Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বুধবার, ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২০ , ১৪ আশ্বিন ১৪২৭

গড় রেটিং: 1.0/5 (2 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)


আপডেট : ০৬-০৩-২০১৪

‘ও ম্যারাডোনাকেও ছাড়িয়ে যাবে’

মো. মনিরুল ইসলাম


‘ও ম্যারাডোনাকেও ছাড়িয়ে যাবে’

নিওয়েলস ওল্ড বয়েজ৷ রোজারিওর ক্লাব৷ মেসিদের পরিবারের ভালোবাসা৷
সেনাবাহিনীতে যোগদানের আগে সেই ১৩ বছর থেকেই ক্লাবটির সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধেন মেসির বাবা৷ পজিশন ছিল মিডফিল্ডার৷ কিন্তু ফুটবলকে পেশা হিসেবে বেছে নেননি কখনো হোর্হে৷ তাঁর দুই বড় ছেলে রদ্রিগো ও মাতিয়াসও বয়সভিত্তিক দলে খেলেন ক্লাবটিতে৷ মেসি যোগ দেন ১৯৯৪ সালে৷ সরাসরি তাঁর প্রথম ক্লাব গ্রানদোলি থেকে৷ বার্সায় পাড়ি জমানোর আগে এটাই ছিল ‘গোলমেশিনে’র ঠিকানা৷

কেন্টে জন্ম নেওয়া আইজাক নিওয়েল নামের এক ব্যক্তি ১৮৮৪ সালে রোজারিওতে একটি স্কুল প্রতিষ্ঠা করেন৷ নাম দেন আর্জেন্টাইন কমার্শিয়াল অ্যাংলিয়ান স্কুল৷ ওই স্কুলের শিক্ষক, ছাত্র ও সাবেক শিক্ষার্থীদের প্রয়াসই হচ্ছে এ ক্লাব৷ যেটি তাঁরা প্রতিষ্ঠা করেন ১৯০৩ সালের ৩ নভেম্বর৷ ক্লাবের প্রতীকী রং লাল-কালো৷ মাঠে খেলেই নয়, খেলার বাইরে বল নিয়ে অসাধারণ কারিকুরি করেও ছোট্ট মেসি নজর কেড়েছিলেন সবার৷ ক্লাব কর্মকর্তারা তাই দর্শকদের বাড়তি আনন্দ দিতে ম্যাচের বিরতির সময়টুকুতে মেসিকে নামিয়ে দিতেন মাঠে৷ আর তিনি বল নিয়ে চোখধাঁধানো সব শৈলীতে মন্ত্রমুগ্ধ করে রাখতেন সবাইকে৷ তাঁর সেসব ‘কিপি-আপি’ এখনো ভোলেননি নিওয়েলস ওল্ড বয়েজে মেসির দ্বিতীয় কোচ আর্নেস্তো ভেকচিয়ো, ‘সে ছিল আসলেই বিশেষ কিছু৷ তাকে শেখানোর কিছু ছিল না৷ আচ্ছা, বলুন তো, ম্যারাডোনা বা পেলেকে কি শেখানোর কিছু আছে? তাঁদের কতটুকুইবা শেখানোর থাকে একজন কোচের!’

মেসিকে ৯ থেকে ১১ বছর পর্যন্ত কোচিং করান ভেকচিয়ো৷ ওই সময় এক মৌসুমে প্রায় ১০০ গোল করেন মেসি৷ লিগে তরিতোর সঙ্গে একটি ম্যাচের কথা এখনো ভুলতে পারেন না ভেকচিয়ো, ‘অসুস্থতার কারণে মেসি নামতে পারেনি৷ দল পিছিয়ে ১-০ গোলে৷ শেষ বাঁশি বাজতে কয়েক মিনিট বাকি৷ আমি মেসিকে বললাম, “তুমি খেলতে পারবে কি না”? সে উত্তর দিল, হ্যঁা এবং সঙ্গে সঙ্গে ওয়ার্মআপ শুরু করে দিল৷ মাঠে নামার আগে আমি তাকে শুধু এটুকু বললাম, “আমাকে ম্যাচটা জিতিয়ে দাও”৷ এবং সে তা-ই করল৷ পাঁচ মিনিটে দুই গোল করে মাঠ ছাড়ল৷’

নিওয়েলস ওল্ড বয়েজে খেলতেন আদ্রিয়ান কোরিয়া৷ মেসির ছোটবেলার সতীর্থ ও বন্ধু৷ পরে ক্লাবটির যুবদলের কোচিংও করান৷ মেসি বলতেই তিনি বিমোহিত, ‘ওই সময় লিয়ান্দ্রো দেিপত্রিস সম্পর্কে অনেক কথা হতো৷ উজ্জ্বল বর্ণের ছোট্ট এই ছেলে ১১ বছর বয়সেই মিলানে পাড়ি জমায়৷ সবাই তার ভূয়সী প্রশংসা করত৷ কিন্তু আমি তাদের দলে ছিলাম না৷ আমি সব সময় আমার বন্ধু সম্পর্কে বলতাম, “দেপিত্রিসের চেয়ে ১০ গুণ ভালো লিও৷ ও যখন বড় হবে, ম্যারাডোনাকেও ছাড়িয়ে যাবে৷’”

মাত্র ১২ বছর বয়সী একটি ছেলে সম্পর্কে এত উচ্চাশা আদ্রিয়ান কিসের জোরে করেছিলেন, নিজেই দিয়েছেন সেই ব্যাখ্যা, ‘আপনি প্রথমে ওকে দেখলে ভাববেন, ছেলেটি খেলতে পারে না৷ বামন৷ খুবই নাজুক আর ছোটখাটো গড়নের৷ কিন্তু পরক্ষণেই আপনার ভুল ভাঙবে৷ আপনার মাঝে এ অনুভূতি আসবে যে ছেলেটির জন্মই অন্য রকম৷ কিন্তু সে অনন্য৷ কারণ, সে হচ্ছে গোলা৷’ আদ্রিয়ান বলেন, ‘ওর মধ্যে এমন কমান্ড রয়েছে, যা আমি কখনো দেখিনি৷ ও ফর্মুলা ওয়ান৷ একটা ফেরারি৷ জয়ই যার ব্রত৷ প্রতিটি ম্যাচই যে জিততে চায়৷’

েমসির বেড়ে ওঠাজনিত সমস্যা শৈশবেই ধরা পড়ে৷ বয়স নয় বছর পেরিয়ে গেলেও উচ্চতা সে অনুপাতে হয়নি, মাত্র ১ দশমিক ২৭ মিটার৷ রোজারিওর বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক দিয়েগো সোয়ার্জতেইনের কাছে নিয়ে গেলেন মা-বাবা৷ এক বছরের বেশি সময় ধরে তাঁর অধীনে চলল চিকিৎসা৷ অসংখ্য পরীক্ষা-নিরীক্ষা৷ উদ্দেশ্য, হরমোনজনিত সমস্যা নাকি বিলম্বিত বর্ধনজনিত সমস্যা তা শনাক্ত করা৷ অনেক গবেষণার পর দেখা গেল, এটা হরমোনজনিত সমস্যাই৷ সিদ্ধান্ত হলো চিকিৎসার৷ তা দীর্ঘমেয়াদি৷ প্রতিদিন একটি করে বিশেষ ইনজেকশন৷ সঙ্গে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া ঠেকাতে সহায়ক ইনজেকশন৷ চলবে কয়েক বছর ধরে৷
কিন্তু এত ব্যয়বহুল ও দীর্ঘমেয়াদি চিকিৎসার খরচ? কত? কে দেবে? উত্তর খোঁজার প্রাণপণ চেষ্টা চলে সবার মধ্যে

ফুটবল

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে