Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বৃহস্পতিবার, ১২ ডিসেম্বর, ২০১৯ , ২৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.9/5 (103 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০১-৩১-২০১২

অস্ট্রেলিয়াতে শিবির কর্মী যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক!

গোলাম মোহাম্মদ ফারুক


অস্ট্রেলিয়াতে শিবির কর্মী যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক!
শেষ পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়াতে শিবির কর্মী যুবলীগের সাধারন সম্পাদক হয়েছেন ।ডাঃ লাভলী রহমানের (গরু ডাঃ) ছত্র ছায়ায় শামীম নামের শিবির কর্মীর দখলে এখন অস্ট্রেলীয়ার যুবলীগ।    

প্রথমতঃ ২০০০ সালে অস্ট্রেলিয়ার যুবলীগের তিন সদস্য বিশিষ্ট আহবায়ক কমিটি গঠন করা হয়।আহবায়ক গাউসুল আলম শাহজাদা, যুগ্ন সম্পাদক ডাঃ লাভলী রহমান ও খন্দকার মোস্তাক মিরাজকে দিয়ে তিন সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়। সেই কমিটি এক যুগ ধরে ঘুমন্ত অবস্থায় থাকে।দেশের ১/১১ এর মতো সংকটেও তাদের ঘুম ভাংগেনি,তারা তখন যুবলীগ বলে পরিচিত নয়।কারন, গাউসুল আজম শাহজাদা আওয়ামীলীগ অস্ট্রেলিয়া শাখার এক অংশের সহ-সভাপতি, ডাঃ লাভলী অস্ট্রেলীয়ার বঙ্গবন্ধু পরিষদ এক অংশের সাধারন সম্পাদক এবং মোস্তাক মিরাজ আওয়ামীলীগ অস্ট্রেলীয়ার অন্য অংশের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি পদ নিয়ে গ্রুপিং-  লবিং-এ ব্যস্ত।   

এ কারনে অস্ট্রেলীয়া যুবলীগের অবস্থা ছাগলের তিন বাচ্চার মতো হয়ে যায়। এ সুযোগে আল নোমান শামীম (ধান্ধা শামীম) নামে একজন শিবির কর্মী যুবলীগে ঢুকে পড়ে ডাঃ লাভলীর চামচা হিসাবে। এদিকে ডাঃ লাভলী (গরু ডাঃ) নিজের ধান্ধাকে টিকেয়ে রাখার জন্য শামীম ধান্ধা বাজকে তার কোলে সাদরে গ্রহন করে নেয়।ধান্ধাবাজ শামীম ডাঃ লাভলীর কোলে স্থান পেয়ে, ডাঃ লাভলীকে টা্কা-পয়সা এবং ছলে বলে রাজি করিয়ে যুবলীগের সাধারন সম্পাদক পদটি দখল করে নেন।

জানা যায় লাভলী রহমানের জামাই ও তাকে এই অপকর্মে সহায়তা করে যাচ্ছেন।তিনি জেনে শুনে নীজের বউকে সিডনীতে কিছু ধান্ধা বাজ পুরুষের হাতে ছেড়ে দিয়েছেন যাতে ডাঃ লাভলী সংঘটনের নামে ধান্ধা বাজি চালিয়ে যেতে পারেন। শুধু তাই নয়, জামাই বাবু নিজেও সহ-সভাপতির পদ দখল করে বউকে এই অপকর্মে উৎসাহিত করছেন।   

উপরোক্ত দুই ধান্ধা বাজের সানিধ্য পেয়ে অস্ট্রেলীয়ার আওয়ামীলীগ,যুবলীগ বঙ্গ-বন্ধু পরিষদ সহ সকল সংঘটনে একের পর এক গ্রুপিং এবং ভাঙ্গনের সৃষ্টি হয়।  

অস্ট্রেলিয়াতে একুশে একাডেমীর বই মেলায়  প্রকাশ্যে শিবিরের বই বিক্রি করতে গিয়ে স্বাধীনতা শক্তির পক্ষের সুশীল সমাজের তোপের মুখে পড়ে ধান্ধা বাজ শামীমকে বই বিক্রি বন্ধ রাখতে হয়।

ধান্ধা শামীমকে সাধারন সম্পাদক করার ঘটনাটি জানা জানি হয়ে গেলে মুস্তাক মিরাজ, ধান্ধা শামীম এবং লাভলী রহমানকে কমিউনিটিতে বিভিন্ন সময়ে তোপের মুখে পড়তে হয় এবং ডাঃ লাভলীকে বঙ্গ বন্ধু পরিষদের সাধারন সম্পাদক পদটি ছেড়ে দিতে বাধ্য হন।   

এদিকে লাভলী রহমান আবার যুবলীগের সহ-সভাপতি পদটি বেছে নেন এবং মোস্তাক মিরাজকে সভাপতির পদটি দেন। জন মুখে এখন প্রশ্ন হলো, ৫০ উর্ধে বয়সের একজন মহিলা এবং একজন পুরুষ কিভাবে যুবক এবং যুবতী সেজে অস্ট্রেলিয়া শাখার যুবলীগ দখল করলেন ? তার পিছনে কি কারন থাকতে পারে তা এখন খুজে দেখার সময় এসেছে। কেন্দ্রীয় কমিটির লোকজন এই ঘটনা জানার পরও কেন নীরব ভুমিকা পালন করছে ?
তাছাড়া, যুবলীগের ৫১ সদস্যের কমিটির মধ্যে যাদের নাম রয়েছে তাদের মধ্যে ২৬ জন একটিভ সদস্য লিখিত ভাবে কেন্দ্রীয় কমিটিতে লিখিত অভিযোগ পাঠানোর পরও এখন পর্যন্ত সেই কমিটি বলবত রাখা হয়েছে।যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটি এ ধরনের হীন কার্যক্রমে কোন একশন না নেওয়ায় অস্ট্রেলিয়া আওয়ামীলীগ, যুবলীগের নেতা কর্মীরা তুষের আঘুনে পুড়ছে এবং হতাশাগ্রস্থ।

আমরা কতিপয় আওয়ামীলীগের নেতা কর্মী এই ধরনের হীন কার্যক্রম থেকে অস্ট্রেলীয়া শাখা যুবলীগ আবং আওয়ামীলীগকে উদ্ধার করার জন্য আহবয়ান করছি এবং এ ধরনের হীন কার্যক্রমের তীব্র নিন্দা জ্ঞাপন করছি।

অষ্ট্রেলিয়া

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে