Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বুধবার, ১৬ অক্টোবর, ২০১৯ , ১ কার্তিক ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.8/5 (6 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ০১-২৭-২০১২

অর্পিত সম্পত্তি ফেরত দিতে মার্চে দেশজুড়ে ১৯ ট্রাইব্যুনাল

অর্পিত সম্পত্তি ফেরত দিতে মার্চে দেশজুড়ে ১৯ ট্রাইব্যুনাল
ঢাকা, ২৮ জানুয়ারি: ‘অর্পিত সম্পত্তি’ ফেরত দিতে আগামি মার্চের মাঝামাঝি থেকে দেশে ১৯টি ট্রাইব্যুনাল কাজ শুরু করবে। আইন মন্ত্রণালয়ের একটি সূত্রে জানা গেছে, সাবেক ১৯টি বৃহত্তর জেলার সীমানায় একেকটি ট্রাইব্যুনালকে এখতিয়ার দেয়া হবে। তাছাড়া বর্তমানের ৬১টি প্রশাসনিক জেলার প্রতিটির জন্য গঠন করা হবে একটি করে ‘জেলা কমিটি’।
 
ট্রাইব্যুনাল কিংবা জেলা কমিটি; দুই তরফেই সম্পত্তি ফেরত পাবার আবেদন নিষ্পত্তি করা হবে। তবে একইসঙ্গে দুই কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করা যাবে না।
কোন সম্পত্তি ‘অর্পিত সম্পত্তি’ বলে গণ্য হবে তা সরকার প্রজ্ঞাপন জারি করে নির্ধারিত করে দেবে। কেবল প্রজ্ঞাপনে অন্তর্ভূক্ত সম্পত্তিই দরকারি প্রমাণাদি ও কাগজপত্র থাকা সাপেক্ষে ফেরত পাবার আবেদন করা যাবে।
 
সম্পত্তির দাবিদাররা ট্রাইব্যুনাল কিংবা জেলা কমিটি- যে কোনো কর্তৃপক্ষের কাছেই আবেদন করতে পারবেন। জানা গেছে, সাবেক  বৃহত্তর জেলা সদরে ট্রাইব্যুনালগুলোর বসবে। বিভিন্ন কার্যদিবসে বৃহত্তর জেলার সীমানার মধ্যে গঠিত বর্তমানের নতুন জেলাগুলোতেও যাবে ট্রাইব্যুনাল।
 
সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, অর্পিত সম্পত্তি প্রত্যর্পণ আইন, ২০০১ সংশোধন করতে আনা আইনের বিধিমালায় এসব বিধান থাকছে।  সংশোধিত আইনটি কার্যকর হওয়ার ১৫০ দিনের মধ্যে অর্পিত সম্পত্তির মৌজাভিত্তিক জেলাওয়ারি তালিকা তৈরি করে প্রজ্ঞাপন প্রকাশ করা হবে।
 
প্রজ্ঞাপনে অন্তর্ভূক্ত অর্পিত সম্পত্তির মালিকানা কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান দাবি করতে পারবে। সম্পত্তি ফেরত পেতে হলে প্রজ্ঞাপন প্রকাশের ৯০ দিনের মধ্যে নিজের দাবির সমর্থনে নাগরিকত্বের সনদসহ দরকারি কাগজপত্র ও প্রমাণাদি সংশ্লিষ্ট ট্রাইব্যুনাল বা জেলা কমিটির কাছে জমা দিতে হবে।
 
ট্রাইব্যুনাল ও জেলা কমিটিতে যারা থাকছেন
আইন মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, ট্রাইব্যুনালগুলির নেতৃত্বে থাকবেন একজন করে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট।
জেলা কমিটির সভাপতি হবেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব)। সাত সদস্যের এ কমিটিতে সংশ্লিষ্ট জেলায় স্বার্থ আছে এমন একজনসহ স্থানীয় গণ্যমান্য দু’জনকে মনোনয়ন দেবেন ভূমিমন্ত্রী। স্থানীয় দু’জন গণ্যমান্য ব্যক্তির মধ্যে হিন্দু ও মুসলমান সম্প্রদায়ের একজন করে প্রতিনিধি থাকবেন।
 
একই সম্পত্তি নিয়ে দুই জায়গায় আবেদন করা যাবে না
একই সম্পত্তি নিয়ে একইসঙ্গে ট্রাইব্যুনালে ও জেলা কমিটিতে আবেদন করা যাবে না। এমন আবেদন পাওয়া গেলে বা একই সম্পত্তি নিয়ে ভিন্ন ভিন্ন ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান আবেদন করলে তা নিষ্পত্তি করবে ট্রাইব্যুনাল। ১৫০ দিনের মধ্যে সিদ্ধান্ত দেয়া হবে। সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে ৬০ দিনের মধ্যে আপিল করা যাবে।
 
সম্পত্তি ফেরতের আবেদনের শর্ত
এক.সম্পত্তির সরাসরি মালিকানার দাবিদার, উত্তরাধিকারী বা উত্তরাধিকারীর স্বার্থাধিকারী বা উত্তরাধিকার সূত্রে সহ-অংশীদারদের অবশ্যই প্রমাণ করতে হবে যে তারা ১৯৭১-এর ২৬ মার্চ থেকে এ পর্যন্ত ধারাবাহিকভাবে বাংলাদেশের স্থায়ী নাগরিক আছেন।
 
দুই.তারা যে  ১৯৭১ সালের ২৬ মার্চ থেকে এ পর্যন্ত বাংলাদেশে অবস্থান করছেন তা যৌক্তিক ও বিশ্বাসযোগ্যভাবে প্রমাণ করতে হবে।
 
তিন. স্থায়ী নাগরিকত্ব ও ধারাবাহিক অবস্থানের পক্ষে দরকারি কাগজপত্র থাকতে হবে।
 
চার. জাতীয় পরিচয়পত্র দেখিয়ে নাগরিকত্ব প্রমাণ করা যাবে।
 
পাঁচ. ১৯৭৩ সাল থেকে এ পর্যন্ত অনুষ্ঠিত সংসদ নির্বাচন ও স্থানীয় সরকার নির্বাচনে ভোটার তালিকায় নাম থাকতে হবে। ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বা সাবেক মিউনিসিপ্যালিটির চেয়ারম্যানের সনদ থাকতে হবে।

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে