Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শুক্রবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৯ , ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.9/5 (18 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০২-০৫-২০১২

সংশোধন হচ্ছে ব্যাংক কোম্পানি আইন: খসড়া প্রস্তুত

আব্দুল্লাহ আল মামুন


সংশোধন হচ্ছে ব্যাংক কোম্পানি আইন: খসড়া প্রস্তুত
ঢাকা, ০৫ ফেব্রুয়ারি: পুঁজিবাজারকে গুরুত্ব দিয়ে ব্যাংক কোম্পানি আইন ১৯৯১ এর সংশোধন করা হচ্ছে। এ সংশোধনীতে পুঁজিবাজারে ব্যাংকগুলোকে তার সংবিধিবদ্ধ সঞ্চিতির সর্বোচ্চ ১০ শতাংশ থেকে ২৫ শতাংশ পর্যন্ত বিনিয়োগের সুযোগ থাকছে।
 ইতিমধ্যে ব্যাংক কোম্পানী আইন সংশোধনের খসড়া চূড়ান্ত করা হয়েছে। কেন্দ্রীয় ব্যাংক সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
 
ঝুঁকিভিত্তিক সম্পদ ব্যবস্থাপনা উন্নয়ন এবং ব্যাংকিং খাত আধুনিক ও গতিশীল করতেই আইনের খসড়া চূড়ান্ত করা হয়েছে। একই সঙ্গে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্দেশনা পালনে ব্যর্থ হলে ব্যাংকগুলোকে শাস্তির পাশাপাশি জরিমানার বিধান রাখা হয়েছে। এর ফলে ব্যাংকগুলোকে নিয়ন্ত্রণে বাংলাদেশ ব্যাংকের ক্ষমতা বাড়বে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।
 
জানা গেছে, দেশের ব্যাংকিং খাত পরিচালনা করার জন্য ২০ বছর আগে ব্যাংক কোম্পানি আইন ১৯৯১ প্রণয়ন করা হয়।
 
ব্যাংক কোম্পানি আইনের সংশোধন নিয়ে রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন, বেসরকারি এবং বিশেষায়িত একাধিক ব্যাংকের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা সরকারের উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন। তারা বলেছেন, বিদ্যমান পরিস্থিতিতে ব্যাংক কোম্পানি আইনে পরিবর্তন আনা যুগোপযোগী। কারণ যখন ব্যাংক কোম্পানি আইন তৈরি করা হয়েছিল, তখন আর বর্তমান ব্যাংকিং খাতের প্রেক্ষাপট এক রকম নয়। তাই ব্যাংক কোম্পানি আইন পরিবর্তন করা হলে ব্যাংকিং খাতে আরো গতি ফিরে আসবে।
 
এদিকে ব্যাংক ছাড়াও সাবসিডিয়ারি কোম্পানিগুলোতে সব ধরনের তদন্তেরও নির্দেশ দিতে পারবে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।
 
প্রস্তাবিত খসড়ায় বলা হয়েছে, কোনো ব্যাংকে ১৩ জনের বেশি পরিচালক থাকতে পারবেন না। এছাড়া বিবরণী দাখিল করতে ব্যর্থ হলে সংশ্লিষ্ট ব্যাংককে ২ হাজার ৫০০ টাকার পরিবর্তে ২৫ হাজার টাকা জরিমানা করা যাবে। সাবসিডিয়ারি কোম্পানিকে দেয়া ব্যাংকের অর্থ চাঁদা হিসেবে গণ্য হবে। পুঁজিবাজারে ব্যাংক তার সংবিধিবদ্ধ সঞ্চিতির ২৫ শতাংশ পর্যন্ত বিনিয়োগ করতে পারবে। সাবসিডিয়ারি কোম্পানির মূলধন ব্যাংকের বিনিয়োগ সীমার বাইরে থাকবে।
 
বাংলাদেশ ব্যাংকের শীর্ষ এক কর্মকর্তা এ বিষয়ে বলেন, “ব্যাংকিং খাতে বিদ্যমান নতুন নতুন পরিস্থিতি মোকাবিলা করাসহ যুগোপযোগী ব্যবস্থা নেয়ার লক্ষ্যেই ব্যাংক কোম্পানি আইন পরিবর্তনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এছাড়া এ আইন পরিবর্তনের মাধ্যমে দেশীয় ব্যাংকিং ব্যবস্থাকে আন্তর্জাতিক ব্যাংকিং পদ্ধতির সঙ্গে একীভূত করা, ব্যাংকিং খাতে আরো গতি আনা, ঝুঁকিভিত্তিক সম্পদ ব্যবস্থাপনা শক্তিশালী করা, মনিটরিং ব্যবস্থা জোরদার এবং ব্যাংকগুলোর ম্যানেজমেন্টে পরিবর্তন আনা এর অন্যতম উদ্দেশ্য।”
 
উল্লেখ্য, এরই মধ্যে সংশোধনীতে বিশ্বব্যাংক, আইএমএফ, ব্যাংকের চেয়ারম্যানদের সংগঠন বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংক (বিএবি) এবং ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালকদের সংগঠন অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকার্স বাংলাদেশসহ (এবিবি) সব পক্ষের মতামত নেয়া হয়েছে।

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে