Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, মঙ্গলবার, ২ জুন, ২০২০ , ১৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

গড় রেটিং: 3.0/5 (70 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)


আপডেট : ০৫-২০-২০১৪

ফরিদপুরে কর্মকর্তাদের কাছে জনযুদ্ধের পরিচয়ে চাঁদা দাবি

ফরিদপুরে কর্মকর্তাদের কাছে জনযুদ্ধের পরিচয়ে চাঁদা দাবি

ফরিদপুর, ২০ মে- গত কয়েকদিন ধরে ফরিদপুরে বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের কর্মকর্তাদের কাছে মোবাইল ফোনে সর্বহারা পরিচয়ে মোটা অংকের চাঁদা দাবি করা হচ্ছে। বিষয়টি নিয়ে জেলার বিভিন্ন থানায় একাধিক সাধারণ ডায়রি করেছেন কর্মকর্তারা।

জেলার এলজিইডি, মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস, সাব রেজিষ্ট্রার অফিস, মৎস্য অফিসসহ বিভিন্ন সরকারি দপ্তরে একাধিক বাংলা লিংক নম্বর থেকে মোটা অংকের টাকা চেয়ে হুমকি- ধামকি দেওয়া হচ্ছে। দাবিকৃত চাঁদার টাকা না দিলে প্রাণ নাশের হুমকিও দেওয়া হয়েছে ।

বোয়ালমারী উপজেলার সাব-রেজিষ্ট্রার সঞ্জয় কুমার আচার্য্য বলেন, সোমবার তাকে ০১৯৫৪ ৯২৫৮১৮ নম্বর থেকে চরমপন্থী দলের সদস্য বলে চাঁদা দাবি করা হয়। ওই ঘটনায় বোয়ালমারী থানায় তিনি সাধারণ ডায়রি করেছেন ।
 
বোয়ালমারী এলজিইডির উপ-সহকারি প্রকৌশলী ফরিদুল ইসলাম জানান, শুক্রবার সোয়া দুইটার দিকে সর্বহারা পরিচয় দিয়ে (০১৯৫ ২৮৫৬১৫৯) নম্বর থেকে আজিজ পরিচয় দিয়ে চাঁদা দাবি করা হয়। তিনি বলেন, সে নিজেকে জনযুদ্ধ সংগঠনের সদস্য পরিচয় দাবি করে বলে, আমাদের প্রচুর অর্থের প্রয়োজন। তাই দুই একদিনের মধ্যে টাকা দিবি, অন্যথায় জীবন থাকবে না।

একই অভিযোগ করেন এলজিইডি’র প্রকৌশলী বোয়ালমারীর মো. আজাহুরুল ইসলাম, সদরপুর উপজেলার নিজামউদ্দিন, ভাঙ্গা উপজেলার রুহুল ইসলাম, নগরকান্দা উপজেলার রেজাউল করিম।

সর্বহারা অথবা জনযুদ্ধ নেতা পরিচয় দিয়ে ফোন করে টাকা চাওয়া হয়েছে বোয়ালমারীর মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা জালালউদ্দিন আহমেদ, মৎস্য কর্মকর্তা নওশের আলী ও দেব দুলাল সাহার কাছে। সদরপুর উপজেলার প্রকৌশলী নিজামউদ্দিন জানান, তাকে ফোন করে বিকাশের মাধ্যমে টাকা চেয়ে হুমকি দেওয়া হয়েছে। তিনি বলেন, এ ঘটনায় থানার সাধারণ ডায়রি করা হয়েছে।

ফরিদপুরের এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী নূর হোসেন ভূইয়া জানান, তার ছয় প্রকৌশলীকে মোবাইল ফোনে টাকা চেয়ে হুমকি দেওয়া হচ্ছে ধারাবাহিক ভাবে। তিনি বলেন, এ বিষয়ে তিনি ফরিদপুর পুলিশ সুপারের সঙ্গে কথা বলেছেন। তিনি জানান, চাঁদা চাওয়ার বিষয়ে প্রকৌশলীদের সংশ্লিষ্ট থানায় সাধারণ ডায়রি করতে বলা হয়েছে।

জেলার ভাঙ্গার মাধ্যমিক শিক্ষা কর্তকর্তা সাইফুল আলম বলেন, তার কাছে চাঁদা চাওয়ার পরেই ভাঙ্গা থানায় সাধারণ ডায়রি করেছেন (নং ১৫৩, ১৯/৫)। তিনি বলেন, এভাবে তার মতো অনেক সরকারি কর্মকর্তাকে ফোনে টাকা চেয়ে হুমকি-ধামকি দেওয়া হচ্ছে।

ফরিদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বিজয় বসাক বলেন, এ বিষয়ে তারা অবগত আছেন, যে বাংলা লিংক নম্বর গুলো থেকে ফোন করে চাঁদা চাওয়া হচ্ছে সে নম্বর গুলোর উপর পুলিশি নজরদারি রয়েছে। চাঁদা চাওয়ার বিষয়টি নিয়ে পুলিশ ইতোমধ্যেই তদন্ত শুরু করেছে- দ্রুতই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ফরিদপুর

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে