Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 3.0/5 (60 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print

আপডেট : ০৫-২০-২০১৪

অভিমানেই চলে গেল সালমান ভক্ত অপূর্ব

তানভীর হোসেন


অভিমানেই চলে গেল সালমান ভক্ত অপূর্ব

নারায়ণগঞ্জ, ২০ মে- অপূর্বের ছোট্ট শরীরে ক্যান্সার বাসা বাধে ২০১২ সালে। টানা ৩ বছর এ কারণে কোনো উচ্ছ্বাস ছিল না তার, ছিল না প্রাণচাঞ্চল্যও। অসুস্থ দেহ নিয়েই দিনভর বিছানায় শুয়ে কিংবা বসে কাটাতে হয়েছে। এ সময় বার বার বলতো, ‘মা আমি বাঁচতে চাই, বাবা আমাকে বাঁচাও প্লিজ।

ছেলের এমন আকুতিতে পাগল হয়ে ওঠে বাবা-মা। ছুটে যায় বিভিন্নজনের কাছে। চিকিৎসার জন্য প্রয়োজন ছিল ১০/১২ লাখ টাকা। আর এ মোটা অংকের টাকার কিছুটা জোগাড় করতে পারলেও শেষ পর্যন্ত চিকিৎসার অভাবেই সবাইকে কাঁদিয়ে বিদায় নিল অপূর্ব। তার শোকে এখন কাতর পরিবারটি।

সোমবার সকালে নারায়ণগঞ্জ শহরের দেওভোগে নিজ বাসাতেই ৫ বছর বয়সী এ শিশুর মৃত্যু হয়। পরে দুপুরে স্থানীয় কবরস্থানে শায়িত করা হয় তাকে।

গত বছর ভারতে চিকিৎসা করাতে গিয়ে বলিউড তারকা সালমান খানের সঙ্গে দেখা হয়েছিল অপূর্বের। সালমান খান কোলে নিয়ে ওকে আদর করে। এ গল্প দেশে এসে সবাইকে বলতো সে।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, নারায়ণগঞ্জের পশ্চিম দেওভোগ পূর্বনগর এলাকার মাসুদুর রহমান মিন্টু ও শিখা আক্তার ঊর্মির একমাত্র সন্তান অপূর্ব ২ বছর বয়সে প্রচণ্ড জ্বরে আক্রান্ত হয়। দেশে বিভিন্ন চিকিৎসককে দেখানোর পরও ভালো হয়নি। পরে ২০১২ সালের জানুয়ারিতে কলকাতার ঠাকুর পুকুর সরোজগুপ্ত ক্যান্সার হাসপাতালে নেওয়া হয়। তাকে বাচাঁতে বুনমেরু ট্রান্সপ্লানেট করানোর কথা জানান চিকিৎসকরা।

ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী মাসুদুর রহমান মিন্টু জানান, অপূর্ব বলিউড তারকা সামলান খানের খুবই ভক্ত ছিল। দাবাং ছবিটি দেখে সে তার ভক্ত হয়। সালমান খানের সঙ্গে দেখা করার পর সে আমার গলা জড়িয়ে ধরে বলেছে, বাবা আমি বাঁচতে চাই। প্লিজ আমাকে বাঁচাও বাবা। কিন্তু আমি এমনই এক হতভাগ্য বাবা ছেলেকে বাঁচাতে পারিনি।

মা শিখা আক্তার ঊর্মির জানান, অপূর্ব চটপটে স্বভাব আর ব্যবহার দিয়ে হাসপাতালের চিকিৎসক, নার্স ও অন্যদের মন জয় করে নিয়েছিল। ক্যান্সার যে ওকে তিলে তিলে শেষ করে দিচ্ছে সম্প্রতি ওর কথাবার্তায় ও চালচলনে সেটা বোঝা যাচ্ছিল। অবশেষে আমাদের রেখে চলে গেল ও।

মা ঊর্মি আরো জানান, এক বছর আগে সালমান খানকে দেখার ইচ্ছের কথা জানায় সে। ‘মেইক-এ-উইশ ফাউন্ডেশন’ নামে একটি প্রতিষ্ঠান অপূর্বর এ ইচ্ছেকে পূরণের ব্যবস্থা করে।

সংগঠনটি অপূর্ব আর আমাদের নিয়ে যায় মুম্বাইয়ের বারসোভায়। সেখানে ‘মেন্টাল’ সিনেমার শুটিং করছিলেন সালমান। এসময় শুধু চোখের দেখা নয়, প্রিয় নায়কের সঙ্গে কথাও হয় তার। এ সময় সিনেমার সেটে গুণ্ডাদের সঙ্গে ফাইটও করে অপূর্ব। সালমান অপূর্বকে কোলে নিয়ে আদর করেন, মাথায় হাত বুলিয়ে দোয়া করেন। সালমান খানের সঙ্গে দেখা করার পর মানসিকভাবে কয়েকদিন ফুরফুরে মেজাজে থাকলেও পরে আবার অসুস্থ হয়ে পড়ে সে।

নারায়নগঞ্জ

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে