Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, রবিবার, ১৭ নভেম্বর, ২০১৯ , ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.6/5 (21 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০৫-১৪-২০১৪

বিদেশি টিভি চ্যানেলের সম্প্রচার ফি ২০ কোটি টাকা হচ্ছে

শাহজাহান সাজু


বিদেশি টিভি চ্যানেলের সম্প্রচার ফি ২০ কোটি টাকা হচ্ছে

ঢাকা, ১৪ মে- আসন্ন ২০১৪-১৫ অর্থবছরের বাজেটেই বিদেশি টেলিভিশন চ্যানেলগুলোর বাংলাদেশে সম্প্রচারের জন্যে এককালীন ফি নির্ধারণ করতে যাচ্ছে সরকার। বাংলাদেশে বিদেশি টেলিভিশন চ্যানেলের সম্প্রচারের ক্ষেত্রে চ্যানেলপ্রতি এককালীন ২০ কোটি টাকা ফি নির্ধারণ করা হচ্ছে। এ লক্ষ্যে অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে একটি সুপারিশমালা পাঠাচ্ছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) সমন্বয়ক কমিটি। এনবিআর সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

সূত্র জানায়, বেসরকারি টেলিভিশন চ্যালেনগুলোর মূল্য সংযোজন কর (মূসক) বা ভ্যাট সংক্রান্ত জটিলতা নিরসনে একটি কমিটি গঠন করেছিল এনবিআর। সে সঙ্গে বিজ্ঞাপন প্রচার সংক্রান্ত কর আদায়ে একটি নীতিমালা প্রণয়নের দায়িত্ব দেওয়া হয় কমিটিকে। এনবিআর সদস্য (করনীতির) সৈয়দ মো. আমিনুল করিমের নেতৃত্বে চার সদস্যের এই কমিটি দীর্ঘ পর্যালোচনা শেষে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে এ সংক্রান্ত একটি সুপারিশ পাঠানোর প্রস্তুতি সম্পন্ন করে।

সুপারিশে বলা হয়েছে, বাংলাদেশে বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলগুলোর সম্প্রচারের ওপর ১৫ শতাংশ মূল্য সংযোজন কর (মূসক) বা ভ্যাট আরোপিত রয়েছে। এছাড়া চ্যানেলগুলোতে প্রচারিত বিজ্ঞাপনের ওপর ১৫ শতাংশ ভ্যাট ও অভিনেতার কাছ থেকে অগ্রিম আয়কর নিচ্ছে এনবিআর। কিন্তু বিদেশি চ্যানেল থেকে শুধু ২৫ শতাংশ মূসক নেওয়া হলেও বিজ্ঞাপন এবং শিল্পীর আয়ের কোনো ধরনের মূসক পাচ্ছে না সরকার। একই সঙ্গে এসব চ্যানেল অবাধ হওয়ায় প্রতিযোগিতায় পিছিয়ে পড়ছে দেশি চ্যানেলগুলো। এতে দেশীয় সংস্কৃতি থেকে দূরে সরে যাচ্ছে নতুন প্রজন্ম। এসব বিষয় আমলে নিয়ে বিদেশি চ্যানেল সম্প্রচারের ওপর অধিক পরিমাণ মূসক নির্ধারণের প্রস্তাব করে সমন্বয়ক কমিটি।

তবে এমনটি করা হলে কেবল অপারেটররা গ্রাহকদের কাছ থেকে সে টাকা তুলে নেবে-এমন আশঙ্কায় প্রস্তাবটি গ্রহণ করেননি অর্থমন্ত্রী। তিনি গ্রাহকদের ওপর অতিরিক্ত খরচের দায় না চাপিয়ে এবং দেশীয় চ্যানেলের প্রসার বাড়ানোর লক্ষ্যে বিদেশি চ্যানেলের ওপর ২০ কোটি টাকা করে সম্প্রচার ফি নির্ধারণ করার সুপারিশ করেন। একই সঙ্গে স্যাটেলাইট টেলিভিশনের ওপর ধার্য করা ২৫ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক বহাল রাখার পক্ষে মত দেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। অর্থমন্ত্রীর পরামর্শক্রমে বিদেশি চ্যানেল বাংলাদেশে প্রচারে ২০ কোটি টাকার এককালীন ফি নির্ধারণের জন্য সুপারিশমালা প্রস্তুত করে এনবিআর। প্রস্তাবটি বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে পাঠানোর প্রক্রিয়ায় রয়েছে। সুপারিশমালায় বাংলাদেশের বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলগুলোকে তাদের সব বিজ্ঞাপনের মূসক নিশ্চিত করতে প্রত্যেক অনুষ্ঠানের সময় (সেকেন্ড, মিনিট, ঘণ্টা), টাকার পরিমাণ আগেই এনবিআরকে জানানোর কথা বলা হয়েছে। এছাড়া কোনো বাংলাদেশি পণ্যের বিজ্ঞাপন ভারতীয় কিংবা অন্য কোনো দেশের চ্যানেলে প্রচার করা হলে সে ক্ষেত্রে কর আদায়ের ব্যবস্থা নেওয়ারও সুপারিশ করা হয়।

এ বিষয়ে কমিটিতে থাকা একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা জানান, বিদেশি টেলিভিশন চ্যানেলগুলো বাংলাদেশের সম্প্রচারের ক্ষেত্রে কোনো ধরনের কর বা মূসক দিচ্ছে না। কিন্তু দেশি চ্যানেলগুলোকে অনেক ধরনের কর দিতে হয়। এসব কারণে দেশীয় চ্যানেলগুলো প্রতিযোগিতায় পিছিয়ে পড়ছে। এছাড়া বিজ্ঞাপনের বাজারও হাতছাড়া হয়ে যাচ্ছে। এসব কারণে বেসরকারি টেলিভিশনের মালিকদের দাবি ও অর্থমন্ত্রীর সুপারিশক্রমে একটি প্রস্তাবনা তৈরি করা হয়েছে। প্রস্তাবটি বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন পেলে নতুন অর্থবছর থেকে তা কার্যকর করা হবে বলে জানান তিনি।

এর আগে এনবিআর চেয়ারম্যানের সঙ্গে দেখা করে মূসক দেওয়ার পদ্ধতি সহজ করার দাবি জানিয়েছিল বেসরকারি টেলিভিশন মালিকদের সংগঠন-অ্যাটকো। বৈঠকে অ্যাটকোর নেতারা ভারতীয় চ্যানেলগুলো বাংলাদেশে ব্যাপকভাবে চালু থাকায় বিজ্ঞাপনের বাজার ভারতে চলে যাচ্ছে বলে চেয়ারম্যানকে জানিয়েছিলেন। করপোরেটগুলো ভারতীয় চ্যানেলগুলোকে বিজ্ঞাপন দিচ্ছে। কিন্তু ভারতে কোনো বাংলাদেশি টেলিভিশন চ্যানেল চলে না। আর ভারতীয় চ্যানেল অবাধ হওয়ার কারণে দেশি চ্যানেলে বিজ্ঞাপন কমে যাচ্ছে বলে এনবিআর চেয়ারম্যানের কাছে অভিযোগ করেছিলেন তারা।

মিডিয়া

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে