Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শনিবার, ১৮ জানুয়ারি, ২০২০ , ৫ মাঘ ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.4/5 (28 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৬-১৮-২০১৪

সাবধান, তিলোত্তমায় মরণ-কামড়!

সাবধান, তিলোত্তমায় মরণ-কামড়!

ঠোঁটের ঠিক উপরে ছোট্ট একটি তিল--- পারফেক্ট বিউটি স্পট। কিন্তু এই তিলই ডেকে আনতে পারে চরম সর্বনাশ। মহিলাদের শরীরে তিলের সংখ্যা ব্রেস্ট ক্যান্সারের আভাস দিতে পারে। এমন তথ্যই আবিষ্কার করেছেন কয়েকজন মার্কিনি এবং ফরাসি বিজ্ঞানী। সেই গবেষণা অনুযায়ী কোনও নারীর শরীরে ১৫টি বা তার বেশি তিল থাকলে তাঁর ব্রেস্ট ক্যান্সার হওয়ার আশঙ্কা বেড়ে যায় প্রায় ৩৫%। যদিও এখনই হলফ করে কিছুই বলার সময় আসেনি, তবুও এই দাবির পক্ষে বিজ্ঞানীরা রেখেছেন ইস্ট্রোজেনের যুক্তি। বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই ব্রেস্ট ক্যান্সারের বৃদ্ধির জন্যে দায়ী এই ইস্ট্রোজেন হরমোন। শুধু তাই নয়, প্রমাণ পাওয়া গিয়েছে, শরীরে তিলের আধিক্যও দেখা যায় এই হরমোনের জন্যেই।

১৯৮৬ সাল থেকে শুরু হয়েছে এই গবেষণা। মূলত ৪০-৬৫ বছরের মহিলাদের উপরেই করা হয়েছিল এই সমীক্ষা। যাঁদের শরীরে ১৫-র কম তিল ছিল তাঁদের মধ্যে ৮.৫ শতাংশের ব্রেস্ট ক্যান্সার ধরা পড়েছিল। অন্যদিকে যাঁদের শরীরে তিলের সংখ্যা ১৫ বা তার বেশি ছিল, তাঁদের মধ্যে ব্রেস্ট ক্যান্সারের রেট প্রায় ১১.৪ শতাংশ।

ইন্ডিয়ানাপলিসের ইন্ডিয়ানা ইউনিভার্সিটি সিমোন ক্যান্সার সেন্টার-র জিয়ালি হান-এর গবেষণার দলটি অবশ্য আরও অনেকগুলি বিষয়ের দিকে নজর রেখেছেন। তার মধ্যে রয়েছে বয়স, লাইফস্টাইল, দৈনন্দিন অভ্যেস, ওজন, স্কিন টোন এবং সান এক্সপোজার। কারণ যাঁরা ফর্সা, এবং তাড়াতাড়ি সানবার্ন হয়, তাঁদের ক্ষেত্রে তিলের সংখ্যাটা অবশ্যই বেশি থাকে। অন্যদিকে ফরাসি মহিলাদের উপর করা গবেষণা অনুযায়ী তিলের সঙ্গে ব্রেস্ট ক্যান্সারের সম্পর্ক সেখানেই প্রকট হয়ে দেখা দিয়েছে যেখানে মেনোপজের আগে ব্রেস্ট ক্যান্সার হয়েছে।

মার্কিনি গবেষণায় এও দেখা গিয়েছে যে সব মহিলার শরীরে তিলের সংখ্যা বেশি তাঁদের ইস্ট্রোজেন এবং টেস্টোস্টেরন হরমোনের মাত্রাও অনেক বেশি। প্রকারন্তরে যা ব্রেস্ট ক্যান্সারের সম্ভাবনা কয়েকগুণ বাড়িয়ে দেয়।

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে