট্রোনাস টুইন টাওয়ার মালোয়েশিয়ার কুয়ালালামপুরে অবস্থিত। ১৯৯৮ এবং ২০০৮ সালে এই টাওয়ারগুলোই পৃথিবীর সর্বোচ্চ টাওয়ার ছিল। এই সুন্দর টাওয়ারটির ডিজাইন করেছের আর্জেন্টাইন একজন স্থপতি সিজার পেলি। এই উঁচু টাওয়ারটি তৈরির প্রজেক্টটি চালু হয় ১৯৯২ সালে। এর কাজ শুরু হয় ১৯৯৩ সালে এবং শেষ হয় ৭ বছর পরে ২০০০ সালে। টাওয়ারটিতে মোট ৮৮ টি ফ্লোর রয়েছে যেগুলো স্টিল এবং কাঁচ দিয়ে তৈরি করা হয়েছে।


২. হোয়াইট হাউজ :

আরেকটি মনোরম স্থাপত্য হল এই হোয়াইট হাউজ। এটি ওয়াশিংটন ডিসির উত্তরে ১৬০০ পেনসিলভানিয়া এভিনিউ এর কাছাকাছি অবস্থিত। ১৮০০ সাল থেকে এই হোয়াইট হাউস প্রতিটি ইউএসএ প্রেসিডেন্টের বাসভবন হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। এই বিল্ডিংটির ডিজাইন করেন আইরিশ স্থপতি জেমস হবান। এটি ১৭৯২ সাল থেকে ১৮০০ সালের মধ্যে ৮ বছরে নির্মিত হয়। এটি নব্যধ্রুপদীশৈলীর একটি বিশেষ নিদর্শন।

আরও পড়ুন: ভ্রমণকালে অনলাইন নিরাপত্তায় ১১টি বিষয় মেনে চলুন


৩. সেন্ট বেসিল এর গীর্জা :

সেন্ট বেসিল গীর্জার অফিসিয়াল নাম হল প্রতিরক্ষার গীর্জা। এতে একটি রাশিয়ান অর্থোডক্স চার্চ রয়েছে। এটি মস্কোর রেড স্কয়ারে অবস্থিত। এই চার্চটি ১৫৫৫ সাল থেকে ১৫৬১ সালের মধ্যে তৈরি করা হয়। এটি মূলত কাজান এবং আস্ত্রখান এর স্মৃতি রক্ষার জন্য তৈরি করা হয়েছে। মস্কোর একেবারে মধ্যবর্তী স্থানে এই স্থাপত্যটি নির্মাণ করা হয় এবং এটি ১৬০০ সালে ইভান গ্রেট বেল তৈরির আগে সর্বোচ্চ বিল্ডিং হিসেবে পরিচিত ছিল। এটির মূল ভবনটি ট্রিনিটি চার্চ যা পরবর্তীতে ট্রিনিটি ক্যাথিড্রাল নামে পরিচিত হয়ে ওঠে। এই সেন্ট বেসিল গীর্জাটি ১৯৯০ সাল পর্যন্ত ইউনেস্কো ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইট এর অন্তর্ভূক্ত ছিল।


৪. এম্পায়ার স্টেট বিল্ডিং :

এই দীর্ঘ স্থাপত্যটি নিউইয়র্কের ম্যানহাটানের মিডটাউনে অবস্থিত। ১০২ তলা বিশিষ্ট আকাশচুম্বী এই এম্পায়ার স্টেট বিল্ডিংটির ছাদ ১২৫০ ফুট উঁচু এবং এর মোট উচ্চতা ১৪৫৪ ফুট। নিউইয়র্কের আঞ্চলিক নাম এম্পায়ার স্টেট এর নামেই এই বিল্ডিংটির নামকরণ করা হয়েছে। ১৯৩১ সালে এটি নির্মাণ করা হয় এবং ১৯৭২ সালে ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টার নির্মাণের আগে এটিই ৪০ বছরেরও বেশি সময় ধরে বিশ্বের সর্বোচ্চ বিল্ডিং হিসেবে পরিচিত ছিল। বর্তমানে এটি ৩য় সর্বোচ্চ ইমারত।

আরও পড়ুন: সমুদ্র ঢেউয়ের সৌন্দর্য পেতে ঘুরে আসুন পতেঙ্গা


৫. বুর্জ খলিফা :

বুর্জ খলিফা বুর্জ দুবাই নামেও পরিচিত যেটি বর্তমান বিশ্বের সর্বোচ্চ মনুষ্য তৈরি স্থাপত্য যেটির উচ্চতা ৮২৯.৮ মিটার। এই টাওয়ারটি ইউনাইটেড আরব আমিরাতের দুবাইয়ে অবস্থিত। এটির নির্মাণ কাজ শুরু হয় ২০০৪ সালে এবং শেষ হয় ২০০৯ সালে। আনুষ্ঠানিকভাবে এই বিল্ডিংটি খোলা হয় ২০১০ সালে। ২ স্কয়ার কিলোমিটার জুড়ে এটি অবস্থিত যেটিকে দুবাইয়ের ডাউনটাউন বলা হয়ে থাকে। বুর্জ খলিফার ডিজাইনার হলেন স্কিডমোর, প্রধান স্থপতি আড্রিয়ান স্মিথ এবং প্রধান স্ট্রাকচারাল প্রকৌশলী বিল বাকার। ইউএই প্রেসিডেন্ট খালিজ বিন জায়েদ আল নাহয়ান এই টাওয়ারটির নাম বুর্জ খলিফা দিয়েছিলেন।

 

পর্যটন

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে