Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বৃহস্পতিবার, ২৩ মে, ২০১৯ , ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.1/5 (12 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৭-০১-২০১৪

বন্ধ হয়ে যাচ্ছে অরকুট!

বন্ধ হয়ে যাচ্ছে অরকুট!

ক্যালিফোর্নিয়া, ০১ জুলাই- এক সময়ের জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগের ওয়েবসাইট অরকুট চলতি বছরের ৩০ সেপ্টেম্বর থেকে বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। গুগলের অরকুট পরিচালনাকারী দল গত সোমবার অরকুট বন্ধ করে দেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

অরকুটে নতুন করে আর অ্যাকাউন্ট খোলা যাবে না বলেও ঘোষণা দিয়েছে সার্চ জায়ান্ট গুগল। সামাজিক যোগাযোগ সাইট হিসেবে একসময়ে জনপ্রিয় অরকুট সাইটটি ফেসবুক ও টুইটারের জনপ্রিয়তার প্রতিযোগিতায় পেরে ওঠেনি। ব্রাজিল ও ভারতে অরকুট ব্যবহারকারি সবচেয়ে বেশি ছিল। ২০১০ সাল থেকে ফেসবুকের প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে গুগল কর্তৃপক্ষ গুগল প্লাস সাইট চালু করলে অরকুট সাইটটি অপ্রাসঙ্গিক হয়ে দাঁড়ায়। অবশ্য এখনও ১০ লাখেরও বেশি ব্যবহারকারী অরকুট ব্যবহার করছেন। এখন পর্যন্ত যত ব্যবহারকারী রয়েছে তার মধ্যে ৫০ শতাংশ ব্যবহারকারী ব্রাজিল ও ২০ শতাংশ ব্যবহারকারী ভারতের।

অরকুটের প্রকৌশলীদের পরিচালক পাওলো গোলহার এক ব্লগ পোস্টে জানিয়েছেন, আমরা এ বছরের ৩০ সেপ্টেম্বর থেকে অরকুট বন্ধ করে দিচ্ছি। ওই সময় পর্যন্ত বর্তমান ব্যবহারকারীদের অরকুট ব্যবহার করতে কোনো সমস্যা হবে না। আমরা অরকুট ব্যবহারকারীদের তথ্য সরিয়ে নেওয়ার জন্য সময় দিচ্ছি।  ব্যবহারকারীরা তাঁদের প্রোফাইলের তথ্য, পোস্ট, ছবি গুগল টেকআউট (https://www.google.com/settings/takeout) সেবা ব্যবহার করে সরিয়ে নিতে পারবেন। কারিগরি কাজ সেরে নিতে আগামি ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত এটি কার্যকর থাকবে। আজ থেকে নতুন করে আর অরকুটে কোনো অ্যাকাউন্ট খোলা যাবে না।

কি কারনে অরকুটের বিদায় প্রসঙ্গে জানতে চাইলে পাওলো গোলহার জানান, গত এক দশক ধরে ইউটিউব, ব্লগার ও গুগল প্লাস ধীরে ধীরে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের মানুষ এই সেবার সঙ্গে পরিচিত হয়ে উঠেছে। এই কমিউনিটিগুলোর জনপ্রিয়তা অরকুটকে ছাড়িয়ে গেছে তাই আমরা অরকুটকে বিদায় জানাচ্ছি।

উল্লেখ্য যে, গত ২০০৪ সালে যাত্রা শুরুর পর পরই দ্রুত জনপ্রিয় হয়েছিল গুগলের এই সাইটটি। কিন্তু অরকুটের পাশাপাশি ফেসবুকও যাত্রা শুরু করেছিল। ফেসবুকের সঙ্গে জনপ্রিয়তায় পিছিয়ে পড়ে অরকুট। ২০০৮ সাল পর্যন্ত ব্রাজিল ও ভারতের মতো কয়েকটি দেশে অরকুট জনপ্রিয় হলেও বিশ্বের অন্যান্য দেশে ফেসবুক জনপ্রিয় হয়। ধীরে ধীরে ভারত ও ব্রাজিলেও অরকুটকে ছাড়িয়ে যায় ফেসবুক। ব্যবহারকারী হিসেবে ২০১০ সালে অরকুটকে পেছনে ফেলে ফেসবুক।

অরকুট বন্ধ করা প্রসঙ্গে অরকুটের কর্মকর্তা গোলহার আরো জানান, গত এক দশকের যাত্রা ছিল প্রশংসনীয়, আমরা আমাদের সক্রিয় ব্যবহারকারীদের কাছে ক্ষমা চাইছি। আশা করছি আমাদের অন্য অনলাইন কমিউনিটিতে তাদের ফিরে পাব এবং আরও বেশি সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে পরবর্তী দশকও মাতিয়ে রাখব।

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে